সার্বিয়ার কাছেও পয়েন্ট খোয়ালো রোনালদোর পর্তুগাল

সার্বিয়ার কাছেও পয়েন্ট খোয়ালো রোনালদোর পর্তুগাল

জাতীয় দলে ফিরে দুই ম্যাচ খেলে ফেললেও জয়ের দেখা পেলেন না পর্তুগিজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ইউরো-২০২০ বাছাইপর্ব উপলক্ষ্যে প্রায় ৮ মাস পর পর্তুগাল জাতীয় দলে ফিরেছেন রোনালদো।

দলের সঙ্গে যোগ দিয়ে ইউক্রেনের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে গোলশূন্য ড্র করেছিল রোনালদোর পর্তুগাল। সোমবার রাতে সার্বিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে পর্তুগালের ফলাফল ১-১। টানা দুই ম্যাচে ড্র করে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের সমীকরণ কঠিন করে তুলেছে পর্তুগাল।


ঘরের মাঠে সার্বিয়ার রক্ষণভাগকে একের পর এক আক্রমণে ব্যতিব্যস্ত করে রাখে পর্তুগাল। পুরো ম্যাচে ২৮বার প্রতিপক্ষের রক্ষণে হানা দেয় পর্তুগাল। এর মধ্যে ৬টি শট লক্ষ্য বরাবর থাকলেও গোল হয় মাত্র একটি।

তবে ম্যাচের ৭ম মিনিটে প্রথম গোলটি করে সার্বিয়াই। ডি-বক্সের মধ্যে সার্বিয়ান মিডফিল্ডার মিয়াত গাচিনোভিচকে গোলরক্ষক রুই প্যাট্রিসিও ফাউল করলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। স্পট কিকে গোলটি করেন আয়াক্সের ফরোয়ার্ড ডুসান ট্যাডিচ।

মিনিট দুয়েক বাদেই গোল পেতে পারতো পর্তুগাল। কিন্তু ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জোরালো শট কর্নারের বিনিময়ে ফিরিয়ে দেন সার্বিয়ান গোলরক্ষক। ম্যাচের ঘড়ির কাঁটা ২৫ মিনিট পেরুনোর আগেই বড় ধাক্কা খায় পর্তুগিজরা।

দলের অধিনায়ক ও সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো পায়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন। তবে ম্যাচের ৪২তম মিনিটে সমতাসূচক গোল ঠিকই পেয়ে যায় তারা। একক নৈপুণ্যে পর্তুগালকে সমতায় ফেরান দানিলো পেরেইরা। মাঝমাঠ থেকে বল পায়ে অনেকটা এগিয়ে প্রায় ২২ গজ দূর থেকে জোরালো উঁচু শটে গোলটি করেন পোর্তোর এই মিডফিল্ডার।

ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে গোল করতে ব্যর্থ হয় দুই দলই। ফলে ১-১ গোলের সমতায় শেষ হয় ম্যাচ। দুই ম্যাচে দুই ড্রয়ে ২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে পর্তুগাল। লাক্সেমবার্গের মাঠে ২-১ গোলে জেতা ইউক্রেন সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাক্সেমবার্গের পয়েন্ট ৩।