হেলথ কার্ড ও প্রণোদনা চান বিএসএমএমইউর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

হেলথ কার্ড ও প্রণোদনা চান বিএসএমএমইউর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) কর্মরত শিক্ষক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা, সেবিকা, ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণির কর্মচারীদের বিনামূল্যে সব পরীক্ষা-নিরীক্ষাসহ চিকিৎসাসেবা প্রাপ্তির লক্ষ্যে অবিলম্বে স্বাস্থ্য সেবাকার্ড (হেলথ কার্ড) প্রদান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের আয়ের টাকায় সমান প্রণোদনা আদায়ে একাট্টা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

স্বাস্থ্যসেবা কার্ড প্রাপ্তি ও সমান প্রণোদনা আদায়ে গত ১৮ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার কাছে স্মারকলিপি দেয়া হয়।


রোববার (২১ জুলাই) কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক মো. মোস্তাফিজুর রহমান (জুয়েল), প্রধান সমন্বয়ক মো. মোস্তাফিজুর রহমান (নয়ন) এবং সদস্য সচিব মো. জায়দুল হকের (জাহিদ) পাঠানো এক যুক্ত বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মকর্তা, সেবিকা, তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের নিয়ে গঠিত কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ ইতোমধ্যে এ দাবি বাস্তবায়নে একাধিক সভা করে।

কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের প্রধান সমন্বয়ক মো. মোস্তাফিজুর রহমান (নয়ন) বলেন, ‘প্রণোদনা (ইনসেনটিভ) বা কমিশনের নামে বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় শিক্ষক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রত্যেক মাসে হাজার হাজার থেকে শুরু করে লাখ লাখ টাকা কমিশন নিচ্ছেন। জাতির পিতার নামে প্রতিষ্ঠিত দেশের প্রথম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ধরনের নৈরাজ্য ও বৈষম্য কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না এবং বছরের পর বছর মেনে নেয়া সম্ভব নয়।’

সদস্য সচিব মো. জায়দুল হক (জাহিদ) বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ন্যায্য দাবি মেনে না নিলে আগামী দিনে কঠোর কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে অবশ্যই ন্যায়সঙ্গত দাবি পূরণ করে ছাড়ব।’