রাত ১১:৪৭, শুক্রবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
/ সিলেট

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারে অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে দুই ছাত্রলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শহরের সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রবাসের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহতাবস্থায় তাদের উদ্ধার করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। তারা হলেন, শহরের পুরাতন হাসপাতাল রোডের বাসিন্দা আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে শাহবাব রহমান (২৩), তিনি মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। অপরজন সদর উপজেলার দুর্লবপুর গ্রামের বিলাল হোসেনের ছেলে মাহি আহমদ (১৮)। তিনি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী। মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুহেল আহম্মদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি তদন্ত করা দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সিলেটে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যুবক নিহত

সিলেটে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ঠেলা ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে মোটরসাইকেল আরোহী এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টার দিকে নগরীর ঘাসিটুলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে সিলেট কোতোয়ালি থানার ওসি গৌসুল হোসেন জানান।

নিহত খোকন আহমদ (৩০) ওই এলাকার কানু মিয়ার ছেলে। ওসি গৌসুল বলেন, “মোটরসাইকেল চালানোর সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি আচার বিক্রির ঠেলা ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পাশের একটি বিদ্যুতের খুঁটিতে ছিটকে পড়েন খোকন।”

স্থানীয়রা তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয় বলে এ পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

 

সিলেটে পাথর কোয়ারির দখল নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষ

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেটের জৈন্তাপুরে শ্রীপুর পাথর কোয়ারির দখল নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। জৈন্তাপুর থানার ওসি খান মোহাম্মদ ময়নুল জাকির জানান, রোববার দুপুরে জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী ও সহ-সভাপতি কামাল আহমদের অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে। আহতদের জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয়দের বরাতে ওসি বলেন, কিছুদিন ধরে ওই পাথর কোয়ারির জমির দখল নিয়ে লিয়াকত ও কামালের অনুসারীদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। দুপুরে লিয়াকত আলীর অনুসারীরা কোয়ারিতে পাথর তুলতে যায়। এ সময় কামালের সমর্থকরা সেখানে জমি দখল করতে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হন বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।

হবিগঞ্জে ৬ নারী ‘ছিনতাইকারী’ আটক

হবিগঞ্জ শহরে ছিনতাইকারী সন্দেহে ছয় নারীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে জনতা। সদর থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক জানান, বৃহস্পতিবার শহরের আরডি হল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আটকরা হলেন জেলার লাখাই উপজেলার শারমিন আক্তার (৩০), তানজিয়া আক্তার (৩৫), মৌলভীবাজার জেলার রাহিলা খাতুন (৪০), মৌলভীবাজার সদরের মুন্নি আক্তার (২৫), হবিগঞ্জ সদরের পারুল বিবি (৪৫) ও মরিয়ম বিবি (৪০)।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি জানান, আরডি হল এলাকা দিয়ে একটি টমটম (ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা) যাওয়ার সময় এক মহিলার স্বর্ণের চেইন ছিনতাই করে নিয়ে যায় এক নারী ছিনতাইকারী।

“এ সময় ওই মহিলার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তানজিয়া নামে এক নারী ছিনতাইকারীকে আটক করে। পরে তার দেওয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক আরও পাঁচ নারী ছিনতাইকারীকে আটক করা হয়।”

পরে পুলিশকে বিষয়টি অবগত করলে হবিগঞ্জ সদর থানা পুলিশ তাদের থানায় নিয়ে যায়। তাদের থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে ওসি জানান।

 

সিলেটে হকার্স নেতা গ্রেফতার

সিলেট প্রতিনিধি : অবশেষে পুলিশের খাঁচায় আটকা পড়লেন হকার্স লীগ নেতা রকিব আলী। তিনি সিলেট মহানগর হকার্স কল্যাণ সমবায় সমিতির সভাপতির পদেও রয়েছেন। তার শেল্টারে এতদিন নগরীর ফুটপাত দখল করে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছিল হকাররা। গত রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে নগরীর বন্দর বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রকিবের বিরুদ্ধে নগরীর ফুটপাত দখলদারদের আশ্রয়দাতা হিসেবে গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে বলে জানা গেছে।

গত ১৮ অক্টোবর সিলেট মহানগর মুখ্য হাকিম আদালতের বিচারক সাইফুজ্জামান হিরো হকার্স সমিতির সভাপতি রকিব আলীসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এ মামলায় এ পর্যন্ত ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকিরা এখনও ধরাছোয়ার বাইরে রয়েছে।
ময়মনসিংহে হাফিজ উদ্দিন হত্যা

সিলেটে ছুরিকাঘাতে ব্যবসায়ী খুন, আটক ২

সিলেটের বিয়ানীবাজারে ছুরিকাঘাতে এক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। শনিবার দুপুরে পৌর শহরের মোকাম মসজিদ রোডে এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে।  নিহত আনোয়ার হোসেন (২৮) সুপাতলা গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে। বিয়ানীবাজারে তার রেস্টুরেন্ট ব্যবসা রয়েছে।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি শাহজালাল মুন্সি জানান, দুপুর ১২টার দিকে কয়েকজন যুবক মোকাম মসজিদ এলাকায় তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। “স্থানীয়রা উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।”

