মেসির কিছু হলে বিশ্ব থেমে যায়: বার্সা কোচ

মেসির কিছু হলে বিশ্ব থেমে যায়: বার্সা কোচ

লিওনেল মেসি-ছবি: সংগৃহীত

লিওনেল মেসি, লুইস সুয়ারেস ও আঁতোয়া গ্রিজম্যান তথা বার্সার নতুন ত্রয়ীর অসাধারণ পারফরম্যান্সে ক্যাম্প ন্যুয়ে খুশির আবহ ছড়িয়ে পড়েছিল। কিন্তু প্রথমার্ধ শেষে বাঁ পায়ের উরুতে চোট পেয়ে যখন মাঠ ছাড়েন মেসি, পুরো গ্যালারিতে এক রাশ হতাশা ছড়িয়ে পড়ে। তবে সমর্থকদের আশার বাণী শুনিয়েছেন বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে।


ক্যাম্প ন্যু’তে মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে ভিয়ারিয়ালকে ২-১ গোলে হারিয়েছে কাতালান জায়ান্টরা। এই ম্যাচ দিয়ে শুরুর একাদশে ফেরা লিওনেল মেসি তার ৪০০তম ম্যাচ খেলতে নামেন।  তাছাড়া আগের রাতেই ফিফার বর্ষসেরা নির্বাচিত হয়েছেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। পাশাপাশি এদিন ছিল বার্সার ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যু’র ৬২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ১৯৫৭ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর স্টেডিয়ামটি যাত্রা শুরু করে।

ক্লাব আর মেসির বিশেষ উপলক্ষ মিলিয়ে ক্যাম্প ন্যুয়ে ছিল উৎসবের আমেজ। দলের অধিনায়ক মেসিও শুরু থেকেই মাঠে ছিলেন। উজ্জীবিত বার্সা গোলও পেয়ে যায় দ্রুতই। ষষ্ঠ মিনিটে মেসির নেওয়া কর্নার কিক থেকে কড়া মার্কিংয়ের বেড়াজাল ভেঙে হেড দিয়ে চলতি মৌসুমে নিজের তৃতীয় গোল করেন গ্রিজম্যান। 

খেলার ২৫ মিনিটের মাথায় বার্সা কোচ ও সমর্থকদের চিন্তার কারণ হয়ে দেখা দেয় মেসির আঘাত। সাইড লাইনে কিছুক্ষণ সময় উরুতে চিকিৎসা নিয়ে আবার মাঠে ফেরেন বার্সার প্রাণভোমরা মেসি। তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই মেসিকে তুলে নেন বার্সা কোচ ভালভার্দে।

মেসির এবারের ইনজুরি নিয়ে চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন সমর্থকরা। কারণ এবারের চোট আগের চেয়ে ভিন্ন জায়গায়। তবে ভালভার্দে জানিয়েছেন, মেসির চোট গুরুতর নয়। মূলত ঝুঁকি নিতে চাননি বলেই তিনি মেসিকে তুলে নিয়েছিলেন।

ম্যাচ শেষে বার্সা কোচ বলেন, ‘মেসির কিছু হলে বিশ্ব থেমে যায়। তবে এটা (চোট) মাংসপেশিতে ব্যথা ছাড়া তেমন কিছু নয়। আমরা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে তাকে তুলে নিয়েছি।’