সিরিজ জিততে ভারতের লক্ষ্য ২৪৪

সিরিজ জিততে ভারতের লক্ষ্য ২৪৪

২০০৯ সালে প্রথম ও একমাত্রবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। দশ বছরের ব্যবধানে ২০১৯ সালে এবার ভারতীয়দের সামনে সুযোগ দ্বিতীয়বারের মতো কিউইদের মাটিতে সিরিজ জয়ের স্বাদ নেয়ার। সেজন্য ভারতকে করতে হবে ২৪৪ রান।

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম দুইটিতে জিতে আগেই সিরিজ জয়ের পথে এগিয়ে রয়েছে বিরাট কোহলির দল। সিরিজের তৃতীয় ম্যাচটি জিতলেই মিলবে সিরিজ নিজেদের করে নেয়ার কৃতিত্ব। মাউন্ট মাউনগানুইতে সে লক্ষ্যে খেলতে নেমে স্বাগতিকদের ২৪৩ রানে অলআউট করেছেন মোহাম্মদ শামী-ভুবনেশ্বর কুমাররা।

আগের দুই ম্যাচ হারা নিউজিল্যান্ডের জন্য এ ম্যাচটি মূলত সিরিজে নিজেদের সম্ভাবনা বাঁচিয়ে রাখার। কিন্তু টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে সে পথে আগাতে পারেননি কেন উইলিয়ামস, মার্টিন গাপটিলরা। অভিজ্ঞ মিডলঅর্ডার রস টেলর ৯৩ রানের ইনিংস খেলে দলের মুখরক্ষা করেছেন।

টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২৬ রানেই সাজঘরে ফিরে যান দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল (১৩) এবং কলিন মুনরো (৭)। রস টেলরের সঙ্গে তৃতীয় উইকেট জুটিতে প্রতিরোধের আভাস দিলেও তা পারেননি ২৮ রান করে আউট হওয়া অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

তবে চতুর্থ উইকেটে টম লাথামকে সঙ্গী করে ঠিকই ঘুরে দাঁড়ান টেলর। দুজন মিলে যোগ করেন ১১৯ রান, দুজনই তুলে নেন নিজেদের ফিফটি। তবে দলীয় ১৭৮ রানের মাথায় লাথাম ৫১ রান করে ফিরে গেলে বড় সংগ্রহ পাওয়া সম্ভব হয়নি নিউজিল্যান্ডের।

লাথাম আউট হলেও দলকে টেনে নিচ্ছিলেন টেলর, তবে পাচ্ছিলেন না যথাযথ সঙ্গ। অনেকটা একা লড়েই দলকে ২০০ পার করান টেলর। ৪৬তম ওভারের প্রথম বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেয়ার আগে খেলেন ৯৩ রানের ইনিংস। মাত্র ৭ রানের জন্য হাতছাড়া হয় ক্যারিয়ারের ২১তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। শেষদিকে ডগ ব্রেসওয়েল ১৫ ও ইশ সোধি ১২ রান করে ২৪৩ রানে অলআউট হয় নিউজিল্যান্ড।

ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন মোহাম্মদ শামী। এছাড়া হার্দিক পান্ডিয়া, ইয়ুজভেন্দ্র চাহাল এবং ভুবনেশ্বর কুমার নেন ২টি করে উইকেট।