হৃদয়ের আয়না ছবির ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না : রোশান

হৃদয়ের আয়না ছবির ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না : রোশান

চিত্রনায়ক রিয়াজ অভিনীত সুপারহিট সিনেমা ‘হৃদয়ের আয়না’। রোমান্টিক গল্প, শ্রুতিমধুর গান ছবিটিকে পৌঁছে দিয়েছিলো সব শ্রেণির দর্শকের কাছে। ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া এই ছবিতে রিয়াজের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন আয়না।

এই ছবি দিয়েই আয়না সিনেমাতে অভিষিক্ত হন। প্রথম ছবিতেই গ্ল্যামারের রোশনাই ছড়ান তিনি দর্শকের অন্তরে। তাকে দেখা গিয়েছিলো রিয়াজের বিপরীতে ‘অন্তরে ঝড়’ ছবিতেও। এরপর তিনি চলে যান আড়ালে। আর দেখা মিলেনি তার। পাওয়া যায়নি কোনো আলোচনাতেও।


তবে দীর্ঘ ২২ বছর পর আবারও ফিরে এলো তার নামটি। আলোচনায় এলো তার প্রথম ছবিটিও। তার কারণ, নতুন করে নির্মিত হতে যাচ্ছে ‘হৃদয়ের আয়না’।

তবে এটি কোনো রিমেক বা সিক্যুয়েল নয়। দীর্ঘ ২২ বছর পর আবারও নির্মিত হতে যাচ্ছে একই নামের চলচ্চিত্র। প্রথম ছবিটি নির্মাণ করেছিলেন মুখলেসুর রহমান। আর নতুন এই ছবিটি নির্মাণ করবেন তরুণ নির্মাতা সাজ্জাদ খান।

এতে নায়ক ও নায়িকা হিসেবে জুটি বাঁধবেন কে? এ ব্যাপারে পরিচালকের বরাত দিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, এখানে নায়ক হিসেবে দেখা যাবে তরুণ অভিনেতা রোশানকে। নায়িকা কে হবেন সেটি এখনো চূড়ান্ত নয়। এ বিষয়ে ঘোষণা আসবে শিগগিরই।

এদিকে নায়ক রোশানের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, এ ব্যাপারে কোনো তথ্যই জানেন না তিনি। রোশান  মঙ্গলবার সকালে বলেন, ‘আমি সত্যি খুব অবাক হয়েছি। বেশ কিছু গণমাধ্যমে দেখেছি আমি ‘হৃদয়ের আয়না’ নামের ছবিতে অভিনয় করছি। চুক্তিবদ্ধও হয়েছি। কিন্তু সত্যটা হলো আমি এসব কিছুই জানি না।’

তিনি বলেন, ‘আমি সর্বশেষ ইস্পাহানি আরিফ জাহান ভাইয়ের ‘ড্রিম গার্ল’ ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। সেই ছবিটির নাম পরিবর্তন হতে পারে। এরপর আর কোনো ছবিতে আমি চুক্তি করিনি। পরিচালক সাজ্জাদ খান হয়তো আমার কথা ভেবেছেন তার প্রথম ছবির জন্য। তবে তিনি এখনো এ বিষয়ে আমার সঙ্গে কোনো কথা বলেননি। তাই আমি এই ছবি নিয়ে কিছুই বলতে পারছি না।’

নায়কের চুক্তির ব্যাপারে জানতে সাজ্জাদ খান বলেন, ‘আমি কাউকেই নিশ্চিত করে বলিনি 
এ ছবির নায়ক রোশান। তবে তাকে আমরা ভাবছি। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের আগ্রহ তাকে নিয়ে। আগামী মাসে নায়ক ও নায়িকা চূড়ান্ত করে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।’

সাজ্জাদ খান জানান, নতুন করে ‘হৃদয়ের আয়না’ ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন দেলোয়ার হোসেন দিল। এটি নির্মাণ করছে যাদুকাঠি মিডিয়া ইন্টারন্যাশনাল।