মীমাংসা করতে গিয়ে খুন হলেন ইউপি সদস্য

মীমাংসা করতে গিয়ে খুন হলেন ইউপি সদস্য

কুমিল্লায় হাজী আবদুর রউফ ভূঁইয়া (৮৬) নামে সাবেক এক মেম্বারকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামে বিরোধ মীমাংসা করতে গেলে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়।

একই দিন জেলার দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা গ্রামের কালি মন্দিরের পাশে মাটিচাপা অবস্থায় জয় চন্দ্র ঘোষ নামে এক স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মালাপাড়া ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামে দুই যুবক জাহাঙ্গীর ও হাবিবুর রহমান ভূঁইয়ার মধ্যে ধান মাড়াই নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ সময় সাবেক ইউপি সদস্য হাজী আবদুর রউফ ভূঁইয়া তাদের বিরোধ মীমাংসা করতে যান।

কিন্তু হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া লাঠি দিয়ে আবদুর রউফের মাথায় আঘাত করলে তিনি গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে বুড়িচং উপজেলার কংশনগর এলাকার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি এসএএম শাহজাহান কবির জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় হাবিবুর রহমান ভূঁইয়া নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপরদিকে, বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জেলার দেবিদ্বার উপজেলার বরকামতা কালিমন্দিরের পাশে মাটিচাপা দেয়া অবস্থায় একটি মরদেহের হাতের অংশবিশেষ দেখতে পান স্থানীয়রা। খবর পেয়ে দেবিদ্বার থানা পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উদ্ধার হওয়া স্কুলছাত্র জয়চন্দ্র ঘোষ ওই উপজেলার নবিয়াবাদ গ্রামের অমর চন্দ্র ঘোষের ছেলে বলে শনাক্ত করা হয়েছে। সে পার্শ্ববর্তী চান্দিনা উপজেলা সদরের চান্দিনা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

জয় চন্দ্র ঘোষ গত ৯ জানুয়ারি সকাল ১০টায় বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়। তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে গত ১৪ জানুয়ারি পরিবারের পক্ষ থেকে দেবিদ্বার থানায় নিখোঁজ ডায়রি করা হয়।

দেবিদ্বার থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার জানান, এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে এবং জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশের চেষ্টা অব্যাহত আছে।