ময়মনসিংহে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

ময়মনসিংহে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ২

ময়মনসিংহে গ্রেপ্তারের পর পুলিশের সঙ্গে পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই আসামির মৃত্যু হয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি আশিকুর রহমান জানান, সদর উপজেলার পরানগঞ্জ সড়ক ও সানকিপাড়ায় শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে গোলাগুলির এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আলমগীর হোসেন (২৪) কৃষক আবুল কাশেম হত্যা মামলার অন্যতম আসামি। আর সিরাজুল ইসলামকে (২৩) মোবারক মোর্শেদ মিল্কি নামে এক শিক্ষককে ছুরিকাঘাতের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

ওসি আশিকুর বলেন, সদর উপজেলায় কৃষক আবুল কাশেম হত্যা মামলার অন্যতম আসামি আলমগীরকে শুক্রবার রাতে গোপালগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। তাকে নিয়ে পলাতক আসামিদের প্রেপ্তার করতে গেলে রাত ৩টার দিকে জয়বাংলা বাজার থেকে পরানগঞ্জগামী সড়কের কাছে পৌঁছালে পলাতক আসামি সিদ্দিকসহ ৮-১০ জন পুলিশের দিকে গুলি ছোড়ে।

“পুলিশ আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুড়লে আলমগীর কৌশলে পালানোর সময় গুলিবিদ্ধ হন। তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।”

এ সময় পুলিশ সদস্য আতিক, রজব ও নাজমুল আহত হলে তাদের ওই হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয় বলে জানান ওসি আশিকুর।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে শহরের অ্যাডভোকেট তারেক স্মৃতি অডিটোরিয়াম এলাকায় জিলা স্কুলের গণিতের শিক্ষক মোবারক মোর্শেদ মিল্কিকে ছুরিকাঘাত করা হয়।

“এ ঘটনায় ছিনতাইকারী সিরাজুল ইসলামসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। রাত ৪টার দিকে সিরাজুলকে নিয়ে অন্যদের গ্রেপ্তারে সানকিপাড়ার এসএ সরকার রোড এলাকায় অভিযান চালায় কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

“এ সময় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সিরাজুল মারা যান। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।”