৪৫৪ রানে থামলো অস্ট্রেলিয়া

৪৫৪ রানে থামলো অস্ট্রেলিয়া

সিডনি টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বোলারদের বিপক্ষে একাই ব্যাট করলেন মার্নাস লাবুশানে। খেলেছেন ২১৫ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। ক্যারিয়ারের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি করে লাবুশানে ইঙ্গিত দিলেন, তার সামনে বিশাল এক ক্যারিয়ার অপেক্ষা করছে। সে সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ারও সুদিন ফেরার অপেক্ষায়।

লাবুশানের ২১৫ রানের ওপর ভর করে সিডনিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৪৫৪ রানে অলআউট হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। লাবুশানের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান স্টিভেন স্মিথের। তিনি আউট হন ৬৩ রান করে।


 
সিডনি টেস্টের প্রথম দিনে ৩ উইকেট হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ছিল ২৮৩ রান। লাবুশানে ১৩০ এবং ম্যাথ্যু ওয়েড ব্যাট করছিলেন ২২ রান নিয়ে।

দ্বিতীয় দিন সকালে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ম্যাথ্যু ওয়েড ফিরে যান আর কোনো রান যোগ না করেই। উইলিয়াম সমারভিলের ঘূর্ণিতে বোল্ড হয়ে যান তিনি। এরপর ট্রাভিস হেড মাঠে নেমেও বেশিক্ষণ টিকতে পারলেন না। ৪২ বল খেলে ১০ রান করে ম্যাট হেনরির বলে উইকেটের পেছনে বিজে ওয়াটলিংয়ের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান।

মাঠে নামেন অসি অধিনায়ক টিম পেইন। ৬ষ্ঠ উইকেটে লাবুশানের সঙ্গে ৭৯ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন পেইন। ৯২ বল খেলে তিনি আউট হন ৩৫ রান করে। এরই মধ্যে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করে ফেলেন মার্নাস লাবুশানে। টিম পেইনের পরপরই সাজঘরের পথ ধরেন ডাবল সেঞ্চুরিয়ান লাবুশানেও। ৫১৬ মিনিট উইকেটে থেকে, ৩৬৩ বল মোকাবেলা করে ২১৫ রান করেন লাবুশানে।

এরপর অসি ইনিংস আর বেশি দুর যাওয়ার কথা নয়। জেমস প্যাটিনসন ২, প্যাট কামিন্স ৮ রান করে ফিরে যান সাজঘরে। মিচেল স্টার্ক শেষ মুহূর্তে ২২ রান করে অসিদের স্কোর আরেকটু বাড়িয়ে তোলেন। লায়ন অপরাজিত থাকেন ৬ রানে।


কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম এবং নেইল ওয়াগনার নেন ৩টি করে উইকেট। ২ উইকেট নেন টড অ্যাসল এবং ১ উইকেট নেন ম্যাট হ্যানরি ও সমারভিলে।