এ ঘটনায় জড়িত অভিযোগে দুই জনকে আটক করা হয়েছে। এরা হলেন বড়দেশ এলাকার পংকি মিয়ার ছেলে সাহেল আহমদ (৩০) ও রাহেল আহমদ (২৫)।

পুর্ব বিরোধের জেরে এ হত্যাকাণ্ড হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে বলে জানান ওসি।

 

সিলেট সীমান্তে যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার

সিলেট সীমান্তে ফারুক মিয়া (৩০) নামে এক যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত ফারুক গোয়াইনঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী লক্ষণছড়া গ্রামের জুলফু মিয়ার ছেলে।

শনিবার (২৫ নভেম্বর) সকালে গোয়াইনঘাট উপজেলার সোনারহাট সীমান্তের ১২৬৬ মেইন পিলারের ৫ নং সাব পিলার সংলগ্ন সীমান্ত এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন স্থানীয়রা।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে ১২৬৬ মেইন পিলার সংলগ্ন ৫ নং সাব পিলারের সংলগ্ন এলাকায় জ্বালানির জন্য কাঠ সংগ্রহে যায় ওই যুবক। একপর্যায়ে সীমান্তের ওপাশ থেকে আসা গুলিতে বিদ্ধ হয় ফারুক মিয়া।  

বিজিবি ৪৮ ব্যাটালিয়নের সোনারহাট সীমান্ত ফাঁড়ির নায়েব সুবেদার হুমায়ন রশিদ বলেন, সীমান্ত এলাকায় জ্বালানির জন্য কাঠ সংগ্রহে গেলে ওই যুবক গুলিবিদ্ধ হন।

এদিকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে এলে সেখানে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

সিলেটের গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন  বলেন, খবর পেয়ে নিহতের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়েছে পুলিশ। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

হবিগঞ্জে মাইক্রোবাস-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ৩

হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে মাইক্রোবাসের সঙ্গে সংঘর্ষে একটি মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলার উবাহাটা হাইওয়ে সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ওসি জসিম উদ্দিন জানান।

নিহতরা হলেন হবিগঞ্জ সদরের নুরপুর ইউনিয়নের পুরাসুন্দা গ্রামের মনু মিয়া তালুকদারের ছেলে ময়না তালুকদার (২৫), একই উপজেলার জিতু মিয়ার ছেলে মন্নান মিয়া (১৮) ও ভাটি শৈইলজুড়া গ্রামের জলিল মিয়ার ছেলে সোহেল মিয়া (১৯)।

দুর্ঘটনার পর শায়েস্তাগঞ্জ থানা ও হাইওয়ে থানা প্রায় এক ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে স্থানীয়রা। ওসি জসিম উদ্দিন জানান, বিকাল ৩টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জগামী একটি মোটরসাইকেল ও ঢাকাগামী একটি মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মোটরসাইকেলটি দুমড়েমুচড়ে যায়।

“ঘটনাস্থলে দুইজন মারা যান। হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যান ময়না তালুকদার।” ওসি জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। মাইক্রোবাসটি আটক করা হলেও চালক পালিয়ে গেছে।

 

হবিগঞ্জে মানবতা বিরোধী/৮ মামলার ২ আসামি আটক

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের লাখাইয়ে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার ২ আসামীকে আটক করা হয়েছে। বুধবার ভোররাতে তাদের নিজেদের বাড়ি থেকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হচ্ছেন ওই উপজেলার মুড়িয়াউক গ্রামের বাসিন্দা তাজুল ইসলাম ফুকন ও একই গ্রামের জাহেদ উদ্দিন। আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. বজলার রহমান জানান, তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তবে গ্রেফতারী পরোয়ানার কপি এখনও হাতে পাইনি। পেলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা গেছে, মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মাওলানা শফিক উদ্দিনের নেতৃত্বে উল্লেখিতরাসহ একটি সংঘবদ্ধ দল উপজেলার বিভিন্ন স্থানে লুটপাট, বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ ও হত্যাকান্ড চালায়। এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২০১৫ সালের ৪ অক্টোবর বীর মুক্তিযোদ্ধা মুড়িয়াউক গ্রামের ইলিয়াছ কামাল বাদি হয়ে মোট ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। ৫ অক্টোবর মামলাটি আন্তর্জাতিক মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালে প্রেরণ করা হয়। এরপর দফায় দফায় তদন্ত করেন ট্রাইব্যুনালের তদন্তকারী দল। বুধবার ভোররাতে পুলিশ উল্লেখিত দুই আসামীকে আটক করে। বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

সিলেটে মাটি ধসে পাথর শ্রমিক নিহত

সিলেটের জাফলংয়ে পাথর তুলতে গিয়ে মাটি ধসে এক নারী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। গোয়াইনঘাট থানার ওসি দেলওয়ার হোসেন জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মন্দিরজুম এলাকায় হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শম্পা দাস (১৮) নেত্রকোণা জেলার শ্যামপুর এলাকার রণজিৎ দাসের মেয়ে। শম্পা বাবার সঙ্গে জাফলংয়ের মোহাম্মদপুরে থেকে পাথর তোলার কাজ করতেন।

