৫০ হাজার মেট্রিক টন গম কিনবে সরকার

৫০ হাজার মেট্রিক টন গম কিনবে সরকার

আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্যাকেজ-৯ এর আওতায় ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম কেনার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার (২৭ মার্চ) সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে কমিটির সভায় এ প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা বছরে ৫ থেকে সাড়ে ৫ লাখ টনের মতো গম কিনি। এর মাঝে সাড়ে তিন লাখ টন কিনে ফেলেছি। আজকে ৫০ হাজার টন গম কেনার প্রস্তাব এসেছে প্রতি মেট্রিক টন ২৬৮ ডলারে। আগের থেকে চার ডলারের মত কম মূল্যে এই গম কেনা হবে। এতে মোট ১১৪ কোটি টাকা খরচ হবে। সিঙ্গাপুরের অ্যাগ্রো-ক্রপ ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেডকে কাজ দেওয়া হয়েছে।

বৈঠকে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে হাইটেক পার্ক সিলেট (সিলেট ইলেকট্রনিক্স সিটি) এর প্রাথমিক অবকাঠামো নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের কাজ খুব দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সেখানে আমাদের সামান্য খরচ বাড়বে, কিছু জায়গায় ভূমি উন্নয়ন এবং সাইট উন্নয়ননের জন্য মাটি লাগবে। এজন্য অতিরিক্ত ১৭ কোটি ১৫ লাখ টাকা লাগবে।

মাতারবাড়ির সড়ক চার লেন
বৈঠকে জাইকা ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আওতাধীন বাস্তবায়নাধীন মাতারবাড়িতে চার লেন সড়ক উন্নয়ন কাজের অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মাতারবাড়িতে যে প্রজেক্ট হচ্ছে সেখানে একটা বিরাট কর্মযজ্ঞ। সিংগাপুরের প্রায় চার ভাগের তিনভাগের সমান হবে। প্রথম দিকে আইডিয়াটা খুব বেশি কনসিভ করা হয়নি, মাত্র দু’টি রাস্তার প্রবিশন রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যেহেতু এখানে ১০ হাজার মেগাওয়াট পাওয়ার তৈরি করা যায়, যে পরিমাণ কয়লা দরকার সে কয়লা এখানে জমা থাকবে। চারটি লেন থাকবে শুধু ট্রাক ইন ও আউট এর জন্য। সেখানে পাওয়ার প্ল্যান্ট হবে, ডিপ সি পোর্ট হচ্ছে, সেখানে অনেক কিছু হচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন প্রয়োজনে আট লেনে সেখানে যেতে হবে। আমরা আপাতত চার লেন অনুমোদন করেছি। নির্দেশনা হলো ভবিষতে যেন আরো দুই লেন করতে পারে। আপাতত চার লেনে করে ভবিষতে আরো দুই লেন করার জন্য বলা হয়েছে। দুই লেনের জন্য এসেছিল ৩৬৩ কোটি টাকা। এখন যেহেতু চার লেন হবে দাম বাড়বে, নতুন দাম নিয়ে বলতে পারছি না।

চার নদী ড্রেজিং
বৈঠকে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র, ধরলা, তুলাই এবং পুনর্ভবা নদীর নাব্যতা উন্নয়ন ও পুনরুদ্ধার প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

অর্থমন্ত্রী বলেন, প্রকল্প এলাকায় ড্রেজিং করতে হবে ৪৩৭ কিলোমিটার। কাজটি করবে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়। খরচ হবে ৪০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।