সকাল ৮:০৭, বুধবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং
/ খেলাধুলা

সর্বশেষ দুইবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ কোরিয়ার দশম এশিয়া কাপ হকি শুরু হয়েছিল ওমানকে ৭-২ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। তবে চ্যাম্পিয়নের মতো শুরু করলেও দ্বিতীয় ম্যাচেই কোরিয়ানরা হেরে বসে মালয়েশিয়ার কাছে। যে হারটি চ্যাম্পিয়নদের সুপার ফোর নিশ্চিত করতে অপেক্ষা করতে হয়েছে গ্রুপ পর্বের শেষ বাঁশি পর্যন্ত।

সোমবার সন্ধ্যায় মাওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে চারবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ কোরিয়া ৪-১ গোলে চীনকে হারিয়ে শেষ দল হিসেবে নাম লেখায় সুপার ফোরে।

গ্রুপ পর্ব শেষ। একদিন বিরতি দিয়ে বুধবার শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় পর্ব। যেখানে দুই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ৪ দল খেলবে সুপার ফোরে এবং শেষ ৪ দল খেলবে পঞ্চম থেকে অষ্টম স্থান নির্ধারনী ম্যাচ।

সুপার ফোরের খেলা শুরু হবে মালয়েশিয়া-পাকিস্তানের ম্যাচ দিয়ে বুধবার বিকেল ৩ টায়। ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় ভারত খেলবে দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে। রাত ৮টায় স্থাননির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে জাপান-ওমান।

চোখ বুলানো যাক শেষ হওয়া গ্রুপ পর্বে। ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ভারত ও ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন মালয়েশিয়া আছে অপরাজিত। সব ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ ও ওমান। তিন ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ১৭ গোল খেয়েছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষের জালে সবচেয়ে কম গোলও (১টি) দিয়েছে স্বাগতিকরা। সবচেয়ে বেশি ১৬ গোল মালয়েশিয়ার, তারপর ভারত ১৫ গোল।

রাতে মাঠে নামবে রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদ

ফুটবল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
রিয়াল মাদ্রিদ-টটেনহাম
সরাসরি, রাত ১২.৪৫ মি.
সনি টেন ২
স্পার্টাক-সেভিয়া
সরাসরি, রাত ১২.৪৫ মি.
সনি ইএসপিএন
মারিবোর-লিভারপুল
সরাসরি, রাত ১২.৪৫ মি.
সনি টেন ১
ম্যানসিটি-নাপোলি
সরাসরি, রাত ১২.৪৫ মি.
সনি টেন ৩

কাবাডি

ইন্ডিয়ান প্রো কাবাডি লিগ
ব্যাঙ্গালুর-যোদ্ধা
সরাসরি, রাত ৮.২০ মি.
পুনেরি-হারিয়ানা
সরাসরি, রাত ৯.৩০ মি.
স্টার স্পোর্টস ২

র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে জার্মানি, দুইয়ে ব্রাজিল

ফিফা র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে নেইমারের ব্রাজিল। আর বাছাইপর্বে দারুণ পারফরম্যান্সের পুরস্কার স্বরূপ প্রথমবারের মত শীর্ষ দশে জায়গা করে নিয়েছে পেরু।

এবারের ফিফা র‌্যাংকিংয়ে প্রভাব পড়েছে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচগুলোর। ইউরোপ অঞ্চলে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়ে রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করেছে জার্মানি। ফিফা র‌্যাংকিংয়েও এক নম্বর স্থানটা আছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের দখলেই।

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে দাপট ছিলো ব্রাজিলের। র‌্যাংকিংয়ের দুই নম্বর স্থানটা সেলেসাওদের দখলেই আছে। রোনালদোর পর্তুগাল আছে তিন নম্বর স্থানে।

এবার রাশিয়া বিশ্বকাপে খেলা অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিলো আর্জেন্টিনার। তবে শেষ পর্যন্ত শেষ ম্যাচে এসে কপাল খুলেছে মেসিদের। আলবিসেলেস্তেদের অবস্থান র‌্যাংকিংয়ের চারে। পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে আছে যথাক্রমে বেলজিয়াম, পোল্যান্ড ও ফ্রান্স। তিন ধাপ এগিয়ে আট নম্বরে আছে স্পেন