ওসি দেলোয়ার বলেন, শস্পাসহ কয়েকজন শ্রমিক গর্ত থেকে পাথর তুলছিলেন । হঠাৎ মাটি ধসে পড়লে শম্পা ঘটনাস্থলেই মারা যান।

আহত তিন শ্রমিককে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

সিলেটের বিভিন্ন জায়গায় প্রায়ই এ ধরনের দুর্ঘটনায় হতাহতের ঘটনা ঘটছে। সর্বশেষ গত ৭ নভেম্বর কানাইঘাটে মারা যান ছয়জন। গত ১১ মাসে মোট ২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

 

মৌলভীবাজারে দেশী অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত আটক

সিলেট প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার কালিঘাট চা বাগান এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬ ডাকাতকে আটক করেছে র‌্যাব। রোববার ভোররাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৯ এর সিপিসি-২, শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের একটি অভিযানিক দল কালিঘাট চা বাগানের টিকরিয়া রোডস্থ চৌরাস্তা থেকে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ওই ৬ ডাকাতকে আটক করে।

এ সময় তাদের কাছ থেকে দুটি চাইনিজ কুড়াল, একটি বড় ছুরি, একটি রামদা, একটি শাবল, দুটি কিরিচ, দুটি টেপ, মরিচের গুঁড়াসহ ছয়টি পুরাতন চায়না মোবাইল সেট আরো ৮টি মোবাইল সিম উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত ডাকাতরা হলো হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার চারিগাও চিলামী গ্রামের মৃত আসকন্দর আলীর পুত্র মো. আব্দুল কাদিও (৪৫), শ্রীমঙ্গল উপজেলার টিকরিয়া খন্দকারগুল এলাকার মিলন এর পুত্র মিন্টু কপালী (২০), হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার শায়েস্তাগঞ্জ উত্তর উবাহাটা গ্রামের মৃত মর্তুজ আলী পুত্র জাহাঙ্গীর মিয়া (৩৩), হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট উপজেলার ওবাহাটা গ্রামের মো. খোরশেদ মিয়ার পুত্র মো. কুদ্দুস মিয়া (২৩), একই জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার বিরামচর গ্রামের লাল মিয়ার পুত্র জাহাঙ্গীর মিয়া (৩৬) ও একই জেলার বাহুবল উপজেলার চারিগাও আবিলপুর গ্রামের মৃত সুন্দর আলী পুত্র মো. সানু মিয়া (৩৮)।

র‌্যাব জানায় তারা দীর্ঘদিন যাবৎ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও লোক চক্ষুর অন্তরালে মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতির একটি বড় চক্র গড়ে তোলে। তাদের এহেন কর্মকান্ড এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করে আসছিল। তাদের গ্রেফতার করায় এলাকাবাসী স্বস্তি প্রকাশ করছে।
উদ্ধারকৃত দেশী অস্ত্রশস্ত্র ও আলামতসহ আটককৃত ডাকাদের শ্রীমঙ্গল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিমান চন্দ্র কর্মকার সাংবাদিকদের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন।

সিলেটে ভূমিধসে নিহত ৬

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটের কানাইঘাটে নদী তীর থেকে পাথর তুলতে গিয়ে ভূমি ধসে ৫ মাদ্রাসা ছাত্রসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামসুল আলম সরকার জানান, কানাইঘাট উপজেলার চাণ্ডালা বাংলাটিলা এলাকার লোভাছড়া নদীর তীরে মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন- বাংলাটিলা এলাকার ইউনূস আলীর ছেলে জাকির (১৬), আলমাস মিয়ার দুই ছেলে নাহিদ (১৩) ও শাকিল (১২), মুসাব্বির আলীর ছেলে মারুফ  (১৩), আনা মিয়ার ছেলে আবদুল কাদির (১৩) এবং আবদুল বারীর ছেলে সুন্দর আলী (৩৫)।

নিহতদের মধ্যে প্রথম পাঁচজন ডাউকেরগুল নেসারুল কুরআন হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র। আর সুন্দর আলী ওই এলাকারই বাসিন্দা।  পুলিশ কর্মকর্তা শামসুল আলম বলেন, ওই মাদ্রাসার বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল উপলক্ষে স্থানীয়ভাবে মেলার আয়োজন করা হয়। ওই আয়োজনের জন্য টাকা সংগ্রহ করতে মাদ্রাসা ছাত্রদের দলটি লোভাছড়া নদীর তীরে পাথর সংগ্রহ করতে যায়।

লোভাছড়া নদীর পানি শুকিয়ে আসায় তলদেশে অনেক পাথর বেরিয়ে এসেছে। সেই পাথর তুলতে গিয়েছিল ওরা, যাতে পাথর বিক্রি করে টাকা জোগাড় করা যায়।
তারা নদীর তলদেশে পাথর তোলার সময় তীর থেকে ভূমি ধসে পড়লে ওই দলের সবাই চাপা পড়ে। খবর পেয়ে এলাকাবাসীর সহায়তায় পুলিশ ৬ জনের লাশ উদ্ধার করে বলে শামসুল আলম জানান। 

