One Day One Word : একটি কার্যকর পদ্ধতি

One Day One Word : একটি কার্যকর পদ্ধতি

মোঃ লিয়াকত আলী সেখ  : শব্দভান্ডার সমৃদ্ধিকরণ শিক্ষার্থীদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে এটি একটি জটিল কাজ। বারবার অনুশীলনের মাধ্যমে অর্জন করা সম্ভব। এ ক্ষেত্রে শিক্ষার প্রাথমিক স্তরে  ঙহব উধু ঙহব ডড়ৎফ নামে যে স্কিমটি বাধ্যতামূলকভাবে চালু করা হয়েছে তা অত্যন্ত যুগোপযোগী এবং বাস্তবসম্মত। এর কারণ, শিশুরা তার শ্রেণির পাঠ্যবইয়ের পঠন উপযোগী শব্দসমূহের উচ্চারণ শিখবে, অর্থ জানবে অর্থাৎ অনুধাবন করবে এবং এভাবে প্রতিটা শ্রেণির শিশুরা পরবর্তী শ্রেণিতে পূর্বের শ্রেণিতে শেখা শব্দসমূহ সফল প্রয়োগের মাধ্যমে নিজেদের সমৃদ্ধ করবে এবং সর্বোপরি, উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ভাষার বই, পত্রিকা, জার্নাল ইত্যাদি পড়তে ও জানতে পারবে। এভাবেই তারা নিজেদেরকে বিশ্বায়নের সাথে খাপ খাইয়ে নেবে। ঙহব উধু ঙহব ডড়ৎফ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আকরাম-আল হোসেন স্যারের একটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ। এ কার্যক্রমের মাধ্যমে প্রতিটি শিশু প্রতিদিন কমপক্ষে একটি করে বাংলা ও ইংরেজি শব্দ শিখবে। এভাবে প্রাথমিক স্তর অতিক্রম করার আগেই শিশুরা এক হাজারেরও বেশি বাংলা ও ইংরেজী শব্দ শিখে ফেলতে পারবে।  ঙহব উধু ঙহব ডড়ৎফ প্রশিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা উভয়ই রেজিস্টার অনুসরণ করে। এছাড়াও কোন কোন স্কুলে শব্দ এবং এর অর্থ টোকেনে লিখেও শেখানো হয় এবং ঐ টোকেন বাক্সেও সংরক্ষণ করা হয়। প্রত্যেক মাসের ২৫-৩০ তারিখের মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে এর একটি টপশিট পাঠানো হয় যেখানে ছাত্র-ছাত্রীর হার, মাসের কর্ম দিবস, শিখানো শব্দ সংখ্যার হিসাব থাকে এবং এর উপর পর্যবেক্ষণও করা হয়। একদম প্রাথমিক পর্যায়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে এই ধারণাটি একটূ জটিল মনে হলেও সংশ্লিষ্টদের তদারকি, শিক্ষকদের আন্তরিকতা, শিক্ষার্থীদের আগ্রহ, প্রধান শিক্ষকের সজাগ দৃষ্টি ইত্যাদির কারণে এটি এখন একটি ভাল পর্যায়ে চলে এসেছে। তারপরও অনেকগুলি কারণ এটি সফল করার পথে বাধা সৃষ্টি করেছে। সরেজমিন পর্যবেক্ষণে গিয়ে শিক্ষার্থীদেরকে কয়েকদিন  আগেই শেখানো শব্দের অর্থ জানতে চাইলে তারা বলতে পারছেনা।  তাদের মধ্যে শ্রেণিতে একিভূত শিক্ষার কারণে সকল শিক্ষার্থীই সমানভাবে শিখতে পারছেনা। অনিয়মিত উপস্থিতি, অভিভাবকদের অসচেতনতা, শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিযোগিতার মনোভাব না থাকা, অনেক ক্ষেত্রে শিক্ষকের অবহেলা, শিক্ষার্থীদের দারিদ্রের কারণে শিক্ষার পরিবেশ না থাকা, আনন্দদায়কভাবে না শিখাতে পারা, বিষয় জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ শিক্ষকের অভাব, অনেক ক্ষেত্রে এক শিফটের ব্যবস্থা না থাকা,  যোগ্য শিক্ষকের কাজের স্বীকৃতি না দেয়া ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।
এ সকল প্রতিবন্ধকতা উতরাতে তিনটি জায়গায় গুরুত্ব দিলে ঙহব উধু ঙহব ডড়ৎফ ইতিবাচকভাবে এবং কার্যকর ভাবে সফল করা সম্ভব। তাদেরকে নতুন শব্দের  অর্থ শেখানোর সাথে পূর্বে শেখানো শব্দগুলির উপর পুনরায় শিক্ষার্থীদেরকে জিজ্ঞাসা করা যেতে পারে। আবার বাড়িতেও যাতে অভিভাবকগণ স্কুলে শেখানো শব্দগুলি শিক্ষার্থীদেরকে পড়ায়, তাহলে শিশুদের আয়ত্বে আসবে। এজন্য  অভিভাবক সমাবেশের আয়োজন করে অভিভাবকদেরকে উদ্বুদ্ধ করা দরকার। শিশুদেরকে শব্দ দিয়ে বাক্য তৈরি করা শেখানো, পরিচিত কোন জিনিসের সাথে শব্দটিকে মিলানো বা প্রাত্যহিক কোন ঘটনার সাথে শব্দটিকে সম্পর্কিত করা শিখাতে পারলে তারা সংশ্লিষ্ট শব্দটিকে আয়ত্ব আনতে পারবে বলে মনে হয়। বিষয় জ্ঞানসম্পন্ন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া এবং এবিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া এবং আন্তরিকতার সাথে পাঠ দেয়া, আনন্দঘন পরিবেশে পাঠ দানের মাধ্যমে শব্দশিখনে শিক্ষার্থীদের মাঝে আগ্রহ সৃষ্টি, সকল বিদ্যালয়কে এক শিফটের আওতায় পরিচালিত করা, কারণ এতে করে শিক্ষার্থীরা নতুন নতুন শব্দ শিখতে যথেষ্ট সময় পাবে।
মূল কথা হচ্ছে, শিক্ষার্থীদের শব্দভান্ডার তৈরিতে ঙহব উধু ঙহব ডড়ৎফ স্কিমটি কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। এজন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিয়মিত তদারকি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
লেখক ঃ  উপজেলা নির্বাহী অফিসার
শেরপুর, বগুড়া।
০১৭৩৩-৩৩৫৪২৭