সৈয়দপুরে আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রীকে জবাই করে হত্যার চেষ্টা

সৈয়দপুরে আওয়ামী লীগ নেতার স্ত্রীকে জবাই করে হত্যার চেষ্টা

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌর আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র হিটলার চৌধুরী ভলু’র স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপিকে (৩৫)  জবাই করে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে তাকে শহরের গোলাহাটস্থ ঘোড়াঘাট এলাকার নিজ বাসায় গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। জানা গেছে, সৈয়দপুর পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌরসভার সাবেক প্যানেল মেয়র মো. হিটলার চৌধুরী ভলু দ্বিতীয় স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপি (৩৫) তাঁর দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে শহরের গোলাহাটস্থ ঘোড়াঘাট এলাকার বাসায় বসবাস করেন। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় প্রতিদিনের মতো তিনি বাসা থেকে বের হয়ে তাঁর শহরের রসুলপুর এলাকায় নিজ কার্যালয়ে আসেন। এরই মধ্যে রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে দুই যুবক আকস্মিক তাঁর বাসায় ঢুকে বিছানায় ঘুমিয়ে থাকা স্ত্রী সুরভী ইসলাম পপির গলায় ধাঁরালো চাকু দিয়ে জবাই করে হত্যার চেষ্টা করে। এ সময় ওই দুই যুবকের সঙ্গে তাঁর ধস্তাধস্তি হয়। এতে করে তিনি বাম হাতেও জখমপ্রাপ্ত হন। পরে তাঁর মেয়ের আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে তারা দ্রুত পালিয়ে যায়।
এ ঘটনার পর গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। বর্তমানে তাঁর অবস্থা শঙ্কামুক্ত বলে তাঁর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে।ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী পপির ছোট মেয়ে তাসফিয়া লাবিবা চৌধুরী অদ্রি (৭) জানায়, ‘মায়ের চিৎকারে ঘুম ভেঙ্গে গেলে আমি দেখি আমাদের পাড়ার জীবন (২১) ও রাজা (১৭) চাকু দিয়ে আমার মায়ের গলা কাটছে। তখন আমি চিৎকার করি। এতে তারা পালিয়ে যায়।’ ঘাতক জীবন একই এলাকার মো. মুন্নার এবং রাজা ওই এলাকার মৃত. সাগিরের ছেলে বলে জানা গেছে। সৈয়দপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবুল হাসনাত খান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হিটলার চৌধুরীকে থানায় আনা হয়েছে।