মৌলভীবাজারে শিশু হত্যায় চাচার ফাঁসির দণ্ড

মৌলভীবাজারে ভাতিজাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার দায়ে এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে মৌলভীবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত চান মিয়া কমলগঞ্জ উপজেলার বাদে উবাহাটা গ্রামের আবু আলীর ছেলে। মামলার পর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন। এছাড়াও আসামিকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে পিপি এ এস এম আজাদুর রহমান জানান।

মামলার বরাত দিয়ে তিনি জানান, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ২০০৮ সালের ২৫ মার্চ সকালে ভাই মো. আলী আকবরের ছেলে তাজুল ইসলাম ওরফে তাজু মিয়াকে (৮) স্থানীয় মসজিদ থেকে ধরে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনার দিনই আলী আকবর বাদী হয়ে হত্যা মামলা করেন।

 

কানাইঘাটে পাথর কোয়ারিতে ধস, নিহত ৩

সিলেটের কানাইঘাটে পাথর তুলতে গিয়ে কোয়ারিতে ধসে অন্তত তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামসুল আলম সরকার জানান, মঙ্গলবার সকালে কানাইঘাট উপজেলার মুলাধুল এলাকায় এক টিলায় এ ঘটনা ঘটে।  

“এলাকাটি দুর্গম। পুলিশ এ পর্যন্ত তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছে। এখনও দুজন নিখোঁজ আছে।” কানাইঘাট থানার ওসি আবদুল আহাদ জানান, ওই এলাকার কোয়ারিতে পাথর তোলার সময় হঠাৎ ধস নামে বলে তারা খবর পেয়েছেন।

তবে কতজন সেখানে ছিল বা কীভাবে দুর্ঘটনা ঘটল- সেসব বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি তিনি।

 

স্ত্রীকে খুন, শাশুড়ি-শ্যালিকাকে জখম

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় পারিবারিক কলহের জের ধরে স্বামীর ধারাল অস্ত্রের আঘাতে এক নারী নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের আদমপুর এলাকার এই ঘটনায় নিহতের মা ও বোনও আহত হয়েছেন বলে জানান কুলাউড়া থানার ওসি শামীম মোছা।

নিহতের নাম নাছিমা আক্তার (২৮)। আহতরা হলেন তার মা মোনাজান বেগম ও বোন মনি আক্তার। নাছিমার স্বামী রফিক মিয়া (৩৫) ঘটনার পর থেকে পলাতক।

ওসি বলেন, “রফিক মিয়া পারিবারিক কলহের জের ধরে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে তার স্ত্রীকে হত্যা করে। এ সময় তার দায়ের কোপে গুরুতর আহত হন তার শাশুড়ি ও শ্যালিকা।”

ব্রাহ্মণ বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মমদুদ আহমদ জানান,  আহত দুজনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ খবর পেয়ে গিয়ে রফিককে পায়নি জানিয়ে ওসি বলেন, তাকে ধরতে অভিযান চলছে।

 

মৌলভীবাজারে বিদ্যুস্পৃষ্টে ২ নির্মাণ শ্রমিক নিহত

মৌলভীবাজারে নির্মাণাধীন ভবনে কাজ করার সময় বিদ্যুস্পৃষ্ট হয়ে দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। কুলাউড়া থানার ওসি শামীম মোছা জানান, শমশেরনগরের সবুজবাগ এলাকায় সোমবার সকাল ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন – কুলাউড়া উপজেলার জয়চণ্ডী ইউনিয়নের পাঁচপীর জালাই গ্রামের মকবুল আলীর ছেলে সোয়াইব আলী (২২) ও আব্দুল মন্নানের ছেলে মিছির আলী (১৫)।

তারা ওই এলাকায় দুবাই প্রবাসী নজরুল হকের নির্মাণাধীণ চারতালা ভবনের বাইরের দেয়ালে পলেস্তারা করার জন্য কাঁচা বাঁশ দিয়ে মাচা বানাচ্ছিলেন।

স্থানীয়রা বলছে, বাঁশগুলো কাঁচা থাকায় বিদ্যুতের তারে লেগে প্রথমে এক শ্রমিক আটকা পড়েন। তাকে বাঁচাতে গিয়ে অন্যজনও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এ সময় অন্যরা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তবে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই তাদের মৃত্যু বলে সিভিল সার্জন সত্যকাম চক্রবর্তী জানিয়েছেন।

বাড়ির মালিক নজরুল হকের বড় ভাই আজিজুল হক বলেন, শ্রমিকদের অসাবধানতাবশত এ দুর্ঘটনা ঘটে। তার পরও নিহতদের পরিবারকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবেন তারা।

ওসি শামীম মোছা এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছ্নে।

 

সিলেটে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটের গোয়াইনঘাটে গলায় ফাঁস দিয়ে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। নিহত ছাত্রী উপজেলার তোয়াকুল ইউনিয়নের শাহপুর গ্রামের সুরুজ আলীর মেয়ে জাকিয়া জাহান (১৬) ও গোয়াইনঘাট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নিহত জাকিয়া উপজেলা সদরে তার খালার বাসায় থেকে লেখা পড়া করে আসছিল। শিক্ষক দম্পতি খালা ও খালুর অবর্তমানে  বুধবার দুপুরে বসত ঘরের তীরের সাথে গলায় ফাঁস লাগিয়ে জাকিয়া আত্মহত্যা করে।

খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশের প্রাথমিক সুরতাহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।
এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সিলেটে অটোরিকশার ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

সিলেটে সিএনজি চালিত অটোরিকশার ধাক্কায় হাবিবুর রহমান (৫৫) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (০৬ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে সিলেট সদর উপজেলার নাজিরবাজার-চিন্তামইন সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত হাবিবুর রহমানের বাড়ি সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার পুরানবাজার এলাকায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাতে মোটরসাইকেলে করে নাজিরবাজার থেকে ওসমানীনগরের খাইগদর গ্রামে শ্বশুর বাড়িতে যাচ্ছিলেন হাবিবুর। পথে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি আটোরিকশা মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই হাবিবুর মারা যান। এসময় আহত হন মোটরসাইকেলে থাকা আরো একজন।

ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল্লাহ  জানান, খবর পেয়ে পুলিশ হতাহতদের উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। দুর্ঘটনার পর অটোরিকশা ফেলে চালক পালিয়ে গেছে।

হবিগঞ্জে শিশু ধর্ষণ মামলায় লম্পটের যাবজ্জীবন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে শিশু ধর্ষণের মামলায় এক লম্পটের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। একই সাথে তাকে ১ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ড দেন। গত মঙ্গলবার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মাফরোজা পারভীন এ রায় দেন।

জানা যায়, ২০১৫ সালের ৯ সেপ্টেম্বর রাতে ওই উপজেলার রাঙ্গাহাটি গ্রামের বাসিন্দা সোনাহর মিয়ার ৯ বছর বয়সী মেয়ে অন্য বাড়িতে শিক্ষকের কাছে পড়তে যায়। রাত ৮টায় পড়া শেষে ফেরার পথে একই গ্রামের লেদু মিয়ার ছেলে লম্পট সয়ফুল মিয়া তাকে জোরপূর্বক ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা সোনাহর মিয়া বাদী হয়ে বানিয়াচং থানায় পরদিন মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৬ জন সাক্ষির সাক্ষ্যগ্রহণ ও ধর্ষিতার জবানবন্দি নেয়া হয়। পরে যুক্তিতর্ক শেষে আদালত উল্লেখিত রায় দেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন স্পেশাল পিপি আবুল হাশেম মোল্লা মাসুম।

এই বিভাগের আরো খবর

জাফলংয়ে পিয়াইন নদীতে নিখোঁজ তরুণের লাশ উদ্ধার

সিলেটের জাফলংয়ের পিয়াইন নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ তরুণের লাশ একদিন পর উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার সকালে জাফলং জিরো পয়েন্ট থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয় বলে গোয়াইনঘাট থানার ওসি (তদন্ত) হিল্লোল রায় জানান।

নিহত ফয়সল হোসেন সৌরভ (১৮) চট্রগ্রামের ভাঙ্গাপুর এলাকার সিরাজুল মাওলার ছেলে। চট্রগ্রাম সিটি কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন তিনি।

ওসি হিল্লোল বলেন,“মঙ্গলবার দুপুরে পিয়াইন নদীতে গোসল করতে নেমে তলিয়ে যান সৌরভ। এরপর বিকাল থেকে তার খোঁজে তল্লাশি অভিযান শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কর্মীরা। সকালে তার লাশ পাওয়া যায়।”

এর আগে মঙ্গলবার কামাল পিয়াইন নদীতে ডুবে শেখ নামে ১৭ বছর বয়সী এক কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়। বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

হবিগঞ্জে হত্যার দায়ে ৮ জনের প্রাণদণ্ড

হবিগঞ্জের মাধবপুরের টিপু সুলতান হত্যা মামলায় আট জনের ফাঁসি ও ১১ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় দিয়েছে আদালত। বুধবার হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মাফরোজা পারভীন ছয় বছর আগের এ মামলার রায় ঘোষণা করেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সুধাংশু সূত্রধর, সুভাষ সূত্রধর, এরশাদ আলী, আব্দুল মালেক ওরফে মালু, আতাউর রহমান, আবুল কাশেম, আবু লাল ও মোশারফ হোসেন। এর মধ্যে সুধাংশু, সুভাষ ও আব্দুল মালেক আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

যাবজ্জীবনপ্রপ্তরা হলেন- হরমুজ আলী, মোস্তাক আহমেদ, জানু মিয়া, শানু মিয়া, জাবেদ মিয়া, জহির মিয়া, বকুল মিয়া, আমির আলী, দুলাল মিয়া, সায়েদ মিয়া ও কামাল মিয়া।

এদের মধ্যে আদালতে কেবল সায়েদ মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় শাহ আব্দুল গণি, আবু মিয়া ও আব্দুল মজিদকে এ মামলা থেকে খালাস দেওয়া হয়েছে। আদালতে উপস্থিত ছিলেন শাহ নুরুল গণি।

মামলার বিবরণে বলা হয়, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি মহসিন মাস্টারের ছেলে টিপু সুলতানের ঘরে ঢুকে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে কুপিয়ে হত্যা করে।  

দুইদিন পর ৯ জানুয়ারি টিপুর স্ত্রী হাসিনা আক্তার বেবী মাধবপুর থানায় ২৪ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে ২০১৩ সালের ৩ নভেম্বর সিআইডির পরিদর্শক কামরুজ্জামান ২২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন।  

