লড়াইটা বেয়ারস্টো-রশিদের ফিরে আসার

লড়াইটা বেয়ারস্টো-রশিদের ফিরে আসার

আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেট মাত্র একবার দেখা হয়েছে ইংল্যান্ড -আফগানিস্তানের। গত বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে লড়ে এই দুই দল। সিডনিতে অনুষ্ঠিত সেই ম্যাচে সহজেই জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। ডাকওয়ার্থ-লুইসে ইংলিশরা জেতে ৯ উইকেটে।

এরপর দীর্ঘ ৪ বছর কেটে গেলেও আফগানদের বিপক্ষে আর মাঠে নামা হয়নি ইংল্যান্ডের। বিশ্বকাপ শুরুর আগে অবশ্য ওয়ার্ম-ম্যাচে দেখা হয়েছিল এ দুই দলের। সেই ম্যাচেও ইংলিশদের কাছে পাত্তা পায়নি আফগানিস্তান।


আজ (মঙ্গলবার) ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডেও আফগানদের বিপক্ষে তাই ক্রোশ ব্যবধান এগিয়ে থেকেই মাঠে নামবে এউইন মরগ্যানের। যদিও আফগান ক্রিকেটার হাশমতউল্লাহ শহীদি মনে করেন ব্যাটিংয়ের দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে পারলেই ইংল্যান্ডের মতো হট-ফেভারিট দলকেও হারিয়ে দেয়ার সামর্থ্য আছে তাদের।

এবার এক নজরে এই দুই দলের দুই তারকা ক্রিকেটার সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক। যারা কি-না আজকের ম্যাচে ব্যাট বা বল হাতে ছড়ি ঘুরিয়ে দলকে এনে দিতে পারেন জয় :

জনি বেয়ারস্টো : বিশ্বকাপটা ভালো কাটছে না ইংল্যান্ড দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোর। ৪টি ম্যাচ খেলে তার উইলো থেকে এসেছে ১২৮ রান। যেখানে তার সতীর্থ জো রুট ২ সেঞ্চুরি, ওপেনিং সঙ্গী জেসন রয় ১ সেঞ্চুরি এবং জস বাটলার ১টি করে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন সেখানে এখন পর্যন্ত মাত্র ১টি ফিফটি করেছেন তিনি। তুলনামূলক দুর্বল দল আফগানিস্তানের বিপক্ষে আজ তাই হারানো আত্মবিশ্বাস খুঁজে পাওয়ার জন্য খেলবেন বেয়ারস্টো। আর তা যদি হয় তবে আফগান বোলারদের মাথা কুটেই মরতে হবে। কেননা এই ডানহাতি ওপেনার যে কতটা বিধ্বংসী হতে পারে তা কারো অজানা নয়।

রশিদ খান : আফগানিস্তানের ঘূর্ণি জাদুকর এখনো সে অর্থে তেমন কিছু করে দেখাতে পারেনি এবারের বিশ্বকাপে। এখন পর্যন্ত খরুচে বোলিং করে মাত্র ৩ উইকেটই নিতে পেরেছেন তিনি। তার দলও তাই ভুগছে। এখন পর্যন্ত জয়ের কোনো দেখা পায়নি তারা। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কল্পনাতীত কিছু করে দেখাতে চাইলে তাই বেশ ভালোভাবেই জ্বলে উঠতে হবে এই স্পিনারকে।