র‍্যাঙ্কিংয়ে সাকিব-তামিমের উন্নতি

র‍্যাঙ্কিংয়ে সাকিব-তামিমের উন্নতি

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ে বড় অবদান সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের। আর সিরিজে দারুণ পারফরম্যান্সের স্বীকৃতি পেলেন দুজন। আইসিসি টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের।

বাংলাদেশের ২-১ ব্যবধানে জেতা সিরিজে তিন ম্যাচে একটি ফিফটিসহ সর্বোচ্চ ১০৩ রান করেন সাকিব। সিরিজের সেরা খেলোয়াড় র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়েছেন আট ধাপ। বাংলাদেশ অধিনায়ক এখন ৪৫ নম্বরে।

সিরিজটা ওয়ানডের মতো দুর্দান্ত না কাটলেও ভালো খেলেছেন তামিম। প্রথম ম্যাচে ডাক মারলেও শেষ দুই ম্যাচ মিলিয়ে করেছেন ৯৫ রান। ছয় ধাপ এগিয়ে তামিম উঠে এসেছেন ৩৯ নম্বরে।

ফ্লোরিডার লডারহিলে সোমবার সিরিজ নির্ধারণী শেষ ম্যাচে ৩২ বলে ৬১ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন লিটন দাস। যেটি সাদা বলের ক্রিকেটে তার প্রথম ফিফটি। ডানহাতি ব্যাটসম্যান র‍্যাঙ্কিংয়ে এগিয়েছেন ২২ ধাপ। লিটন এখন ৭১ নম্বরে। রেটিং পয়েন্ট বেড়ে হয়েছে ৩৫১, যা তার ক্যারিয়ার সেরা।

এই সিরিজে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। তবে খেলেছেন কার্যকরী ৩৫, ১৩* ও ৩২* রানের তিনটি ইনিংস। মাহমুদউল্লাহ তিন ধাপ এগিয়ে পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের সঙ্গে যৌথভাবে ৩৬ নম্বরে আছেন।

সিরিজে বাজে পারফরম্যান্সের জন্য র‍্যাঙ্কিংয়ে অবনতি হয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যান এভিন লুইসের। ক্যারিবীয়দের মধ্যে ব্যাটিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে ৭ নম্বরে ছিলেন লুইস। এই সিরিজে তার তিনটি ইনিংস ১৭, ১২ ও ১৩। ৭ থেকে চার ধাপ পিছিয়ে তিনি এখন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে যৌথভাবে ১১ নম্বরে। দুজনের সমান ৬৭১ রেটিং পয়েন্ট।

আন্দ্রে রাসেল অবশ্য ব্যাটে-বলে দারুণ খেলেছেন। সেটির ছাপ পড়েছে র‍্যাঙ্কিংয়েও। ব্যাটসম্যানদের র‍্যাঙ্কিংয়ে ২৬ ধাপ এগিয়ে রাসেল উঠে এসেছেন ৮৬ নম্বরে। ২ উইকেট নিয়ে বোলারদের র‍্যাঙ্কিংয়ে পাঁচ ধাপ এগিয়ে ৮৪ নম্বরে আছেন ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার।

ক্যারিবীয় অফ স্পিনার অ্যাশলে নার্স সিরিজে ৪ উইকেট নিয়ে এগিয়েছেন ২১ ধাপ, আছেন ৯১ নম্বরে। বাংলাদেশের বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু দ্বিতীয় ম্যাচে ২৮ রানে নিয়েছিলেন ৩ উইকেট, ১৪ ধাপ এগিয়ে তিনি উঠে এসেছেন ৭০ নম্বরে।