 

এই বিভাগের আরো খবর

সিলেটে বিলুপ্তির পথে সুস্বাদু রানি মাছ

সিলেট প্রতিনিধি : যে মাছ দেখলেই লোভ লাগে। জিভে জল এসে যায়। খেতে ইচ্ছে করে। তাই হয়তো সুদৃশ্য, দৃষ্টিনন্দন এ মাছের নাম রাখা হয়েছিল রানি মাছ। আগে মাছের বাজারে গেলেই দেখা মিলত রানি মাছের। এখন আর তেমন চোখে পড়ে না। হঠাৎ দেখা মিললেও তা যৎসামান্য। সিলেটের জলাশয় থেকে হারিয়ে যাচ্ছে সুস্বাদু এ ‘রানি মাছ’। দৃষ্টিনন্দন এ মাছ এক সময় সারা বছরই সিলেটের নদী, খাল-বিল ও হাওর-বাওরে পাওয়া যেত। কিন্তু এখন নেই বললেই চলে।

সিলেটের মৎস্যভান্ডার হিসেবে পরিচিত জলাশয়গুলোতে অপরিকল্পিতভাবে মৎস্য আহরণের ফলে এ মাছ এখন বিলুপ্তির পথে। রানি মাছের বৈজ্ঞানিক নাম ‘বটির ডারিও। সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলে এ মাছকে বেতি মাdeshছ, বৌ মাছ, পুতুল মাছ, বেতাঙ্গি মাছ, বেতরঙ্গি মাছ, বুকতিয়া মাছ ইত্যাদি নামে ডাকা হয়। হলুদের মধ্যে কালো ডোরা কাটা এ মাছ ৪ থেকে ১২ সেন্টিমিটার লম্বা হয়ে থাকে। তবে পরিবেশের ভিন্নতার কারণে মাছের আকার, রং ও স্বাদের পরিবর্তন হয়ে থাকে। ‘রানি মাছ’ সাধারণত কর্দমাক্ত পানিতে থাকতে বেশি পছন্দ করে।

সিলেটের নদ-নদী হাওরে আগে এ মাছ প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যেত। নদী কিংবা বিলে বাঁশের চোঙা ফেলে রাখা হত। পরদিন এ চোঙা তুলে রানি মাছ পাওয়া যেত। জেলেদের জালেও এ মাছ ধরা পড়ত। কিন্তু এখন জালেও এ মাছ ধরা পড়ে না। সেচ করেও খুব একটা পাওয়া যায় না। একাধিক মৎস্য ব্যবসায়ী জানান, রানি মাছের কদর খুব বেশি। কিন্তু মাছটি এখন পাওয়াই যায় না। আগে মাছের ফাঁদে অন্য জাতের সঙ্গে রানি মাছও পাওয়া যেত। মানুষজন শখ করে এ মাছ কিনত। কিন্তু এখন শখ আছে মাছটি নেই। লোকজন খোঁজাখুঁজি করে। কিন্তু আমরা মাছটি দিতে পারি না। পানিতে থাকলে তো এ মাছ ধরা পড়ত। পানি থেকে হারিয়ে যাচ্ছে এ মাছ।

শেরপুরের মৎস্য আড়তদার খালেদ আহমদ বলেন, এক সময় সিলেটের সুরমা ও কুশিয়ারা নদীতে সারা বছরই ‘রানি মাছ’ ধরা পড়ত। তবে বর্ষা মৌসুমে বেশি পরিমাণে এ মাছ পাওয়া যেত। জেলেরা বিভিন্ন জাতের জাল ও চাঁই দিয়ে এ মাছ ধরতেন। নদীতে এখন আগের মতো রানি মাছ পাওয়া যায় না। শুষ্ক মৌসুমে এ মাছের দেখাই মেলে না। বর্ষাকালে মাঝে মধ্যে খুব অল্প পরিমাণে এ মাছ ধরা পড়ে।

স্কুলশিক্ষক ও মাছ ক্রেতা ছয়ফুল আলম পারুল বলেন, ছোটবেলায় অনেক রানি মাছ খেয়েছি। এখন বর্ষাকাল ছাড়া এ মাছ মেলে না। বাজারে সুস্বাদু এ মাছের সরবরাহ কম থাকায় দামও বেশি। প্রতি কেজি রানি মাছ কিনতে হলে এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকায় প্রয়োজন। তাই এখন আর রানি মাছ খাওয়া সবার পক্ষে সম্ভব হয় না।

পর্যটকদের জন্য আবারও উন্মুক্ত মাধবকুন্ড জলপ্রপাত

সিলেট প্রতিনিধি : প্রায় দুইমাস পর  মৌলভীবাজারের বড়লেখায়  দেশের অন্যতম পর্যটন  কেন্দ্র মাধবকুন্ড জলপ্রপাতের  গেট খুলে  দেয়া হয়েছে। বন বিভাগ জরুরি ভিত্তিতে মাধবকুন্ড ইকোপার্ক এলাকা সংস্কারের পর তা ঝুঁকিমুক্ত হয়। ফলে গত রোববার সকালে জলপ্রপাতে প্রবেশের প্রধান ফটক পর্যটকদের জন্য খুলে দেয়া হয়। এদিকে দীর্ঘদিন পর জলপ্রপাতের প্রধান ফটক খুলে  দেয়ায় পর্যটক, স্থানীয় ব্যবসায়ী ও ইজারাদারদের মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।

