শিক্ষার্থী রুম্পা হত্যা কললিস্টের সূত্র ধরে রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা

শিক্ষার্থী রুম্পা হত্যা কললিস্টের সূত্র ধরে রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ছাত্রী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পা (২০) হত্যা মামলা তদন্ত করছে পুলিশ। তার মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে। গতকাল শুক্রবার সকালে রমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, বুধবার সন্ধ্যার পর রুম্পা বাসা থেকে বেরিয়েছিলেন। তিনি নিজের মোবাইল ফোনটিও সঙ্গে নেননি। রুম্পার মৃত্যুর বিষয়টি এখনো পুরোপুরি পরিষ্কার নয়। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের অপেক্ষায় আছি। থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রুম্পার মৃত্যু নিয়ে রহস্য থাকলেও শিগগিরই তা উদঘাটন করা হবে। এজন্য রুম্পার মোবাইলের কললিস্ট চেক করা হচ্ছে।

 এর মাধ্যমেই আসল ঘটনা জানা যাবে। বাসা থেকে বের হওয়ার আগে রুম্পাকে কে ফোন দিয়েছিল, কেন দিয়েছিল, সেসব এখন তদন্তের বিষয়। এক্ষেত্রে প্রেমঘটিত বিষয়কেও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। জানা গেছে, ঘটনার দিন রুম্পা দুটি টিউশনি শেষে সন্ধ্যায় বাসায় ফেরেন। পরে কাজ আছে বলে বাসা থেকে বের হন তিনি। বাসা থেকে নিচে নেমে নিজের ব্যবহৃত মুঠোফোন ও জুতো বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে এক জোড়া পুরনো স্যান্ডেল পায়ে দিয়ে চলে যান। রাতে আর বাসায় ফেরেননি তিনি

 বুধবার রাতে রাজধানীর সিদ্ধেশ্বরীর সার্কুলার রোডে কে বা কারা রুম্পাকে উচু ভবন থেকে ফেলে দেয়। দুই ভবনের মাঝখানে তার লাশ পায় পুলিশ। পরে ওই মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে নেয়া হয়। রুম্পাকে হত্যার অভিযোগে রমনা থানায় মামলা করে পুলিশ। রুম্পা মালিবাগের শান্তিবাগে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকতেন। তার বাবা রোকনউদ্দিন হবিগঞ্জে পুলিশের পরিদর্শক হিসেবে কমর্রত আছেন।