থাই কিশোররা আগামী সপ্তাহে হাসপাতাল ছাড়বে

থাই কিশোররা আগামী সপ্তাহে হাসপাতাল ছাড়বে

থাইল্যান্ডে গুহা থেকে উদ্ধার ১২ কিশোর আগামী সপ্তাহে হাসপাতাল ছাড়বে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী।


শনিবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী পিয়াসাকল সাকলসাতায়াদর্ন সাংবাদিকদের বলেন, ১২ কিশোর ও তাদের কোচ শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ হয়ে উঠছে। তাদের আগামী ১৯ জুলাই বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে ছাড়া হবে।

“হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসার পর তাদের নিয়ে যে হুড়োহুড়ি শুরু হবে তার জন্য কিশোর দল ও তাদের পরিবারকে আমরা প্রস্তুত করছি।”

গত ২৩ জুন নিয়মিত প্রশিক্ষণ শেষে দলের এক কিশোরের জন্মদিন উদযাপন করতে ‘ওয়াইল্ড বোয়ার’ নামের ওই কিশোর ফুটবল দল এবং তাদের কোচ চিয়াং রাই প্রদেশের ‘থাম লুয়াং’ গুহার প্রবেশ করে।

দলটি প্রবেশের পর আকস্মিক পাহাড়ি ঢলে গুহার ভেতর পানি ঢুকে যাওয়ায় তারা আটকা পড়ে যায়।

নিখোঁজ হওয়ার ১০ দিনের মাথায় গুহা মুখ থেকে চার কিলোমিটার ভেতরে দলটির সন্ধান পান দুই ব্রিটিশ ডুবুরি।

বর্ষা মৌসুমে টানা বৃষ্টিপাতের কারণে গুহার পানি বাড়তে থাকায় কিশোর দলটির সন্ধান পাওয়ার পরও তাদের বের করে আনা সম্ভব হচ্ছিল না।

কিভাবে বের করা হবে এ নিয়ে আলাপ আলোচনার মধ্যেই আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে আরও ভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দেওয়ার পর ঝুঁকি নিয়েই কিশোরদের বের করে আনার কাজ শুরু হয়।

কিশোরদের উদ্ধার অভিযানে দেশি-বিদেশি প্রায় হাজার খানেক ডুবুরি অংশ নেন।

তাদের মধ্যে থাই নৌবাহিনীর সাবেক সদস্য এক ডুবুরি কিশোর দলের কাছে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিয়ে ফেরার পথে অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু বরণ করেন।

গত রোববার থেকে কিশোরদের বের করে আনার চূড়ান্ত অভিযান শুরু হয়। ওই দিন চারজন, পরদিন চারজন এবং তৃতীয়দিন আরও চার কিশোর ও তাদের কোচকে নিরাপদে বের করে আনা হয়।

চিয়াং রাইর একটি হাসপতালে তাদের চিকিৎসা চলছে।

অনাহারে দুর্বলতা জনিত অসুস্থতা ছাড়া কিশোররা সবাই ভালো আছে। দুই একজন কিশোরের ফুসফুসে সামান্য সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

ভয়াবহ এই অভিজ্ঞতার কারণে কিশোরদের মনে যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে সেটা থেকে বেরিয়ে আসতে তাদের মনচিকিৎসাও দেওয়া হচ্ছে।