রোববার বন বিভাগের বড়লেখা রেঞ্জের সহযোগী  রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, রোববার সকাল ১০টার দিকে জলপ্রপাতের  গেটটি খুলে দেওয়া হয়েছে। আপাতত ইকোপার্ক পর্যটকদের জন্য ঝুঁকিমুক্ত। এখন  থেকে পর্যটকরা  ভেতরে প্রবেশ করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, ভারী বর্ষণে ও পাহাড়ি ঢলে মাধবকুন্ড ইকোপার্ক এলাকার টিলা ও রাস্তা  দেবে গিয়েছিল এতে পর্যটকদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে ওঠে। ফলে দুর্ঘটনা এড়াতে বন বিভাগ গত ২২ জুন থেকে মাধবকুন্ড ইকোপার্ক ও জলপ্রপাত এলাকা পর্যটকদের জন্য অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে। বন্ধের বিষয়টি না জেনে অনেক দূর-দূরান্ত  থেকে বেড়াতে এসে জলপ্রপাতের প্রধান ফটক থেকে হতাশ হয়ে ফিরেছেন পর্যটকরা। এতে  লোকসানের মুখে পড়েন স্থানীয় ব্যবসায়ী ও ইজারাদাররা।

এই বিভাগের আরো খবর

হবিগঞ্জে শিশু ধর্ষণ মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে এক শিশুকে ধর্ষণ মামলায় ২ জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। একই সাথে তাদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়। সোমবার হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মাফরোজা পারভীন এ রায় দেন। দন্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছে- বানিয়াচং উপজেলা সদরের প্রথমরেখ গ্রামের ওয়াব উল্লাহর ছেলে জসিম মিয়া (২২) ও আব্দুল আলীর ছেলে নূরুল আমিন (২১)। মামলার অপর আসামি কারবারী উল্লাহর মেয়ে রুহেনা বেগম (২৭)কে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের গৌরমনি সরকারের ১৪ বছর বয়সী মেয়ে ২০১৫ সালের মার্চ মাসে প্রথমরেখ গ্রামে বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়। ৪ এপ্রিল সন্ধ্যা রাতে জসিম ও নূরুল আমিন তাকে ধরে নিয়ে যায়। তাকে রুহেনা বেগমের ঘরে নিয়ে মুখে গামছা বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে সে চিৎকার শুরু করলে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা তাকে গিয়ে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় তার ভগ্নিপতি গোপেন্দ্র সরকার বাদী হয়ে উল্লেখিত ৩ জনকে আসামি করে বানিয়াচং থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে আদালত সোমবার উল্লেখিত রায় দেন। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর সালেহ উদ্দিন আহমেদ জানান, এর মাধ্যমে অপরাধ প্রবণতা হ্রাস পাবে। দোষিদের শাস্তি হলে অন্য কেউ একই ধরনের অপরাধ করতে ভয় পাবে।

এই বিভাগের আরো খবর

সিলেটে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেট নগরীর কুমারপাড়ার ঝর্ণারপাড় এলাকায়  রোববার ভোররাতে নিজ কক্ষ থেকে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত যুবক রাজন মিয়া (৩০) ওসমানী শিশু উদ্যানে চাকরি করতেন। তিনি ঝর্ণারপাড়ের ৯৩/এ নম্বর বাসার বাসিন্দা।

জানা যায়, যুবক রাজন মিয়া শয়ন কক্ষে তার স্ত্রী ভোর ৫টায় ঝুলন্ত অবস্থায় তার স্বামীর মৃতদেহ দেখতে পান। পরে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় তার স্ত্রী রাণী বেগম একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছেন

সিলেট এসএমপি’র কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে তিনি আত্মহত্যা করেছেন কিনা আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখব।

এই বিভাগের আরো খবর

হবিগঞ্জে ট্রাক্টরের ধাক্কায় পুলিশ কনস্টেবল নিহত

হবিগঞ্জ সদরে ট্রাক্টরের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী এক পুলিশ কনস্টেবল নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বৈদ্যার বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ইমরান আহমেদ (২৫) হবিগঞ্জ সার্কেল অফিসে কর্মরত ছিলেন। তিনি সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার রানাদির গ্রামের বাসিন্দা।

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি ইয়াছিনুল হক জানান, কনস্টেবল ইমরান হবিগঞ্জ থেকে মোটরসাইকেলে গ্রামের বাড়ি সিলেটে যাচ্ছিলেন।

“বৈদ্যারবাজারে ঈদগাঁহ-এর কাছে রাবিশ বহনকারী একটি ট্রাক্টর তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দিলে তিনি রাস্তায় ছিটকে পড়েন। ওই সময় মোটরসাইকেলে আগুন ধরে যায়।”

ওসি জানান, স্থানীয় লোকজন কনস্টেবল ইমরানকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে ঘটনার পর স্থানীয় জনতা ট্রাক্টরটি আটক করলেও গাড়ি চালক পালিয়ে গেছে বলে তিনি জানান।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কুলাউড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার ভাটেরা কৃষ্ণপুর এলাকায় অটো রিকশা ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন।

