রংপুরে মরা গাছ দেখিয়ে রেলের জীবন্ত গাছ বিক্রি

রংপুরে মরা গাছ দেখিয়ে রেলের জীবন্ত গাছ বিক্রি

রংপুর  প্রতিনিধি : বন বিভাগের অনুমোতি ছাড়াই মরা গাছ দেখিয়ে বিশালাকৃতির জীবন্ত গাছ বিক্রি করে দিয়েছেন রংপুর রেলওয়ে বিভাগ। গতকাল মঙ্গলবার  নগরীর হেলাল জুটমিল এলাকায় রেলের এই গাছগুলো কাটতে দেখা যায়। রংপুর রেল সূত্রে জানা গেছে, রংপুর ও মিরবাগ স্টেশনের জায়গার বিশালাকৃতির ৬টি গাছ মরা দেখিয়ে গত এক মাস আগে দিনাজপুর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ কোটেশনের মাধ্যমে ৩৬ হাজার টাকায় বিক্রি করেন রংপুরের গাছ ব্যবসায়ী মিলন মিয়ার কাছে  । গাছগুলোর মধ্যে রয়েছে শিমুল ও রেইন ট্রি। এই গাছগুলো এখন কাটছে সাব কন্ট্রাক নেওয়া রফিকুল ইসলাম। তিনি জানান, তিন হাত বদলের পর তিনি ১ লাখ ২০ হাজার টাকায় গাছগুলো কিনেছেন। রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, প্রথমে কোটেশনের মাধ্যমে গাছগুলো কিনে নেন মিলন নামে এক ব্যক্তি। মিলনের হাত থেকে ইব্রাহিমর কাছে। সব শেষ কিনে নেন রফিকুল ইসলাম।

সরেজমিনে  গিয়ে দেখা গেছে, বিশালাকৃতির ৪টি শিমুল গাছের মধ্যে ২টি জীবন্ত রয়েছে। বাকি দুটি মরা। রেলওয়ে বিভাগ স্বীকার করেছে মিরবাগ রেলওয়ে স্টেশনের জায়গায় থাকা ২টি রেইনট্রি গাছ জীবন্ত রয়েছে। গাছগুলো রয়েছে রেললাইন থেকে কমপক্ষে ৫০ মিটার দুরে। যা ঝুঁকির মধ্যে পড়ে না। এব্যাপারে রংপুর রেলওয়ে স্টেশনের সুপাররেন্টন মোজাম্মেল হক জানান, রংপুরের গাছগুলো দিনাজপুর রেল কর্তৃপক্ষের। বিষয়টি তারাই ভাল বলতে পারবে। দিনাজপুর রেলওয়ে এজিএনডিজিপি প্রদীপ কুমার রায় বলেন, ট্রেন চলাচলের সমস্যার কারণে ৬টি মরা গাছ কোটেশনের মাধ্যমে বিক্রি হয়েছে। বন বিভাগের অনুমতি আছে কিনা এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন,  রেল বিভাগের ক্ষেত্রে গাছ বিক্রির বিষয়ে কারো অনুাতির প্রয়োজন নেই। এব্যাপারে রংপুর বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন বলেন, বনবিভাগের অনুমতি না নিয়েই রেলওয়ে বিভাগ গাছগুলো বিক্রি করেছে যা অন্যায়।