বিশ্বকাপের টিকিট না কাটতে পারলেও দুই ধাপ উন্নতি হয়ে চিলি আছে নবম স্থানে। এছাড়া নিজেদের ফুটবল ইতিহাসে প্রথমবারের মত দশ নম্বর স্থানে জায়গা করে নিয়েছে পেরু।

মোস্তাফিজের পরিবর্তে শফিউল

অনুশীলনের সময় চোট পাওয়ায় মোস্তাফিজ প্রোটিয়াদের বিপক্ষে আর ওয়ানডে সিরিজ খেলতে পারছেন না। আর তার পরিবর্তে দলে ডাক পেয়েছেন টেস্ট সিরিজ খেলে দেশে ফিরে যাওয়া পেসার শফিউল ইসলাম।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে প্রথম টেস্ট খেলার পর কাঁধের ইনজুরিতে দ্বিতীয় টেস্ট খেলা হয়নি শফিউলের। আর ওয়ানডে দলে না থাকায় দেশে ফিরে আসেন এই পেসার। তবে প্রথম ওয়ানডের আগে অনুশীলনে পা মচকে যাওয়ায় ওয়ানডে সিরিজ আর খেলা হচ্ছে না মোস্তাফিজের। এবার বাঁহাতি এই পেসারের পরিবর্তে দলে যোগ দিচ্ছেন শফিউল ইসলাম

এদিকে দেরি করে দ্বিতীয় ওয়ানডের ভেনু কেপ টাউনে পৌঁছানোয় সোমবার মুস্তাফিজের স্ক্যান করানো সম্ভব হয়নি। এ নিয়ে ম্যানেজার মিনহাজুল আবেদীন জানান, মঙ্গলবার ডাক্তারের অ্যাপয়েনমেন্ট নেওয়া হবে। এরপর মোস্তাফিজের স্ক্যান করানো হবে। আর ওর জায়গায় শফিউল দলে যোগ দিচ্ছে।

ঊরুর পেশির চোট থেকে পুরোপুরি সেরে না উঠায় দ্বিতীয় টেস্ট ও প্রথম ওয়ানডেতে খেলতে না পারা তামিম দ্বিতীয় ওয়ানডে খেলবেন বলেও জানান মিনহাজুল আবেদিন।

বাবরের সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও পাকিস্তানের জয়

দ্বিতীয় ম্যাচেও সেঞ্চুরির দেখা পেলেন পাকিস্তানের তারকা ব্যাটসম্যান বাবর আজম। তার দুর্দান্ত সেঞ্চুরির উপর ভর করেই দ্বিতীয় ওয়ানডেতেও জয় তুলে নিল পাকিস্তান। আর এতে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-০ তে এগিয়ে গেল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ীরা।

আবু ধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন সরফরাজ আহমেদ। ৪০ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়া পাকিস্তান ১০০ রানে পৌঁছতে না পৌঁছতেই ৬ উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে।

তবে সপ্তম উইকেটে শাদাব খানকে সঙ্গে নিয়ে ১০৯ রানের জুটি গড়েন বাবর আজম। তুলে নেন ব্যাক-টু-ব্যাক সেঞ্চুরি। আউট হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১০১ রান। আর শাদাব খান ৫২ রানে অপরাজিত থাকলে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে ২১৯ রানের সম্মানজনক পুঁজি পায় পাকিস্তান।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই নিরুশান ডিকওয়ালাকে ফেরান জুনায়েদ খান। এরপর শুরু হয় ব্যাটসম্যানেদের আসা যাওয়া। স্কোর বোর্ডে ৯৩ রান তুলতে ৭ উইকেট হারিয়ে ভেঙে পড়ে লঙ্কানদের টপ অর্ডার। তবে এক প্রান্ত ধরে রেখে সেঞ্চুরি তুলে নেন উপুল থারাঙ্গা।

অষ্টম উইকেটে ভেনডারসীকে সঙ্গে নিয়ে ৭৬ রানের জুটি গড়ে লঙ্কানদের জয়ে স্বপ্ন দেখান থারাঙ্গা। কিন্তু রাইসের বলে ২২ রান করা ভেনডারসী আউট হয়ে গেলে পরাজয়ের হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়ে শ্রীলঙ্কা।