সোমবার বিকালের এই দুর্ঘটনায় আরও তিনজন আহত হন বলে  জানিয়েছেন কুলাউড়া থানার ওসি মো. শামিম মোছা।

তিনি বলেন, “অটো রিকশা ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন গুরুতর আহত হন। তাদের  মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে নেওয়া হয়। দুজনের অবস্থার অবনতি হলে তাদের সিলেট পাঠানো হয়। সেখানে রাতে তাদের মৃত্যু হয়।”

নিহতরা হলেন বরমচাল এলাকার উত্তরভাগের দরচ ওময়ার ছেলে ময়না মিয়া (৫৮) এবং সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার নাছির মিয়ার স্ত্রী তছলিমা  বেগম (৪৮)।

আহতরা হলেন- গোলপগঞ্জের ভাদেশ্বর এলাকার মৃত খলিলুর রহমানের ছেলে মোবারক আলী (৭০), ভাটেরার ইসলাম নগরের রেদওয়ানুল হকের স্ত্রী তানজিনা (৪০) ও সিএনজি চালক হোসেন (৩০)।

 

এই বিভাগের আরো খবর

সিলেটে ছাত্রলীগের স্মরণ সভায় গুলিবিদ্ধ ৩

সিলেটে এক ছাত্রলীগ নেতার স্মরণ সভায় যুবলীগের দুই পক্ষের বাক-বিতণ্ডা থেকে গুলিতে তিনজন আহত হয়েছেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ ও সিলেট মহানগর সভাপতি বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের উপস্থিতিতে শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে দক্ষিণ সুরামার কুশিঘাটের একটি মাঠে সভায় এ ঘটনা ঘটে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

গুলিবিদ্ধ ছাত্রলীগ নেতা জাকির আহমদ খোকা, জামিল আহমদ, সুহেল আহমদকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মোগলাবাজার থানার ওসি খায়রুল ফজল বলেন, গত মার্চে শিববাড়ির আতিয়া মহলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জঙ্গিবিরোধী অভিযান চলাকালে পাশে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ছাত্রলীগ নেতা জান্নাতুল ফাহিমের স্মরণে রাত সাড়ে ৭টার দিকে সভা শুরু হয়।

“সভা চলাকালে যুবলীগের দুই পক্ষ বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এরপরে যুবলীগ নেতাকর্মীদের ছোড়া গুলিতে ওই তিনজন আহত হয়।”

এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত মহানগর যুবলীগ নেতা ও স্থানীয় বাসিন্দা জাকিরুল আলম জাকির বলেন, “দুইপক্ষের মধ্যে ঝামেলা হয়েছে বলে শুনেছি। তবে কারা গুলি করেছে, তা জানি না।”

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার জেদান আল মুসা বলেন, “যুবলীগের নিজেদের মধ্যে বিরোধ থেকে এই ঘটনা ঘটেছে বলে শুনেছি।”

 

এই বিভাগের আরো খবর

শাহজালালে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে চারজন আহত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজের অনুসারীদের মধ্যে শনিবার সন্ধ্যা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কয়েক দফা সংঘর্ষ হয় বলে সহকারী প্রক্টর আবু হেনা পহিল  জানান।

আহতরা হলেন- ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম অন্তু, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হোসেন নাইম, ছাত্রলীগ কর্মী আব্দুউল্লাহ আল মাসুদ ও সীমান্ত।

ওই চারজনই সাধারণ সম্পাদক ইমরান খানের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বর এলাকায় ধূমপান করা নিয়ে ইমরান গ্রুপের অনুসারী সাজ্জাদ ও তন্ময়ের সঙ্গে সবুজ গ্রুপের অনুসারী মনিরুজ্জামান মনির বাকবিতণ্ডা হয়।

একপর্যায়ে মনিরের সঙ্গে থাকা কর্মীরা তন্ময়কে মারধর করলে উভয়পক্ষ সংঘবদ্ধ হয়ে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায়।

এসময় সবুজের অনুসারীরা শাহপরাণ হলে গিয়ে ইমরানের গ্রুপের নিয়ন্ত্রণে থাকা কয়েকটি কক্ষ ও দুটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদুল ইসলাম সবুজ বলেন, “জুনিয়রদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণে একটু ঝামেলা হয়েছে। পরে সিনিয়রদের হস্তক্ষেপে বিষয়টি মিটমাট হয়েছে।”

আর সাধারণ সম্পাদক ইমরান খান বলেন, “এটা জুনিয়রদের অর্ন্তকোন্দল। সমাধান হয়ে গেছে।” প্রক্টর জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, “আহতদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আমরা বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছি।”

গত ৮ এপ্রিল শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বেড়াতে গিয়ে দুই তরুণ-তরুণী ছাত্রলীগ কর্মীদের মারধরের শিকার হন। এর প্রতিবাদ করায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জীবন চক্রবর্তী পার্থের অনুসারীরা দুই সাংবাদিকের ওপরও হামলা করেন।

ওই ঘটনার পর গত ১২ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কমিটি কেন্দ্র থেকে স্থগিত করা হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর



Go Top