১৯৬ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

১৯৬ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেওয়া ১৯৬ রানের টার্গেটে ব্যাটিং নেমেছে বাংলাদেশ। দলের হয়ে ওপেনিংয়ে নামেন ইনজুরি ফেরত তামিম ইকবাল ও লিটন দাশ।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৫ রানেই থেমে যায় সফরকারী উইন্ডিজ।

শের ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টসে জিতে বাংলাদেশকে ফিল্ডিংয়ের পাঠান উইন্ডিজ অধিনায়ক রোভম্যান পাওয়েল।

বাংলাদেশ সময় দুপুর ১ টায় শুরু হয় ম্যাচটি। তামিমের ওপেনিংয়ের সঙ্গী নিয়ে কিছুটা মধুর সমস্যা থাকলেও লিটন দাসকেই বেঁছে নিয়েছে টিম ম্যানেজমেন্ট। তবে দলে আছেন ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকারও।

নিজের চতুর্থ ওভারের শেষ বলে কাইরান পাওয়েলকে ফিরিয়ে উইন্ডিজ শিবিরে প্রথম আঘাত করেন সাকিব আল হাসান। ব্যাক্তিগত ১০ রানে রুবেল হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন উইন্ডিজ ওপেনার।

উইকেটে সেট হতে থাকা ড্যারেন ব্রাভোকে দারুণ এক ক্যাচে মাঠ ছাড়া করান তামিম ইকবাল। ২১তম ওভারের চতুর্থ বলে মাশরাফি বিন মর্তুজার করা বলে ব্রাভো তুলে মারলে উড়ে এসে ক্যাচ লুফে নেন তামিম। ৫১ বলে ১৯ রান করেন ব্রাভো।

অসাধারণ বোলিং করা মাশরাফি বিন মর্তুজার জোড়া আঘাতে টপঅর্ডারের দুই উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ব্রাভোর পর মাশরাফির বলে শাই হোপ প্যাভিলিয়নে ফেরেন। ৫৯ বলে ৪৩ করে মেহেদি হাসান মিরাজে তালুবন্দী হন হোপ।

ব্যক্তিগত ৮ ওভারের প্রথম বলেই দারুণ এক ডেলিভারিতে সিমরন হেটমায়ারকে বোল্ড করে ফেরালেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ব্যক্তিগত ৬ রানে ফেরেন তিনি।

ক্যারিয়ারের ২০০তম ওয়ানডে ম্যাচে তৃতীয় উইকেট তুলে নিলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ব্যক্তিগত ৮ম ওভারের প্রথম বলেই পান উইকেট। মাশরাফির বলে লিটন দাসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১৪ রানে আউট হয়ে ফেরেন রোভম্যান পাওয়েল।

বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করেও উইকেট পাচ্ছিলেন না পেসার রুবেল হোসেন। অবশেষে মারলন স্যামুয়েলসকে ফিরিয়ে পেলেন প্রথম উইকেট। নিজের ৮ম ওভারের চতুর্থ বলে ২৫ রানে ফেরান স্যামুয়েলসকে। বাউন্ডারিতে দাঁড়ানো লিটন দাস অসাধারণ এক ক্যাচে ফেরান তাকে।

ক্যারিবীয় ইনিংসের ৪৭তম ওভারে উইকেট পান মোস্তাফিজুর রহমান। ক্রমেই ভয়ংকর হয়ে ওঠে রোস্টন চেজকে মেহেহেদি হাসান মিরাজের হাতে ক্যাচ বানিয়ে ফেরান এই বাঁহাতি পেসার। ৩৮ বলে ৩২ রান করে ফেরেন চেজ। পরে কেমো পল ও দেবেন্দ্র বিশুকেও প্যাভিলিয়নে পাঠান কাটার মাস্টার।