অন্যান্য খেলা

সর্বশেষ দুইবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ কোরিয়ার দশম এশিয়া কাপ হকি শুরু হয়েছিল ওমানকে ৭-২ গোলে উড়িয়ে দিয়ে। তবে চ্যাম্পিয়নের মতো শুরু করলেও দ্বিতীয় ম্যাচেই কোরিয়ানরা হেরে বসে মালয়েশিয়ার কাছে। যে হারটি চ্যাম্পিয়নদের সুপার ফোর নিশ্চিত করতে অপেক্ষা করতে হয়েছে গ্রুপ পর্বের শেষ বাঁশি পর্যন্ত।

সোমবার সন্ধ্যায় মাওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে চারবারের চ্যাম্পিয়ন দক্ষিণ কোরিয়া ৪-১ গোলে চীনকে হারিয়ে শেষ দল হিসেবে নাম লেখায় সুপার ফোরে।

গ্রুপ পর্ব শেষ। একদিন বিরতি দিয়ে বুধবার শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় পর্ব। যেখানে দুই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ৪ দল খেলবে সুপার ফোরে এবং শেষ ৪ দল খেলবে পঞ্চম থেকে অষ্টম স্থান নির্ধারনী ম্যাচ।

সুপার ফোরের খেলা শুরু হবে মালয়েশিয়া-পাকিস্তানের ম্যাচ দিয়ে বুধবার বিকেল ৩ টায়। ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় ভারত খেলবে দক্ষিণ কোরিয়ার বিরুদ্ধে। রাত ৮টায় স্থাননির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হবে জাপান-ওমান।

চোখ বুলানো যাক শেষ হওয়া গ্রুপ পর্বে। ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ভারত ও ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন মালয়েশিয়া আছে অপরাজিত। সব ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ ও ওমান। তিন ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ১৭ গোল খেয়েছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষের জালে সবচেয়ে কম গোলও (১টি) দিয়েছে স্বাগতিকরা। সবচেয়ে বেশি ১৬ গোল মালয়েশিয়ার, তারপর ভারত ১৫ গোল।

নেপালে প্রথম জুরখানে কুস্তি চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ রানার্স আপ

নেপালের রাজধানী কাঠমন্ডুতে ১৩ ও ১৪ অক্টোবর দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো প্রথম জুরখানে কুস্তি পালোয়ানি চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৭। সাফ রিজিওনাল এ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশ দল ২টি স্বর্ণসহ মোট ৯টি পদক জিতে রানার্স আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আফগানিস্তান, তৃতীয় হয়েছে স্বাগতিক নেপাল এবং ৪র্থ হয়েছে শ্রীলঙ্কা।

প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ দলের শরৎ চন্দ্র ব্যক্তিগত কাবাডে ইভেন্টে আট দেশের খেলোয়াড়কে হারিয়ে স্বর্ণ পদক জয় করেন। প্রথম হওয়ার জন্য তিনি প্রাইজমানি পান ১০০ ডলার। ব্যক্তিগত ইভেন্টে মাইনাস ৭০ কেজি ওজন শেণিতে পাঁচ দেশের খেলোয়াড়কে হারিয়ে স্বর্ণ জয় করেন সিরাজুল ইসলাম। তিনিও প্রাইজমানি পান ১০০ ডলার।

এদিকে, দলীয় ডিসপ্লে ইভেন্টে আফগানিস্তানের কাছে পরাজিত হওয়ার ফলে রৌপ্য পায় বাংলাদেশ। দলীয়ভাবে ২০০ ডলার প্রাইজমানি পায় বাংলাদেশের কুস্তিগিররা। কুস্তি ইভেন্টে মাইনাস ৬০ কেজি ওজন শ্রেণিতে ভারতকে হারিয়ে এবং আফগানিস্তানের কাছে হেরে রৌপ্য পদক পায় রঞ্জু আহমেদ। কুস্তিতে মাইনাস ৯০ কেজি ওজন শ্রেণিতে ব্রোঞ্জ পদক পান মিজানুর রহমান।

জুরখানে ডিসিপ্লিনে বাংলাদেশের সিরাজুল ইসলাম ও রঞ্জু আহমেদ দুজনই পান রৌপ্য পদক। এছাড়া, হেভী মিলবাজি ইভেন্টে ব্রোঞ্জ পদক পায় মগনু মারমা। মিলবাজি ইভেন্টে ব্রোঞ্জ পান দিপু চন্দ্র। ট্রফি ও মেডেলের পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন দল প্রাইজমানি হিসেবে পায় ৪০০ ডলার, রানার্স আপ ২০০ ডলার এবং তৃতীয় স্থান অধিকারী পায় ১০০ ডলার।

উল্লেখ্য, প্রথম জুরখানে কুস্তি পালোয়ানি চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশসহ স্বাগতিক নেপাল, পাকিস্তান, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান, মালদ্বীপ ও ভারত অংশগ্রহণ করে। চ্যাম্পিয়নশিপে কোচসহ মোট ৯ সদস্যের বাংলাদেশ দল অংশগ্রহণ করেছিল।

প্রথম বিভাগ কাবাডিতে সানশাইন স্পোর্টিং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন

বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় এবং এ্যাডটাচ স্পোর্টস এন্ড লাইভ ইভেন্ট এর পৃষ্ঠপোষকতায় প্রথম বিভাগ কাবাডি লিগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সানশাইন স্পোর্টিং ক্লাব।

আজ রোববার ফাইনালে সানশাইন স্পোটিং ক্লাব ৪৭-৪৫ পয়েন্টে স্টার স্পোর্টিং ক্লাবকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

চ্যাম্পিয়ন দল ৩০ হাজার,  রানার্স আপ দল ২০ হাজার টাকা এবং সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেওয়া ২টি দলকে ১০ হাজার টাকা করে প্রাইজমানি দেওয়া হয় ।

প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ী ও বিজিত দলের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন একেএম শহীদুল হক, বিপিএম, পিপিএম, ইন্সপেক্টর জেনারেল ও বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সভাপতি । অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং সভাপতিত্ব করেন টুর্নামেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান ও উপ-পুলিশ কমিশনার, আইএডি মো. আলমগীর কবীর ।

বাংলাদেশ কাবাডি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার) পিপিএম, অতিরিক্ত ডিআইজি (সংস্থাপন) বাংলাদেশ পুলিশ উপস্থিত প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার ক্রীড়া সাংবাদিক ও উপস্থিত ক্রীড়ামোদি দর্শকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন।

বর্ষসেরা অ্যাথলেটের তালিকায় নেই বোল্ট

আটবারের অলিম্পিক স্বর্ণপদকজয়ী, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ১১টি স্বর্ণজয়ী, এখনও ১০০ এবং ২০০ মিটার স্প্রিন্টের বিশ্বরেকর্ডের মালিক উসাইন বোল্টের কি না নাম নেই বর্ষসেরা অ্যাথলেটের তালিকায়? শুনতে অবিশ্বাস্য ঠেকলেও এমনটাই হয়েছে। এর আগে ছয়বার জিতলেও এবার আইএএএফ বর্ষসেরা অ্যাথলেটের মনোনয়ন তালিকায় জায়গা পাননি জ্যামাইকান এই গতিতারকা।

২০১৭ সালের লন্ডন বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের পর স্প্রিন্টকে বিদায় বলেছেন বোল্ট। সারাজীবন প্রথম হওয়া এই গতিতারকা জীবনের শেষ স্প্রিন্টে হয়েছিলেন তৃতীয়! বর্ষসেরা অ্যাথলেটের তালিকায় জায়গা পাননি তার স্বদেশী স্প্রিন্ট তারকা জাস্টিন গ্যাটলিনও।

 

তবে অনুমিতভাবেই এই তালিকায় পুরুষ দৌড়বিদদের মধ্যে রয়েছেন ব্রিটেনের ১০ হাজার মিটার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন মো ফারাহ। জায়গা পেয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ৪০০ মিটারজয়ী দৌড়বিদ ওয়েড ফন নিকার্কও।

