যেসব খাবার খেলে ওজন বাড়বে না

যেসব খাবার খেলে ওজন বাড়বে না

প্রবাদ আছে স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল তবে স্বাস্থ্য ভাল রাখা অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায় যদি আপনি ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম না হন। স্বাস্থ্য সচেতন মানুষ সব সময় তার নিজের শারীরিক ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার ব্যাপারে সচেতন। তবে চাইলেই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়না।

এজন্য শারীরিক পরিশ্রম ও ব্যায়ামের যেমন বিকল্প নেই তেমনি খাওয়া দাওয়ার ক্ষেত্রেও বেশ নিয়ম মেনে চলা জরুরি। বিশেষ করে চর্বি জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে। এ বিষয়ে পাঠকদের জন্য বলেছেন পুষ্টিবিদ ইসরাত জাহান।

শুনতে অবিশ্বাস্য লাগলেও এমন কিছু খাবার আছে যেগুলো পেট ভরাবে কিন্তু ওজন বাড়াবে না। এ খাবারগুলো খেলে পেট ভরা অনুভূত হয় কিন্তু দিন শেষে এগুলো শরীরের ক্যালরি কমাতে সাহায্য করে। যেমন।

১. প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট থাকায় অনেকে আলু খাওয়া থেকে বিরত থাকেন। কিন্তু তার দরকার নেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আলু খুবই পুষ্টিসম্পন্ন একটি খাবার যতক্ষন না এটা ভাজা হয়। এছাড়া আলুতে এক ধরনের প্রতিরোধী শ্বেতসার আছে যা হজমপদ্ধতিকে উন্নত করতে অনেকটা ফাইবারের মতো কাজ করে। এটা খেলে অনেকক্ষন পেট ভরা অনুভূত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, আলু রান্না করার পর ঠাণ্ডা করে খেলে এর প্রতিরোধী ক্ষমতা বাড়ে। এ কারণে আলু শুধু পুষ্টিকর ও সুস্বাদু খাবারই না বরং তার চেয়ে বেশি কিছু।

২. গবেষণা বলছে, ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভাল কোলেস্টেরল আছে। এটা খেলে খারাপ কোলেস্টেরল বাড়তে পারে না। এছাড়া এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে প্রোটিন এবং নয় ধরনের অ্যামিনো অ্যাসিড আছে। প্রোটিনযুক্ত খাবার খেলে কার্বোহাইড্রেটের চেয়ে পেট বেশি ভরা অনুভূত হয়। একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যারা সকালের নাস্তায় ডিম খান, তারা যারা পনির খান তাদের চেয়ে দ্রুত ওজন কমাতে পারেন।

৩. ওটমিল এমন একটি সুপার ফুড যা খেলে দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা অনুভূত হয়। এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। এর সঙ্গে ফল, বাদামও মিশিয়ে নিতে পারেন।

৪. স্যুপ খেলেও পেট ভরা অনুভূত হয়। গবেষণায় দেখা গেছে, যেকোন শক্ত খাবারের চেয়ে স্যুপ খেলে পেট বেশি ভরা অনুভূত হয়। নিয়মিত স্যুপ খাওয়ার অভ্যাস করলে বিনা চেষ্টাতেই ওজন কমাতে পারবেন।

৫. ফাইবারে পূর্ণ আপেল খেলে হজমশক্তি ভাল হয়। একটা আপেলের প্রায় ৮৫ শতাংশ পানিতে পূর্ণ থাকে। আপেল খেলে পেট ভরা অনুভূত হবে কিন্তু শরীরের ক্যালরি বাড়বে না। যদি আপেল খেতে খেতে বিরক্ত হয়ে যান তাহলে রুচি বদলাতে সাইট্রাস জাতীয় ফল খেতে পারেন। এতেও ওজন বাড়বে না।

৬. প্রোটিনযুক্ত খাবার খেলে কার্বোহাইড্রেটের চেয়ে বেশি পেট ভরা লাগে। প্রোটিনের জন্য মাংস খেতে পারেন। তবে তা হতে হবে চর্বিহীন। এছাড়া প্রোটিনের জন্য ওমেগা থ্রি সমৃদ্ধ মাছ খেতে পারেন। এতে ওজন বাড়ার আশঙ্কা থাকবে না। বরং হৃদরোগজনিত জটিলতা কমবে।

৭. বিকালের নাস্তা হিসেবে অনেকে পপকর্ণ খেতে পছন্দ করেন। এতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার এবং খুব কম পরিমাণে ক্যালরি রয়েছে। এটি খেলে পেট ভরা লাগে কিন্তু ওজন বাড়ে না।

প্রিয় পাঠক, আপনারা যারা ওজন নিয়ে বিড়ম্বনায় আছেন বা যারা ওজন কমানোর চেষ্টা করছেন তারা নিয়মিত এই খাদ্যতালিকা অনুসরণ করতে পারেন। পাশাপাশি আপনাদের যাদের ওজন নিয়ন্ত্রণে আছে তারাও এই তালিকাটি অনুসরণ করলে আগামীতেও আপনার স্বাস্থ্য থাকবে ঝরঝরে সুন্দর।

(ইসরাত জাহান একজন ক্লিনিক্যাল ডায়েটেশিয়ান ও নিউট্রিশিয়ানিস্ট। রাজধানীর বিআরবি হাসপাতালে নিয়মিত রোগী দেখেন। পাশাপাশি বিভিন্ন সভা সেমিনারে মানুষকে পুষ্টি বিষয়ে সচেতন করে যাচ্ছেন।)