রংপুরে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ই-সিগারেট নেশায় আসক্ত হচ্ছে

রংপুরে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ই-সিগারেট নেশায় আসক্ত হচ্ছে

রংপুর জেলা প্রতিনিধি : রংপুর অঞ্চলের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও তরুণ-যুবারা তামাকপণ্যের নতুন ও আধুনিক রূপ ‘ই-সিগারেটের’ ভয়ঙ্কর নেশায় আসক্ত হচ্ছে। তামাক সেবনের প্রবণতা দিন দিন যেন বেড়েই চলেছে। সচেতনমহল জানান, বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ই-সিগারেটের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। অনলাইনে ক্রয়-বিক্রয়ের ওয়েবসাইটে এবং সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে হরেক রকম দামের ও নানা ফ্লেভারের ই-সিগারেটের বিজ্ঞাপন দেখা যাচ্ছে। সেখান থেকে সেবনকারীরা একটি পছন্দ করে সেটি ক্রয়ের অর্ডার করে। দুই-তিন দিনের মধ্যে হাতে পেয়ে যায় সেই সিগারেট। এছাড়া বন্ধুর ই-সিগারেট সেবন করা দেখে এ নেশায় আসক্ত হচ্ছে অনেকে। অনেকে ধূমপান ছেড়ে দেয়ার বিকল্প হিসেবে এটি সেবন করছে। রংপুর সুপার মার্কেটের বিভিন্ন দোকানেও এসব ই-সিগারেট পাওয়া যাচ্ছে।রংপুরে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা
ই-সিগারেট নেশায় আসক্ত হচ্ছে

স্থানীয়দের অভিযোগ, শুধু বেরোবি কিংবা কারমাইকেল কলেজের শিক্ষার্থীরাই নয়, রংপুরের বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বড় অংশ ধীরে ধীরে এ নেশায় আসক্ত হচ্ছে। জেলা পরিষদ মার্কেট, সুপার মার্কেট, রাজা রামমোহন মার্কেট, রংপুর সিটি বাজার, লালবাগ বাজার, চক বাজারসহ শহরের বেশ কিছু দোকানে ই-সিগারেট বিক্রি হয় বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। রংপুর পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারের নিউরো মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ আবু হানিফ বলেন, ই-সিগারেটের প্রধান উপকরণ নিকোটিন থেকে দ্রুত আসক্তি তৈরি হয়। সিগারেট ছাড়তে চেয়ে যারা এটি ব্যবহার করেন তাদের এর ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যা থেকে দেখা দিতে পারে ফুসফুসের বিভিন্ন অসুখ। সাধারণ সিগারেটের চেয়ে এটি ৩০ থেকে ৪০ গুণ বেশি ক্ষতিকর।’সুসাশনের জন্য নাগরিক-সুজন’র রংপুর মহানগর সভাপতি খন্দকার ফখরুল আনাম বেঞ্জু বলেন, ‘অনলাইনে পণ্য বিক্রয়ের ওয়েবসাইট এবং বিভিন্ন ই-সিগারেটের নিজস্ব পেইজে এই ক্ষতিকর পণ্যটির বিজ্ঞাপনে ছেয়ে গেছে। ফলে বিশেষ ধরনের নেশায় আকৃষ্ট হয়ের রংপুরসহ দেশের তরুণ প্রজন্মের বড় একটি অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই সরকারকে এই মরণনেশার ভয়ঙ্কর থাবা থেকে তরুণ প্রজন্মকে বাঁচানোর উদ্যোগ নেয়ার দাবি জানাচ্ছি।’