এশিয়ান ইনডোর দাবায় রাজীব পঞ্চম

এশিয়ান ইনডোর অ্যান্ড মার্শাল আর্টস গেমস দাবার এককে পঞ্চম হয়েছেন বাংলাদেশের গ্র্যান্ডমাস্টার এনামুল হোসেন রাজীব। তুর্কমেনিস্তানের আশগাবাদে চলমান গেমস দাবায় রাজীবসহ ৪ জন ৭ খেলায় ৫ পয়েন্ট করে নিয়ে ব্রোঞ্জ মেডেলের জন্য টাই করেন। টাইব্রেকিংয়ে ভারতের গ্র্যান্ডমাস্টার কৃষ্ণান শশীকিরণ তৃতীয় হয়ে ব্রোঞ্জ জিতেছেন। কিরগিজস্তানের গ্র্যান্ডমাস্টার মারকভ মিখাইল চতুর্থ, রাজীব পঞ্চম এবং ইরানের গ্র্যান্ডমাস্টার ইদানি পোয়া ষষ্ঠ হয়েছেন।

বাংলাদেশের আরেক গ্র্যান্ডমাস্টার মোল্লা আব্দুল্লাহ আল রাকিব ৪ পয়েন্ট নিয়ে হয়েছেন ১৭তম। মহিলা বিভাগে আন্তর্জাতিক মহিলা মাস্টার শামীমা আক্তার লিজা ৭ খেলায় ৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৪তম এবং মহিলা ফিদে মাস্টার শারমীন সুলতানা শিরিন ৩ পয়েন্ট নিয়ে ২৬তম হয়েছেন।

রোববার সপ্তম বা শেষ রাউন্ডে রাজীব ভিয়েতনামের গ্র্যান্ডমাস্টার দাও দিয়েন হাইকে পরাজিত করেন এবং রাকিব কাজাকস্তানের গ্র্যান্ডমাস্টার যুমায়েভ রিনাতের সাথে ড্র করেন। মহিলা বিভাগে লিজা ইন্দোনেশিয়ার মহিলা গ্র্যান্ডমাস্টার আওলিয়া মাদিনা ওয়ারদার কাছে ও শিরিন তুর্কমেনিস্তানের ফিদে মাস্টার হালায়েভা বাহারের কাছে হেরে যান।

ইউএস ওপেন নাদালের

বছরটায় আগুনে ফর্মে রয়েছেন রাফায়েল নাদাল। গত জুনে জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ওপেন।  এবার ২০১৩ সালের পর আরেকটি শূন্যতা পূরণ করলেন। জিতলেন বছরের দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্লাম। দক্ষিণ আফ্রিকার কেভিন অ্যান্ডারসনকে হারিয়ে ঘরে তুলেছেন এবার ইউএস ওপেনের শিরোপা।

 

বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের এক নম্বর তারকা বলেই জয়টা ছিল একপেশে। ৬-৩, ৬-৩, ৬-৪ গেমে হারিয়েছেন অ্যান্ডারসনকে।

এই জয় দিয়ে শিরোপার দিক দিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন এই স্প্যানিয়ার্ড। ১৯টি গ্র্যান্ড স্লাম নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন রজার ফেদেরার। ১৬টি নিয়ে পরেই রয়েছেন নাদাল। ১৪টি নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন পিট সাম্প্রাস।

বছরে যখন দুটি শিরোপা তুলেছেন তাই আবেগটা ভিন্নভাবেই প্রকাশ করলেন ৩১ বছর বয়সী তারকা, ‘এ বছরে যা হলো তা সত্যিই অবিশ্বাস্য।’বেশ কয়েক বছর ইনজুরিতে ভুগেছেন। যার প্রভাব পড়েছিল পারফরম্যান্সেও, ‘অনেক বছরই ইনজুরি, নানা ঝক্কি ঝামেলায় ভালো খেলতে পারিনি। তাই মৌসুমের শুরু থেকে আমি খুবই আবেগপ্রবণ ছিলাম।’

এই বিভাগের আরো খবর

নাদালের ‘সুইট সিক্সটিন’

কেভিন অ্যান্ডারসনের সামনে ছিল ইতিহাসের হাতছানি। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার এই টেনিস খেলোয়াড় গড়তে পারলেন না প্রতিদ্বন্দ্বিতাই। তাকে সরাসরি সেটে উড়িয়ে দিয়ে ইউএস ওপেন শিরোপা জিতেছেন স্প্যানিশ কিংবদন্তি রাফায়েল নাদাল।

নাম্বার ওয়ান নাদাল নিউ ইয়র্কের ফ্লাশিংমিডোতে রোববারের ফাইনালে ২ ঘণ্টা ২৭ মিনিটের লড়াইয়ে ম্যাচ জিতেছেন ৬-৩, ৬-৩, ৬-৪ গেমে।

৩১ বছর বয়সি নাদালের এটি তৃতীয় ইউএস ওপেন শিরোপা। আর ক্যারিয়ারের ১৬তম গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা। ১৯ গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা নিয়ে তার ওপরে আছেন কেবল সুইস কিংবদন্তি রজার ফেদেরার।

এই নিয়ে চতুর্থবার বছরের চারটি গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপাই ভাগ করে নিলেন নাদাল ও ফেদেরার। প্রথমবার এমনটা হয়েছিল ১১ বছর আগে, ২০০৬ সালে। অন্য দুবার ২০০৭ ও ২০১০ সালে।

২০১৩ সালের পর এই প্রথম একই বছরে দুটি গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা জিতলেন নাদাল। গত জুনে জিতেছিলেন ফ্রেঞ্চ ওপেন। এ বছরের অন্য দুটি গ্র্যান্ড স্লাম প্রতিযোগিতা অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ও উইম্বলডন জিতেছেন ফেদেরার।

অথচ চোট নাদালের ক্যারিয়ারটাই এক পর্যায়ে হুমকির মুখে ফেলে দিয়েছিল। সেখান থেকে কী দুর্দান্তভাবেই না ফিরেছেন। একের পর এক প্রত্যাবর্তনের গল্প লিখে চলেছেন। গত মাসে ২০১৪ সালের পর প্রথমবার উঠেছেন র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে।

এ বছরটাকে তাই তো ‘অবিশ্বাস্য’ বলছেন নাদাল, ‘অবশ্যই আমার জন্য বিশেষ দুটি সপ্তাহ কাটল। কয়েক বছর বিভিন্ন ঝামেলা, চোট, ভালো না খেলার পর এ বছরে যা কিছু হলো; এটা অবিশ্বাস্য। মৌসুমের শুরু থেকে এটা ছিল খুবই আবেগঘন।’

চাচা এবং দীর্ঘদিনের কোচ টনির পাশে নাদালের একসঙ্গে কাজ করা শেষ গ্র্যান্ড স্লাম ছিল এই ইউএস ওপেন। নাদালের এই নাদাল হয়ে ওঠার ক্ষেত্রে বড় অবদান তার চাচার। তাই তো চাচার প্রতি স্প্যানিশ তারকার বিনয়, ‘আমার জন্য তিনি যা কিছু করেছেন তার জন্য ধন্যবাদ যথেষ্ট নয়। সম্ভবত তাকে ছাড়া আমি টেনিসই খেলতে পারতাম না। এটা দারুণ যে তার মতো কেউ একজন ছিল, যিনি সব সময় আমাকে অনুপ্রাণিত করেছেন। অবশ্যই তিনি আমার জীবনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের একজন।’

অ্যান্ডারসন এবারই প্রথম কোনো গ্র্যান্ড স্লাম প্রতিযোগিতার ফাইনালে উঠেছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার কোনো টেনিস খেলোয়াড় গ্র্যান্ড স্লাম ট্রফি জিততে পারেনি। অ্যান্ডারসনের সামনে ছিল তাই ইতিহাস গড়ার হাতছানি। নাদালের সঙ্গে মুখোমুখি আগের চারবারের দেখায় প্রতিবারই তিনি হেরেছিলেন। হারলেন আরেকবার, বাধা হতে পারলেন না নাদালের ‘সুইট সিক্সটিন’-এর পথে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

স্টেফেন্সের ইউএস ওপেন জয়

ছয় সপ্তাহ আগেও র‌্যাংকিংয়ে ৯৫৭ নম্বরে ছিলেন স্লোন স্টেফেন্স। পায়ের চোট তাকে নামিয়ে দিয়েছিল অনেক নিচে। ১১ মাস পর ফিরেছিলেন উইম্বলডনে। প্রথম রাউন্ডেই নিয়েছিলেন বিদায়। কিন্তু দুই মাসে অনেক কিছু বদলে গেছে তার। ১৬ ম্যাচের ১৪টি জিতে অবাছাই এ আমেরিকান উঠলেন প্রথম কোনও গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে। জিতলেন ইউএস ওপেন শিরোপা।

