শীতে কাঁপছে কুড়িগ্রাম

শীতে কাঁপছে কুড়িগ্রাম

দেশের উত্তরের জনপদ কুড়িগ্রাম কাঁপছে শীতে। গতকাল রোববার কুড়িগ্রামের তাপমাত্রা ছিল দেশের সর্বনিম্ন। আজ সোমবার ভোর ৬টায় জেলার তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সকাল ৯টায় ৮ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
কুড়িগ্রামের রাজারহাট আবহাওয়া কৃষি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র পর্যবেক্ষক মোফাখখারুল ইসলাম জানান, মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ কুড়িগ্রামের উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা তীব্র শৈত্যপ্রবাহের রুপ নিতে পারে।
এদিকে ঘন কুয়াশা আর উত্তরের হিমেল হাওয়ায় কুড়িগ্রামের জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ক্রমাগত বাড়ছে শীতের প্রকোপ। বৃষ্টির মতো ঝরছে শিশির। ঠাণ্ডায় চরম বিপাকে পড়েছে শ্রমজীবী ও ছিন্নমূল মানুষসহ পশুপাখি। ঘন কুয়াশা ও কনকনে ঠাণ্ডায় বিশেষ কাজ ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না মানুষ।
গত তিনটি ও চলমান শৈত্যপ্রবাহের প্রভাবে উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামের ১৬টি নদ-নদীর ৫ শতাধিক চরাঞ্চলের মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। এখানকার জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত। ব্যাহত হয়ে পড়েছে মানুষের স্বাভাবিক কাজ।
তীব্র শীত ও অতিরিক্ত ঠাণ্ডায় কুড়িগ্রাম জেলার জেনারেল হাসপাতালসহ উপজেলার বিভিন্ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়াসহ শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে রোগী। এদের বেশিরভাগ শিশু ও বৃদ্ধ।
শীতের প্রভাব পড়েছে কৃষিতে। চলতি বোরো মৌসুমের বীজতলা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ঘন কুয়াশার কারণে। এছাড়া আলু ও সবজি চাষেও প্রভাব পড়েছে।
কৃষি অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এবার বোরো বীজতলা রয়েছে ৫০৯৪ হেক্টর এবং আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ১ লাখ ১১ হাজার হেক্টর।
জেলা ত্রাণ শাখা সূত্রে জানা গেছে, শীতার্ত মানুষের জন্য ৬১ হাজার ৫১৪টি কম্বল উপজেলা পর্যায়ে বিতরণ করা হয়েছে।