রংপুর চিড়িয়াখানায় বয়সের ভারে সিংহ জুটির অপূর্ণ সংসার

রংপুর চিড়িয়াখানায় বয়সের ভারে সিংহ জুটির অপূর্ণ সংসার

হুমায়ুন কবীর মানিক, রংপুর জেলা প্রতিনিধি ঃ সুদূর চট্টগ্রাম থেকে রংপুরে এসেছিলেন বর্ষা রাণী। ঘর বাঁধার স্বপ্ন ছিল রাজার ভাই বাদশার সাথে। রাজাও ঘর বাধার স্বপ্নে চট্টগ্রামে যান বর্ষা রাণীর বোন ঝর্ণার সাথে ঘর বাধতে। কিন্তু ঘর বাধলেও গত ৪ বছরে তাদের মধ্যে বনিবনা হয়নি। একত্রে থাকলেও বংশ বিস্তার করতে পারেনি দুই জুটির কেউই। এই ঘর বাঁধার বিষয়টি কোন মানব-মানবীর নয়। এটি হচ্ছে রংপুর চিড়িয়াখানার সিংহ শাবকের গল্প। ২০১৬ সালের ২৯ আগস্ট চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানা থেকে আনা হয় প্রায় দু বছর বয়সী মেয়ে সিংহ বর্ষা রাণীকে। বাদশার সাথে ৪ বছর থেকে একত্রে থেকেও তাদের ঘরে কোন সন্তান হয়নি। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বলছে, একে বয়সের ভার। তার সাথে মানসিকভাবে এ্যাডজাস্ট না হওয়ায় বংশ বিস্তার সম্ভব হচ্ছে না।

রংপুর চিড়িয়াখানা সূত্রে জানা গেছে, রংপুর চিড়িয়াখানায় প্রায় আড়াই বছর  বয়সি রাজা ও বাদশা নামে দুই সিংহ শাবক ছিল । তাদের কোন মেয়ে সঙ্গী ছিল না। অপরদিকে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানাতেও বর্ষা ও ঝর্ণা রাণী নামে প্রায় দুই বছর বয়সী  মেয়ে সিংহ ছিল। তাদেরও কোন পুরুষ সঙ্গী ছিল না। বিষয়টি প্রাণি সম্পদ মন্ত্রনালয়কে জানানো হলে তারা সিদ্ধান্ত নেয় দুই চিড়িয়াখানার ছেলে মেয়ে সিংহ বিনিময় করার। মন্ত্রনালয়ের সিন্ধান্ত অনুযায়ী চট্টগাম থেকে মেয়ে সিংহ বর্ষা রানীকে রংপুরে আনা হয়। তখন থেকে বর্ষা রানী বাদশার সাথে একই খাচায় থাকছেন। অপরদিকে রংপুর থেকে রাজা নামের সিংহ শাবকটি চট্টগ্রামের চিড়িয়াখানায়  পাঠানো হয়। দুই ভাই ও দুবোন  তখন থেকে পৃথক ভাবে সংসার পাতেন।

 বিষয়টি নিয়ে রংপুর ও চট্টগ্রাম চিড়িয়াখায় এ উপলক্ষে ঢাকঢোল পিটিয়ে অনুষ্ঠানও করা হয়। সে সময় চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ আশা করেছিল এই দুই জুটির সিংহ খুব দ্রুতই তাদের আগামী বংশধর জন্ম দিবেন কিন্তু তা বাস্তবে হয়নি।  এই দুই জুটির মিলন মধুর হয়নি। ৪ বছরের তাদের মনের মিল হয়নি। ফলে ঘর বাধলে তাদের সংসারে নতুন কোন অতিথি আসেনি। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ অনেক আশা করে এই দুই জুটিকে একত্র করেছিলেন সিংহের বংশবৃদ্ধির জন্য কিন্তু রংপুর এবং চট্টগ্রামের কোন জুটিই এখন পর্যন্ত বংশ বিস্তার করতে পারেনি বলে জানিয়েছে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। রংপুর চিড়িয়াখানার কিউরেটর ডা. আম্বার আলী জানান, মূলত সিংহের বংশ বিস্তারের জন্য  ওই দুই জোড়া সিংহ শাবকের জুটি বাধা হয়েছিল।  ৪ বছরের বেশি হলেও কোন জুটিই সন্তান জন্ম দিতে পারেনি।  পুরুষ সিংহ শাবকের বয়স একটু বেশি হওয়ায়  মেয়ে সিংহ শাবকের সাথে এ্যাডজাস্ট হয়নি। তাই বংশ বিস্তার হচ্ছে না।