রাজশাহীতে ২ সন্তানের জননীকে বিয়ে করতে গিয়ে কলেজছাত্র কারাগারে

রাজশাহীতে ২ সন্তানের জননীকে বিয়ে করতে গিয়ে কলেজছাত্র কারাগারে

রাজশাহী প্রতিনিধি : প্রেমিকের বয়স ১৭ বছর। ছেলেটি কলেজছাত্র। কিন্তু তার প্রেমিকা বিবাহিত এবং দুই সন্তানের জননী। মোবাইলে প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে কলেজছাত্র মারুফ হোসেন বিয়ের দাবিতে তার প্রেমিকার বাড়ির সামনে অবস্থান নিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত বিয়ে হয়নি। পুলিশ তাকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলায়। মারুফের বিরুদ্ধে ওই নারীকে উত্ত্যক্তের অভিযোগ এনে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা হয়েছে। তার প্রেমিকার বাবা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে মামলাটি করেছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। মারুফ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার একডালা গ্রামের মোখলেসুর রহমান মুকুলের ছেলে। মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহমেদ বলেন, ওই নারীর বাবার বাড়ি মোহনপুরের চকবিরহী গ্রামে। তার শ্বশুরবাড়ি পাশের বাগমারা উপজেলায়। তার স্বামী ঢাকায় থাকেন। আর ওই নারী দুই সন্তান নিয়ে মোহনপুরেই থাকেন।

 তিনি একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরিও করেন। তাই দুই সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়িতেই তার বসবাস। ৯ মাস আগে মোবাইল ফোনে মারুফের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু স্বামী-সন্তান থাকায় ওই নারী মারুফকে বিয়ে করতে রাজি হননি। কিন্তু মারুফও নাছোড় বান্দা। বিয়ের দাবিতে সে গত বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে প্রেমিকার বাড়ির সামনে গিয়ে অনশন শুরু করে। স্থানীয়রা তাকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করে। কিন্তু সে কিছুতেই কিছু বোঝেনি। বাধ্য হয়ে গ্রামবাসী থানায় জানান। পরে রাতে তাকে আটক করা হয়। রাতেই নারীর বাবা মারুফের বিরুদ্ধে মামলা করেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।