যুক্তরাষ্ট্রে ৫০ বছরেও কেউ দেখেনি এমন ঠান্ডা!

যুক্তরাষ্ট্রে ৫০ বছরেও কেউ দেখেনি এমন ঠান্ডা!

করতোয়া ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রে গত ৫০ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে শৈতপ্রবাহ। বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের নাগরিকরা গণমাধ্যমকর্মীদের বলেছেন, গত ৫০ বছরেও এমন ঠান্ডা আর তুষারঝড় দেখননি তারা। চলতি বছরের শুরু থেকেই এ ঠান্ডার কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যপশ্চিমাঞ্চল। একেবারে হাড় হিম করা ঠান্ডা যাকে বলে। আর্কটিক ও অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে যেমন ঠান্ডা তেমনি ঠান্ডা পড়তে শুরু করেছে দেশটিতে। অ্যান্টার্কটিকার মতোই জমে যাচ্ছে নদী-নালা-সাগর।শিকাগোসহ মধ্য-পশ্চিমাঞ্চলে প্রচণ্ড ঠান্ডায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ জনে। গত বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের কোথাও কোথাও তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৫৬ ডিগ্রি ফারেনহাইট।কর্মকর্তারা বিভিন্ন এলাকায় মৃতের সংখ্যা নিশ্চিত করেছেন। শিকোগোর জন এইচ স্ট্রগার হাসপাতালের চিকিৎসক পুলাকিদাস স্তাতিস জানান, আগের ১২ জনের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করা হয়েছিল। এরপর তীব্র শীতের কারণে ঠান্ডাজনিত সমস্যায় প্রাণ হারিয়েছেন আরও অন্তত ৯ জন।

প্রচণ্ড শীতের কারণে দেশটির পাঁচটি রাজ্যে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বেশ কয়েকটি জায়গার তাপমাত্রা হিমাঙ্কের প্রায় ৬০ ডিগ্রি নিচে। মিনেসোটার আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, হিমাঙ্কের চেয়ে ৭০ ডিগ্রি পর্যন্ত নিচে নামতে পারে এই স্টেটের তাপমাত্রা। ১৮০০ সালের পর চলতি বছরই এরকম ঠান্ডা পড়েছে মিনেসোটায়।ওয়াশিংটনে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের প্রায় ৪ ডিগ্রি নিচে। শিকাগোতে বর্তমান তাপমাত্রা মাইনাস ২৩ ডিগ্রি, ডেট্রয়েটেও তা হিমাঙ্কের প্রায় ২৮ ডিগ্রি নিচে। নিউইয়র্কে গড় তাপমাত্রা শূন্য ডিগ্রি।নায়াগ্রা, ওরলিয়ান্স কাউন্টি ও বাফালো, টরন্টোতে তাপমাত্রা প্রায় মাইনাস ১৪ ডিগ্রি। প্রচণ্ড ঠান্ডার কারণে বাসিন্দাদের জন্য সতর্কবার্তাও জারি করা হয়েছে এসব স্টেটে। নর্থ ডাকোটা রাজ্যের গ্রান্ডফর্ক আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমান চলাচল বন্ধ রয়েছে ঘন তুষারপাত ও কুয়াশার কারণে। এ ছাড়া দেশজুড়ে বন্ধ রাখা হয়েছে প্রায় ২ হাজার ৭০০ বিমানের ফ্লাইট ও ট্রেন যাত্রা। তাপমাত্রা নেমে এসেছে প্রায় মাইনাস ১৩ ডিগ্রির আশপাশে।

মঙ্গলবার থেকে শিকাগো, ডেট্রয়েট ও মিশিগানে বিপদসীমার অনেক উপর দিয়ে বয়ে চলেছে তুষারঝড়। অনেক এলাকার তাপমাত্রা শূন্যের বেশ কয়েক ডিগ্রি নিচে নেমে যায়। রাতের দিকে তাপমাত্রার আরও অবনতি ঘটে। আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এ ভয়াবহ ঠান্ডা থাকবে বলে পূর্বাভাসে ধারণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া বিভাগ।
মধ্যপশ্চিমাঞ্চল ও নিউ ইংল্যান্ডের প্রায় ৯ কোটি মানুষকে শূন্য ডিগ্রি কিংবা তার নিচের তাপমাত্রার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। বিভিন্ন শহরে সপ্তাহজুড়েই তীব্র শীত ও ঠান্ডা বাতাসের ঝাপটা থাকবে বলে পূর্বাভাসে জানিয়েছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ। কোথাও কোথাও তাপমাত্রা মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে যেতে পারে বলেও আশঙ্কা তাদের। ঠান্ডা বাতাসের ঝাপটায় গ্রেট লেক অঞ্চলের উত্তরে তাপমাত্রা অনুভূত হতে পারে মাইনাস ৬৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মতো।

দেশটিতে বসবাসরত প্রায় আড়াই কোটি লোককে মাইনাস ২০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচের তাপমাত্রার সঙ্গে লড়তে হবে। তীব্র এ শীতের সঙ্গে ঠান্ডা বাতাস কয়েক মিনিটের মধ্যেই যে কাউকে ‘ফ্রস্টবাইটে’ আক্রান্ত করতে পারে বলেও সতর্ক করেছে মার্কিন আবহাওয়া বিভাগ।বাতাসের কারণে ডাকোটা ও উত্তর মিনোসোটায় মঙ্গলবার সকালের তাপমাত্রা মাইনাস ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস অনুভূত হতে পারে বলেও জানিয়েছে তারা। একই কনকনে বাতাস বয়ে যাবে মিনেপোলিস, মিলোয়াউকি, শিকাগো ও ডেট্রয়টের উপর দিয়ে। এসব অঞ্চলের বেশিরভাগ মানুষই ঘর ছেড়ে কাছের আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন।