শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তি

এমপিওভুক্তির দাবিতে নন- এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক- কর্মচারি ফেডারেশনের ব্যানারে গত মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন। তাদের দাবি সরকার স্বীকৃত সব মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে হবে। ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সরকার কর্তৃক স্বীকৃত নন-এমপিও স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার সংখ্যা এখন পাঁচ হাজার ২৪২টি। এতে ৮০ হাজারের মত শিক্ষক-কর্মচারি চাকরি করছেন।

 যাদের বেশির ভাগই বিনা বেতনে চাকরি চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু এ অবস্থায় মানসম্মন্ন শিক্ষাদান কার্যক্রম চালানো অসম্ভব হয়ে পড়েছে। তাই তারা অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন। তবে পরবর্তিতে এই আন্দোলন অনশনেরও রূপ নিতে পারে। বর্তমানে দেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে প্রায় সাড়ে ২৬ হাজার। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারি ৪ লাখের বেশি। এর বাইরে স্বীকৃতি প্রাপ্ত হলেও নন-এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠান আছে ৫ হাজার ২৪২টি।

 এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারির সংখ্যা ৭৫ হাজার থেকে ৮০ হাজার। সর্বশেষ ২০১০ সালে ১ হাজার ৬২৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছিল। এরপর আর হয়নি। তখন থেকেই নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারিরা এমপিওভুক্তির দাবিতে আন্দোলন করে আসছেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার জন্য সংসদ সদস্যদের পক্ষ থেকেও চাপ আছে। প্রয়োজনীয় অর্থ সংস্থানের ব্যবস্থা করে নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে এমপিওভুক্ত করতে সরকার আন্তরিকতার পরিচয় দেবে- এই প্রত্যাশা।