পরিস্থিতি বিবেচনা ছাড়াই সিদ্ধান্ত না নেওয়ার অনুরোধ সাকিবের

পরিস্থিতি বিবেচনা ছাড়াই সিদ্ধান্ত না নেওয়ার অনুরোধ সাকিবের

সম্প্রতি এক সমর্থকের দিকে সাকিব আল হাসানের তেড়ে যাওয়ার একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। সেই ভিডিও নিয়ে মুখ খুলেছেন সাকিব। বলেছেন, ভিডিওটা সম্পূর্ণ ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে, যা প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করে না। পাশাপাশি পরিস্থিতি বিবেচনা ছাড়াই কোনো সিদ্ধান্ত না নিতে সবাইকে অনুরোধ করেছেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক।

ফ্লোরিডার লডারহিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের পর হোটেলে ফিরছিলেন সাকিব। হোটেলের লবিতে এক সমর্থকের সঙ্গে হঠাৎ তর্ক লেগে যায় তার। একপর্যায়ে তিনি সমর্থকের দিকে তেড়ে যান এবং আপত্তিকর ভঙ্গি করেন। পরে চলে যেতে গিয়েও আবার উত্তেজিতভাবে তেড়ে যান।

সাকিবের অমন আচরণে ক্ষিপ্ত অনেকে। ছড়িয়ে পড়েছে নানা গুঞ্জনও। ভিডিওটি যারা শেয়ার করেছেন, তাদের দাবি, ‘নিরাপদ সড়ক চাই' আন্দোলন নিয়ে প্রশ্ন করায় মেজাজ হারিয়েছিলেন সাকিব। তবে পরে জানা যায়, ঘটনাটা মোটেই তেমন ছিল না।

গতকাল রাতে নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ভক্তদের এক খোলা চিঠিতে সাকিব নিজেও সেই ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। সাকিবের পুরো বক্তব্য নিচে তুলে ধরা হলো-

‘আমার প্রিয় ভক্ত এবং অনুসারীদের উদ্দেশ্য করে আমি কিছু কথা বলতে চাই। সম্প্রতি আমাকে নিয়ে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। যেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর লবিতে আমাকে এবং আমার একজন তথাকথিত “ফ্যান” এর সাথে তর্ক বিতর্ক করতে দেখা যায়। এই ক্লিপটি সম্পূর্ণ ভুল ভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে, যা প্রকৃত ঘটনা প্রকাশ করে না।’

‘পর পর ম্যাচ থাকায় আমি এবং আমার সতীর্থরা বেশ ক্লান্ত ছিলাম এবং আমরা আমাদের রুমে ফিরে যাচ্ছিলাম। আমরা আমাদের নিজস্ব সরঞ্জাম এবং ব্যাগ বহন করেছিলাম তাই আমাদের হাত পূর্ণ ছিল যা কোন ভাবেই অটোগ্রাফ দেওয়ার অবস্থায় ছিল না। আমরা সর্বদাই আমাদের ভক্তদের সাথে সময় কাটাতে পছন্দ করি এবং তাদের সাথে ছবি তুলে, অটোগ্রাফ দিয়ে মুহূর্তগুলি ভাগ করে নেওয়ার চেষ্টা করি। কিন্তু ভক্তদেরও বুঝতে হবে যে আমরাও মানুষ। আমরা মাঠে একটা বিজয় অর্জনের জন্য প্রাণপণে লড়াই করি। আমাদের কি ব্যস্ত কিংবা ক্লান্ত অনুভব করার অনুমতি নেই? আমরা আপনাদের সমর্থন বুঝি এবং প্রশংসা করি সব সময়, এবং চেষ্টা করি আপনাদের সমর্থনের প্রতিদান যেন আমরা মাঠে ভালো খেলার মাধ্যমে দিতে পারি। কিন্তু মাঝে মাঝে আমাদের এই কঠিন পরিশ্রম এবং কঠোর চেষ্টার সাথে সব সময় নিজেকে গুছিয়ে রাখা কষ্টকর হয়ে পড়ে।’

‘আমার আপনাদের কাছে বিনীত অনুরোধ থাকবে যে আমাদের মধ্যে কেউ যদি আপনাদের অনুরোধ না রাখতে পারি তবে তা ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না কারণ আমরা যে পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি তা হয়তো আপনি যা দেখছেন তা থেকে ভিন্ন হতে পারে। হুটহাট আমাদের পরিস্থিতি বিবেচনা না করে কিংবা আমরা কেমন মুডে আছি তা বোঝার চেষ্টা ছাড়াই কোন সিদ্ধান্ত বা মতামত দিতে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন না। আমি আমার ভক্তদের অসম্ভব ভালবাসি এবং আমি মাঠে তাদের জন্যই খেলি সেটা জাতীয় দলে হোক কিংবা কোন লিগের জন্য হোক। একই সাথে আমি আমার ভক্তদের কাছ থেকে সম্মান, ভালবাসা এবং তারা আমাকে বুঝবে এমনটাই আশা করি। আমি জানি কিছু মানুষ, যারা হয়তো আমাকে ফলো করে অথবা করে না, কিন্তু সর্বদা ছোট ছোট বিষয়ে আমাকে নিচু করতে পছন্দ করে। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই আমাদের থেকে ভাল কিছু প্রত্যাশা করতে হলে এই নীচু মানসিকতার পরিবর্তন প্রয়োজন। প্রত্যেকটা ম্যাচে আমরা এমনিতেই অনেক বেশি চাপে থাকি, নতুন কোন চাপ প্রয়োগ না করার জন্য বিশেষ অনুরোধ করা হল। আর এই মানসিকতার বাইরে যারা আছেন, আমি সর্বদা তাদের পাশে আছি।’

‘সবার জন্য আমার তরফ থেকে ভালোবাসা রইলো’- সাকিব।