সবার আগে রশিদ খান, আফগানিস্তানেরই ৪ জন

সবার আগে রশিদ খান, আফগানিস্তানেরই ৪ জন

ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের (ইসিবি) আয়োজনে দ্য হান্ড্রেস ক্রিকেট (১০০ বলের ক্রিকেট) নিয়ে আগ্রহের কমতি নেই পুরো ক্রিকেট বিশ্বে। টুর্নামেন্টে কয়টি দল হচ্ছে, কে কোচ হচ্ছেন কিংবা কোন দল কোন ক্রিকেটারকে দলে নিচ্ছে- তা জানার তুমুল আগ্রহ ক্রিকেটপ্রেমীদের।

তাদের সেই আগ্রহের কিছুটা অবসান ঘটেছে রোববার রাতে। লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো দ্য হান্ড্রেড ক্রিকেটের প্লেয়ার্স ড্রাফট। মোট ৭টি ক্যাটাগরিতে দেশি (কাউন্টিতে খেলা দেশি-বিদেশি ক্রিকেটার) এবং বিদেশি ক্রিকেটারদের ড্রাফট অনুষ্ঠিত হয়।

দ্য হান্ড্রেডে দল হচ্ছে আটটি। তাদের জন্য শর্ত হচ্ছে, সর্বোচ্চ ৩ জন করে বিদেশী ক্রিকেটার নিতে পারবে। মোট খেলোয়াড় সংখ্যা হবে ১৫ জনের।

এর মধ্যে আট দলের জন্য আটটি জায়গা আগেই ঠিক করে রাখা। ড্রাফটের আগেই ইংল্যান্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তিভুক্ত খেলোয়াড়দের থেকে একজন করে দলভুক্ত করে নেয়ার সুযোগ পেয়েছে দলগুলো। বাকি স্থান পূরণ করা হয়েছে ড্রাফট থেকে।

ইসিবি’র সেন্ট্রাল কন্ট্রাক্ট তালিকা থেকে দ্য হান্ড্রেডের ঘরে ঢুকেছেন জো রুট, জোফরা আর্চার, বেন স্টোকস, জনি বোয়ারেস্ট, স্যাম কুরান, জস বাটলার, ররি বার্নস ও ক্রিস ওকস।

ড্রাফটে শুরুতেই খেলোয়াড় দলভূক্ত করার সুযোগ পেয়েছে ট্রেন্ট রকেট। সবার আগ্রহের কেন্দ্রে ছিল এই দলটি। তারা সর্বপ্রথম সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকের কোন খেলোয়াড়কে ডাক দেয়।

সবাইকে অবাক করে দিয়ে সবার আগে ১ লাখ ২৫ হাজার পাউন্ড মূল্যের ক্রিকেটার হিসেবে ট্রেন্ট রকেটস বেছে নেয় আফগানিস্তানের লেগ স্পিনার রশিদ খানকে। বিশ্বের অনেক সেরা সেরা ক্রিকেটার ছিলেন ওই তালিকায়। কিন্তু আফগান রশিদ খান টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এতটাই আকাশচুম্বি হয়ে উঠেছেন, কোটি টাকা মূল্যে তাকে দলে টেনে নিতে দ্বীধাবোধ করছে না কেউ।

আট দল ৩জন করে মোট ২৪জন বিদেশি ক্রিকেটারকে দলভুক্ত করার সুযোগ পেয়েছে। সেখানে আফগানিস্তানেরই রয়েছেন চারজন। রশিদ খান ছাড়াও এই দলে রয়েছেন মুজিব-উর রহমান, মোহাম্মদ নবি এবং কায়েস আহমেদ। চারজনই স্পিনার। এর মধ্যে দু’জন লেগ স্পিনার এবং দু’জন অফ স্পিনার। মোহাম্মদ নবি তো আবার অলরাউন্ডারও বটে।

শুধু তাই নয়, ইংল্যান্ডের এই হাই প্রোফাইল হান্ড্রেডস ক্রিকেটে নেপালের মত দেশেরও একজন ক্রিকেটার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি হচ্ছেন সন্দিপ লামিছানে। রয়েছেন নেদারল্যান্ডসের এক ক্রিকেটার- রায়ান টেন ডেসকাট। অথচ, ড্রাফটের তালিকায় সাকিব আল হাসানসহ ১১জন বাংলাদেশি ক্রিকেটারের নাম থাকা সত্ত্বেও কাউকে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেনি ফ্রাঞ্জাইজিরা।

টি-টোয়েন্টিতে আকাশচুম্বী চাহিদা থাকা সত্ত্বেও ড্রাফটে কোনো ফ্রাঞ্চাইজি কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেনি ক্রিস গেইল, লাসিথ মালিঙ্গা কিংবা কাগিসো রাবাদার মত ক্রিকেটারদের।