রংপুরে কলেজ ছাত্রী অপহরণের চেষ্টা মাইক্রোসহ গ্রেপ্তার ৪

রংপুরে কলেজ ছাত্রী অপহরণের চেষ্টা মাইক্রোসহ গ্রেপ্তার ৪

রংপুর জেলা প্রতিনিধি :  রংপুর নগরীর ৮নং ওয়ার্ডের সাহেবগঞ্জ এলাকা থেকে  হাত-পা,মুখ বেধে এক কলেজছাত্রীকে (১৭) অপহরণের সময় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত শনিবার সন্ধ্যায় সাহেবগঞ্জ-হারাগাছ সড়কের বটতলা এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। কলেজছাত্রী নগরীর ৮নং ওয়ার্ডের চাঁদকুটি এলাকার বাসিন্দা ও হারাগাছ সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে হারাগাছ পৌর এলাকার নিউ কাজীপাড়া কসাইটারী মহল¬ার তৈয়ব আলীর ছেলে শুকুর আলী (১৭), আইয়ুব আলীর ছেলে নাসিম মাহমুদ (১৭) মৃত. মফিজ উদ্দিনের ছেলে আলম মিয়া (২৭) এবং কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের ধুমেরকুঠি পশ্চিমপাড়া গ্রামের আজিজুল ইসলামের ছেলে মাইক্রোবাসচালক মনারুল ইসলাম (৩০)।
 
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় থেকে হারাগাছ পৌর এলাকার হাজিরপাড়া মহল্ল¬ার মৃত আনোয়ারুল ইসলাম পেয়ারার ছেলে আসাদুজ্জামান শুভ (২২) ওই কলেজছাত্রীকে বিভিন্ন সময় উত্যক্ত ও প্রেম নিবেদন করে আসছিল। এতে কলেজ ছাত্রী রাজি হয়নি। এ নিয়ে একাধিকবার থানা পুলিশসহ স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠক হয়। গত শনিবার রংপুর থেকে প্রাইভেট পড়া শেষে অটোরিকশাযোগে বাড়ি ফেরার পথে সন্ধ্যার দিকে শুভর লোকজন একটি মাইক্রোবাস ভাড়া করে সাহেবগঞ্জ-হারাগাছ সড়কের বটতলা কলেজ ছাত্রীর পথরোধ করে। এ সময় অটোচালকের গলায় ছুরি ধরে কলেজ ছাত্রীকে অটো থেকে নামিয়ে হাত-পা ও মুখ বেঁধে অপহরণের চেষ্টা করা হয়।

 তখন অটোচালক চিৎকার দিলে পাশের ইটভাটার শ্রমিকরা এগিয়ে এসে চারজনকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। নগরীর হারাগাছ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মাইক্রোবাসসহ তাদেরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। হারাগাছ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাজমুল কাদের জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃতরা শুভর কথামতো কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করতে চেয়েছিল বলে স্বীকার করেছে।  এ ঘটনায় হারাগাছ থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী/০৩) এর ৭/৩০ ধারায় মামলা করা হয়েছে।