হারাগাছে অবৈধ ক্লিনিকের মালিক ও ভুয়া ডাক্তারসহ ৪ জনের কারাদন্ড

হারাগাছে অবৈধ ক্লিনিকের মালিক ও ভুয়া ডাক্তারসহ ৪ জনের কারাদন্ড

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের কাউনিয়ার হারাগাছে অবৈধভাবে ক্লিনিক পরিচালনা ও অনুমোদনহীন ওষুধ বিক্রির অভিযোগে মালিক ও ভুয়া চিকিৎসকসহ চারজনকে বিভিন্ন মেয়াদে বিনাশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত বৃহস্পতিবার উপজেলার বকুলতা গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটকের পর রাত ৮টার দিকে এ রায় দেন আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) উলফৎ আলা বেগম। ভ্রাম্যমাণ আদালতের সহকারী ফারুক হোসেন জানান, হারাগাছ ইউনিয়নের বকুলতলা গ্রামে জনৈক টংশু  মোহাম্মদের বাড়ি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে ক্লিনিক পরিচালনা করে আসছিলেন হারাগাছের ধুমেরপাড় এলাকার নুরনবী মিয়ার ছেলে হাসান আলি (৩৫)।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে হাসান আলীসহ ক্লিনিকের ভুয়া চিকিৎসক লালমনিরহাটের মহেন্দনগর তেলীপাড়া গ্রামের আলম মিয়ার মেয়ে রাজিয়া সুলতানা (২৬), কাউনিয়া উপজেলার পল্লীমারী নাজিরদহ গ্রামের এমদাদুল হকের ছেলে ও ম্যানেজার বেলাল হোসেন (২৬) এবং উদয় নারায়ণ মাছহারি গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে অফিস সহকারী শীলা আক্তারকে (২০) আটক করা হয়। অভিযানে কাউনিয়া থানা পুলিশ সহায়তা করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে অবৈধ ক্লিনিকের মালিক হাসান আলী ও ভুয়া চিকিৎসকের প্রত্যেককে এক বছর করে এবং ম্যানেজার ও অফিস সহকারীর ৩ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) উলফৎ আলা বেগম বলেন, হাসান আলী চিকিৎসার নামে অবৈধভাবে ক্লিনিক পরিচালনা করাসহ স্বাস্থ্যকর্মী নিয়োগের নামে স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে প্রতারণা ও অনুমোদনহীন বিভিন্ন যৌন উত্তেজক ওষুধ বিক্রি করে আসছিলেন। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটকের পর আটককৃতরা তাদের দোষ স্বীকার করায় বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।