যশোরে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

যশোরে ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

যশোরের অভয়নগরের নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কামরুজ্জামান মিলনকে (২৮) কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার ধোপাদী মোড় নামক স্থানে এ হামলার ঘটনা ঘটে।


 
আহত মিলনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা ও নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগ প্রায় এক ঘণ্টা যশোর-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন।

আহত মিলন উপজেলার বুইকারা গ্রামের ইমান আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগ নেতা মিলন তার এক সহযোগীকে নিয়ে মোটরসাইকেলে নওয়াপাড়ার দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় এলাকার চিহ্নিত চার সন্ত্রাসী যশোর-খুলনা মহাসড়কের ধোপাদীর মোড় নামক স্থানে তার গতিরোধ করে মোটরসাইকেলের ডাম্পারসহ দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করে। পরে মিলন অজ্ঞান হয়ে পড়লে একটি ভ্যানে করে তাকে পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের পোল্ট্রি ফর্মের পাশের মাঠে নিয়ে যায়।

পোল্ট্রি ফার্ম এলাকাবাসী জানান, সন্ধ্যায় মাঠের ভেতর থেকে চিৎকার শুনে তারা এগিয়ে যান। এ সময় ৪ যুবক দেশীয় অস্ত্র সহকারে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে রক্তাক্ত জখম অবস্থায় মিলনকে তারা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।


উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক জানান, রোগীর শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ শান্ত বলেন, সভাপতিকে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছে। তিনি এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে হামলাকারী সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় না আনলে পরবর্তীতে ব্যাপক কর্মসূচি প্রদানের হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানা পুলিশের ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আসামি আটকের আশ্বাসে ছাত্রলীগ তাদের মহাসড়ক অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছে।

তিনি আরও বলেন, হামলাকারীদের শনাক্ত করা হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে আইনের আওতায় আনা হবে।