সিটির রেকর্ডের রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগ নিশ্চিত টটেনহামের

সিটির রেকর্ডের রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগ নিশ্চিত টটেনহামের

প্রিমিয়ার লিগে জয়ে ফেরার রাতে বেশ কিছু রেকর্ড গড়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে পেপ গার্দিওলার দল।

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে বুধবার রাতের এই জয়ে চলতি মৌসুমে ৩৭ ম্যাচে সিটির পয়েন্ট হলো ৯৭, যা প্রিমিয়ার লিগ যুগে এক মৌসুমে কোনো দলের সর্বোচ্চ। সিটি পেছনে ফেলেছে ২০০৪-০৫ মৌসুমে হোসে মরিনহোর অধীনে চেলসির ৯৫ পয়েন্টকে।

ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগে সিটির ৯৭-এর চেয়ে বেশি পয়েন্ট আছেই মাত্র এক দলের। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে ৯৮ পয়েন্ট পেয়েছিল লিভারপুল। সেটি ছাড়িয়ে প্রথম দল হিসেবে ১০০ পয়েন্ট অর্জনের হাতছানি সিটির সামনে।


এই মৌসুমে সিটির গোল হলো ১০৫টি- যা প্রিমিয়ার লিগে এক মৌসুমে কোনো দলের সর্বোচ্চ। এখানেও সিটি ভেঙেছে চেলসির রেকর্ড। ২০০৯-১০ মৌসুমে ১০৩ গোল করেছিল চেলসি।

আর এই মৌসুমে ৩৭ ম্যাচের ৩১টিই জিতল গার্দিওলার দল। এটিও প্রিমিয়ার লিগের এক মৌসুমে সর্বোচ্চ। এমনকি ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগে সর্বকালের রেকর্ডও ছুঁয়েছে সিটি। ১৯৬০-৬১ মৌসুমে ৩১ ম্যাচ জিতেছিল টটেনহাম। শেষ ম্যাচ জিতে টটেনহামের এই রেকর্ডও নিজেদের করে নেওয়ার সুযোগ সিটির সামনে।

ম্যানচেস্টার সিটির রেকর্ডের রাতে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলা নিশ্চিত করেছে টটেনহাম। হ্যারি কেনের একমাত্র গোলে নিউক্যাসলকে হারিয়েছে তারা।


৩৭ ম্যাচে ৭৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে টটেনহাম। পঞ্চম স্থানে থাকা চেলসির চেয়ে চার পয়েন্ট এগিয়ে আছে তারা। ম্যাচ বাকি একটি। টানা তৃতীয় মৌসুমে তাই চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলা নিশ্চিত হয়ে গেল তাদের। পাশাপাশি ১৯৯৫ সালের পর লন্ডনের ক্লাবদের মধ্যে সবার ওপরে থেকে তারা লিগ শেষ করবে।

সিটি, টটেনহামের জয়ের রাতে হোঁচট খেয়েছে আর্সেনাল ও চেলসি। লেস্টার সিটির মাঠে ৩-১ গোলে হেরে গেছে আর্সেনাল। ঘরের মাঠে হাডার্সফিল্ডের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে চেলসি।

প্রিমিয়ার লিগের শেষ দল হিসেবে চ্যাম্পিয়নস লিগে যাওয়ার লড়াইটা এখন লিভারপুল ও চেলসির মধ্যে। এক ম্যাচ বাকি থাকতে ৭২ পয়েন্ট নিয়ে চারে আছে লিভারপুল, ৭০ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচে চেলসি। চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলবে প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চার দল।