শিগগির উন্মুক্ত হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভাস্কর্য

শিগগির উন্মুক্ত হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভাস্কর্য

ভারতে ‘আয়রন ম্যান অব ইন্ডিয়া’ খ্যাত সরদার বল্লভভাইয়ের সম্মানে নির্মিত বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভাস্কর্য পুরোপুরিভাবে উন্মুক্ত হচ্ছে শিগগিরই।

আসছে ৩১ অক্টোবর দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ‘স্ট্যাচু অব ইউনিটি’ নামে ১৮২ মিটার (৬০০ ফুট) উঁচু রেকর্ড গড়া ওই ভাস্কর্যটির উদ্বোধন করবেন। যদিও এটি উদ্বোধনের আগ পর্যন্ত ১২৮ মিটার উচ্চতা নিয়ে চীনের স্প্রিং টেম্পল ভাস্কর্য বিশ্বের শীর্ষে।

সরদার বল্লভভাই প্যাটেল ভারতের প্রথম স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং তিনি দেশটির স্বাধীনতা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন। আর এসবের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রায় দুই হাজার ৯শ কোটি রুপি খরচ করে তার এই ভাস্কর্য করা হলো দেশের গুজরাটে।

রাজ্যটির আহমেদাবাদ শহর থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে সাদু বেত এলাকায় ‘স্প্রিং টেম্পল’ ভাস্কর্যকে পাল্লা দিয়ে ‘স্ট্যাচু অব ইউনিটি’ নির্মাণ করা হয়েছে।

এদিকে, দর্শনার্থীদের দেখার জন্য স্মৃতিস্তম্ভটিতে একটি গ্যালারি করা হবে। সেটির উচ্চতা হবে ১৯৩ মিটার। যাতে একসঙ্গে ২০০ জনকে অর্ন্তভুক্ত করা যাবে। এছাড়া বল্লভভাইয়ের স্মৃতিস্তম্ভটি সাদু বেত এলাকার প্রায় সোয়া তিন কিলোমিটার দূরে নর্মদা বাঁধের কাছে দৃশ্যমান।

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভাস্কর্য। ছবি: সংগৃহীত
বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভাস্কর্য। ছবি: সংগৃহীত
ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে বল্লভভাই যে অবদান রেখেছিলেন তার ‘আংশিক প্রতিদান’ হিসেবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওই ভাস্কর্যটি তাকে উৎসর্গ করা হবে। সেইসঙ্গে এর জাদুঘরে সংরক্ষণ করা হবে বল্লভভাইয়ের জীবনীসহ দেশের মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন ঐতিহাসিক ও গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন। এতে স্থান পাবে বল্লভভাইয়েরও বিভিন্ন নিদর্শন।

এর আগে ২০১৩ সালের ৩১ অক্টোবর নরেন্দ্র মোদী যখন গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, তখন তিনি ওই ভাস্কর্যটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। যা নির্মাণ কাজ শেষে সমান পাঁচ বছর পর উদ্বোধন হতে যাচ্ছে।

ভারতের রাজনীতিবিদ ভূপেন্দ্রসিন চৌদাসমার মতে, ভাস্কর্যটি দেখার জন্য প্রতিদিন প্রায় ১৫ হাজার পর্যটক এখানে ঘুরতে আসবেন।