সিটি নির্বাচন বানচালের শঙ্কা আওয়ামী লীগের

সিটি নির্বাচন বানচালের শঙ্কা আওয়ামী লীগের

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন বানচালের আশঙ্কা করছে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ। সোমবার (২৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন ভবনে দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য এইচ টি ইমামের নেতৃত্বে ১২ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে এসে এই শঙ্কা প্রকাশ করেন।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী ইসির সঙ্গে বৈঠক করে আওয়ামী লীগ।া্
 
রাজধানীর গোপীবাগে দক্ষিণ সিটির বিএনপি প্রার্থী ইশরাক হোসেন ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে রোববার (২৬ জানুয়ারি) মারামারির ঘটনা ঘটে। বৈঠক শেষে এই প্রসঙ্গ তুলে এইচ টি ইমাম বলেন, ‘গতকালের পুরো ঘটনাটি সাজানো, পূর্বপরিকল্পিত এবং এমনভাবে করেছে বিএনপির ক্যাডাররা।’

তিনি বলেন, আমাদের কাছে তথ্য আছে, ২০১৪ থেকে ২০১৫ সালে বিএনপির সন্ত্রাসীরা দেশের বিভিন্ন জায়গায় সন্ত্রাস করেছিল। পরে যারা ছাড়া পেয়েছে। তাদের অনেককেই ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন জায়গা থেকে অস্ত্রসজ্জিত হয়ে, দলগতভাবে তারা ঢাকার বিভিন্ন জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে। সুযোগ মতো তারা পরিস্থিতি এমন সৃষ্টি করতে পারে, যাতে নির্বাচন বানচাল হয়ে যায়।

তার দাবি, ‘এখানে সবচেয়ে বড় ভূমিকা বোধহয় রাখছে জামায়াত-শিবিরের সশস্ত্র ক্যাডাররা। তাদেরই আনা হচ্ছে। গতকাল যে আক্রমণ করা হয়েছে, যে অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে, সেগুলোর তথ্য আমরা নির্বাচন কমিশনকে দিয়েছি। আমাদের অনেকেই আহত হয়েছেন। যাদের শরীরে গুলির আঘাত আছে, তারা হাসপাতালেও আছেন। সেসব প্রমাণও আমাদের কাছে আছে।’

‘সরকারি দলে যখন আছি, আমরা তো চাইব, নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও গ্রহণযোগ্য হোক। আমরা কী চাইব, মারামারি করে নির্বাচন নষ্ট হোক’, যোগ করেন এইচ টি ইমাম।