আর্থার অ্যাশে স্টেডিয়ামে শনিবার গ্যালারি মুখরিত ছিল আমেরিকানদের উৎসাহ-উদ্দীপনায়। কারণ তারা নিশ্চিত ছিল তাদের ঘরেই থাকছে ইউএস ওপেন শিরোপা। প্রতিপক্ষ দুজনই যে আমেরিকার। স্টেফেন্সের মতো তার স্বদেশী ম্যাডিসন কিসেরও এটি প্রথম ফাইনাল। দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বও বেশ। কিন্তু খেলা শুরু হওয়ার পর পেশাদারিত্ব হয়ে উঠলো তাদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

২৪ বছর বয়সী স্টেফেন্স ১৫তম বাছাই কিসকে হারিয়েছেন ৬-৩, ৬-০ গেমে। উন্মুক্ত যুগে মেয়েদের এককে পঞ্চম অবাছাই হিসেবে কোনও গ্র্যান্ড স্লামে চ্যাম্পিয়ন হলেন র‌্যাংকিংয়ের ৮৩ নম্বরে থাকা এ তরুণী।

২০০২ সালে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে জেনিফার ক্যাপ্রিয়াতির পর উইলিয়ামস পরিবারের বাইরে প্রথম কোনও আমেরিকান মেয়ে গ্র্যান্ড স্লামে চ্যাম্পিয়ন হলো।

২.৮৪ মিলিয়ন পাউন্ড জয়ের পর বিশ্বাস-অবিশ্বাসের মাঝে দুলছিলেন স্টেফেন্স। তবে ছোটবেলার বন্ধুকে হারানোর পর উচ্ছ্বাসের লাগাম টেনে ধরেছেন তিনি, ‘জানুয়ারিতে অস্ত্রোপচার হয়েছিল আমার। তখন যদি কেউ বলতো আমি ইউএস ওপেন জিতব, সঙ্গে সঙ্গে বলতাম অসম্ভব। এ পথচলা দারুণ। আর এ প্রতিযোগিতায় ম্যাডিসন ছিল আমার অন্যতম সেরা বন্ধু। আমি তাকে বলেছিলাম ম্যাচটা যদি ড্র হতো।’

এই বিভাগের আরো খবর

চোট নিয়ে ক্যারিয়ার শেষ করলেন বোল্ট

মৌসুমটা তার নিজের ছিল না। যার প্রমাণ আগেই পাওয়া গিয়েছিল বিশ্ব অ্যাথলেটিকস চ্যাম্পিয়নশিপের ১০০ মিটারে। যদিও তাতে চোটে আক্রান্ত হওয়ার মতো কিছুই ছিল না। কিন্তু ৪x১০০ মিটার রিলেতে একেবারে চোট নিয়েই ক্যারিয়ার শেষ করতে হয়েছে জ্যামাইকান গতি দানবকে!

লন্ডন স্টেডিয়ামে সবার শেষে ব্যাটনটা হাতে ঠিকই দৌড় দিয়েছিলেন জ্যামাইকান গতিদানব। দৌড়ও শুরু করেছিলেন ক্ষিপ্র গতিতে। কিন্তু শুরুর কিছুক্ষণ পরই লাফিয়ে-খুঁড়িয়ে জানান দিলেন-হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছেন তিনি! শেষ পর্যন্ত দৌড় আর শেষ করা হয়নি তার। তার জায়গায় স্বর্ণ জিতে নেয় গ্রেট ব্রিটেন। ৩৭.৪৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে দৌড় শেষ করে তারা।  এরপরেই ৩৭.৫২ সেকেন্ড সময় নিয়ে রৌপ্য জেতে যুক্তরাষ্ট্র তৃতীয় হয়ে ব্রোঞ্জ জেতে জাপান।
দীর্ঘদিন বিশ্ব কাঁপানো এই দৌড়বিদ ঘোষণা দিয়েছিলেন এই আসরেই ১০০ মিটার ও রিলেতে দৌড়ে শেষ করবেন ক্যারিয়ার। হয়তো লক্ষ্য ছিল রাঙানোর। শেষ পর্যন্ত হতাশাকে সঙ্গী করেই বিদায় নিলেন তিনি!

এই বিভাগের আরো খবর

Go Top