১০০ কোটি ও তদূর্ধ্ব খেলাপি ঋণ তদারকিতে বিশেষ সেল

১০০ কোটি ও তদূর্ধ্ব খেলাপি ঋণ তদারকিতে বিশেষ সেল

খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনতে ১০০ কোটি টাকা ও তার চেয়ে বেশি খেলাপি ঋণ হিসাবগুলো নিবিড় তদারকি করতে ‘স্পেশাল মনিটরিং সেল’  নামে বিশেষ মনিটরিং সেল করতে হবে।

একজন উপব্যবস্থাপনা পরিচালককে (ডিএমডি) প্রধান করে প্রয়োজনীয় সংখ্যক জনবল দিয়ে এই কমিটি গঠন করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোমবার (২২ জুলাই) একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে দেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক/প্রধান নির্বাহী কর্মমকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে।
   
এতে বলা হয়েছে, খেলাপি ঋণের পরিমাণ কমিয়ে আনার লক্ষ্যে তফসিলি ব্যাংকগুলোর অপরাপর সব শ্রেণীকৃত ঋণসহ ১০০ কোটি টাকা এবং তদূর্ধ্ব স্থিতিবিশিষ্ট শ্রেণীকৃত ঋণ হিসাব নিবিড় তদারকি একান্ত আবশ্যক।

এজন্য সব ব্যাংক সংশ্লিষ্ট উপব্যবস্থাপনা পরিচালককে প্রধান করে প্রয়োজনীয় সংখ্যক কর্মবল নিয়ে ১০০ কোটি টাকা এবং তদূর্ধ্ব স্থিতিবিশিষ্ট শ্রেণীকৃত ঋণ হিসাব তদারকির লক্ষ্যে ‘স্পেশাল মনিটরিং সেল’ নামে একটি বিশেষ তদারকি সেল গঠন করবে।
 
বিশেষ তদারকি সেল ঋণের আদায় বৃদ্ধিকরণ এবং ঋণের পরিমাণ ও খেলাপি ঋণগ্রহীতার সংখ্যা কমিয়ে আনার লক্ষ্যে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করে তিনমাস পরপর নির্ধারিত ছকে বাংলাদেশ ব্যাংকে তথ্য পাঠাতে হবে।

চলতি বছরের অক্টোবর-ডিসেম্বর থেকে ২০২০ সালের এপ্রিল-জুন পর্যন্ত উক্ত বিবরণীর হার্ড ও সফট কপি বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগে দাখিল করতে হবে।

ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে উক্ত বিবরণীর যথাযথ পর্যালোচনা নিশ্চিত করবে। এক্ষেত্রে ঋণের বকেয়া আদায়ের নিমিত্তে ব্যাংক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ একটি সময়াবদ্ধ কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করবে এবং পরিচালনা পর্ষদ নিয়মিতভাবে উক্ত কর্মপরিকল্পনার বাস্তবায়ন কার্যক্রম পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেবে।