চা বিরতি পর্যন্ত বাংলাদেশ ২৮১/৫

চা বিরতি পর্যন্ত বাংলাদেশ ২৮১/৫

চট্টগ্রাম টেস্টের শেষ দিনে ম্যাচ বাঁচানোর চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার চেয়ে ১১৯ রানে পিছিয়ে খেলা শুরুর পর বড় লিডের জন্য ব্যাট করছে স্বাগতিকরা।

স্কোর : বাংলাদেশ ২৮১/৫ (৮৬ ওভারে)

ব্যাটিং : মাহমুদউল্লাহ ১২* মোসাদ্দেক ০*।

লিড :  ৮১ রান।

আত্মাহুতি দিলেন লিটন : সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৬ রান দূরে। রঙ্গনা হেরাথের করা ৮৩তম ওভারের দ্বিতীয় বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মিড অফে দিলুরুয়ান পেরেরার হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন তিনি। মাত্র ৬ রানের জন্য ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি থেকে বঞ্চিত হন। 

প্রতিরোধ ভাঙলেন ডি সিলভা: ক্রিজে থিতু হওয়া মুমিনুলকে ফিরিয়ে প্রতিরোধ ভাঙলেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। ইনিংসের ৭৭.২ ওভারে তার বলে করুনারত্নের হাতে ধরা পড়লে মুমিুনলের ১০৫ রানের ইনিংসের ইতি ঘটে। ১৭৪ বলে ৫ চার ২ ছক্কায় এ ইনিংসটি খেলেন তিনি। মুমিনুলের আউটে চতুর্থ উইকেটে লিটন দাসের সঙ্গে ১৮০ রানের জুটি ভাঙে।

মুমিনুলের সেঞ্চুরি : প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ান মুমিনুল হক দ্বিতীয় ইংনিংসেও সেঞ্চুরি করে নিজের সেরাটা জানান দিয়েছেন। শ্রীলঙ্কার বড় সংগ্রহের জবাবে গতকাল চতুর্থদিনে ৩ উইকেট হারিয়ে যখন দিশেহারা বাংলাদেশ শেষদিনে সেই শিবিরের হাল ধরেন তিনি। লিটন দাসের সঙ্গে দায়িত্বশীল ইনিংসে সেঞ্চুরি করে দলকে টেনে তুলেন তিনি। নিজের ষষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরি পেতে ১৫৪ বল মোকাবিলা করেন মুমিনুল। ৫ চারও ও ২ ছক্কায় সেঞ্চুরির দেখা পান মুমিনুল।  ইনিংসের ৭১ তম ওভারে সান্দাকানের বলে সিঙ্গেল নিয়ে পূরণ করেন তিনি। 

দলীয় দুইশ বাংলাদেশের:  সফরকারী শ্রীলঙ্কার চেয়ে ১১৯ রানে পিছিয়ে থেকে পঞ্চম দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। লিটন দাসের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় দলীয় ২০০ রানের মাইলফলকে পৌঁছেন মুমিনুল হক। ইনিংসের ৫৯.৩ ওভারে দলীয় দুইশ করে ফেলে স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। তাদের দায়িত্বশীল ব্যাটে ভর করে বড় লিডের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ।

লিটনের ফিফটি: প্রথম ইনিংসে গোল্ডেন ডাক মেরে হতাশা নিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন লিটন দাস। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে দলের দুঃসময়ে মুমিনুল হককে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে চলছেন তিনি। পঞ্চম দিনে সকালে আস্থার সঙ্গে খেলে ফিফটি তুলে নিয়েছেন তিনি। ৬টি চারের সাহায্যে অর্ধশতক রান করতে ৯৩ বল মোকাবিলা করেন লিটন। ইনিংসের ৫৭তম ওভারে সান্দাকানের বলে বাউন্ডারি মেরে ফিফটি পূরণ করেন তিনি।

স্বস্তি নিয়ে মধ্যাহ্নভোজে বাংলাদেশ: শেষ দিনের ভাঙাচূড়া উইকেটে শ্রীলঙ্কার বড় সংগ্রহের জবাবে হার এড়ানোর জন্য লড়ছে বাংলাদেশ।  স্বস্তির খবর হচ্ছে আজ জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে কোনো অঘটন ছাড়াই প্রথম সেশন শেষ করেছে টাইগাররা। মুমিনুল হক ও লিটন দাসের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কার চেয়ে মাত্র ১৩ রান পিছিয়ে মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে গেছে স্বাগতিক দল।

মুমিনুল-লিটন জুটির সেঞ্চুরি: পঞ্চম দিনের শুরুতেই মুমিনুল হক আর লিটন দাসের দায়িত্বশীল ব্যাটিং। আর তাতেই শেষদিনে এখনো কোনো বিপদ ছাড়াই শতরানের জুটি গড়তে সক্ষম হয়েছেন এ দুই ব্যাটসম্যান। চতুর্থ উইকেটে ১৫৯ বল খেলে শত রানের জুটি গড়েছেন তারা। জুটির সেঞ্চুরি গড়তে দুজনেইর ব্যাট থেকেই সমান ৪৭ রান করেন আসে।

মুমিনুলের ফিফটি: টেস্টে পঞ্চম দিনের উইকেট ব্যাটসম্যানদের জন্য খুব একটা সহায়ক নয়। ৭ উইকেটের পুঁজি নিয়ে শেষ দিনে চ্যালেঞ্জ উতরে যাওয়ার জন্য লড়ছে বাংলাদেশ। সেই লড়াইয়ে প্রথম ইনিংসের মতো নিজের চওড়া কাঁধে বাংলাদেশকে টানছেন মুমিনুল হক। টেস্টে আজ নিজের ১৩তম হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিতে ৭৮ বল খেলেছেন তিনি।

শতরান ছাড়িয়ে বাংলাদেশ: পঞ্চম দিনের শুরুতে কেনো অঘটন ছাড়াই দলীয় শতরান ছাড়িয়েছে বাংলাদেশের সংগ্রহ। আগের দিন নিজেদের দ্বিতীয়  ইনিংসের শুরুতে ৮১ রান তুলতে ৩ উইকেট হারালেও আজ  দিনের শুরুটা বেশ ধীরভাবেই শুরু করেছেন মুমিনুল ও লিটন দাস।

প্রতিরোধে চোখ স্বাগতিকদের: বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে ৫১৩ রানের জবাবে ৯ উইকেট হারিয়ে ৭১৩ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা। বরাবর ২০০ রানের লিড হয় সফরকারীদের। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ইমরুল কায়েসকে নিয়ে তামিম ইকবাল ৫০ রান তুললেও চতুর্থ দিনের শেষটা বাজেই হলো বাংলাদেশের। দলীয় ৮১ রানে টপঅর্ডারের ৩টি উইকেট হারিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। ১৮ রানে অপরাজিত থেকে গতকাল মাঠ ছাড়েন মুমিনুল হক। প্রথম ইনিংসে দুর্দান্ত খেলা টেস্ট স্পেশালিস্ট মুমিনুলের ব্যাটে আজ দিনের শুরুতে প্রতিরোধ গড়তে চাইবে বাংলাদেশ