শ্রীলঙ্কায় বোরকা নিষিদ্ধ

শ্রীলঙ্কায় বোরকা নিষিদ্ধ

বোরকা, নিকাবসহ মুখ ঢেকে রাখে এমন সব পোশাক নিষিদ্ধ করেছে শ্রীলঙ্কা। গত সপ্তাহে দেশটিতে ভয়াবহ হামলার ঘটনার পর নিরাপত্তার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ভয়াবহ ওই সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় ২৫৩ জন নিহত এবং আরও পাঁচ শতাধিক মানুষ আহত হয়। গতকাল প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা বিশেষ ক্ষমতা বলে একটি নির্দেশিকা জারি করেন৷ মুখ ঢেকে রাখে এমন সব ধরনের পোশাককে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। সোমবার থেকেই এটি কার্যকর হবে বলে জানানো হয়েছে।


নতুন এই নিষেধাজ্ঞার কারণে দেশটির মুসলিম নারীরা এখন থেকে আর বোরকা, নিকাব বা মুখ ঢেকে রাখে এমন কোন পোশাক পরতে পারবেন না। তবে শুধু মাথায় ওড়না বা হিজাব পরতে পারবেন।

গত সপ্তাহে দেশটির একজন এমপি বোরকা, হিজাব ও মুখ ঢেকে রাখা হয় এমন যেকোনো ধর্মীয় রীতি মেনে তৈরি পোশাক নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব তোলেন।

তিনি সিএনএনকে বলেন, তার বিশ্বাস মুখ ঢেখে রাখার ব্যাপারটা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি স্বরূপ। মুখ ঢেকে রাখার কারণে কাউকে চিহ্নিত করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে।

বোরকা নিষিদ্ধ করতে কয়েক দিন আগে শ্রীলঙ্কার পার্লামেন্টে একটি বেসরকারি প্রস্তাব পেশ করা হয়। সাংসদ অশু মারাসিংঘে এক প্রস্তাবে বলেন, বোরকা শ্রীলঙ্কার মুসলিম নারীদের সনাতন পোশাক নয়। ইস্টার সানডের ওই হামলার পর থেকে দেশটিতে অনেক মুসলিমকেই বিভিন্ন স্থানে আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে ৷ অনেকে আবার বাধ্য হয়েই বোরকা পরা বন্ধ করে দিয়েছেন ৷