মাশরাফির জীবন সত্যিকারের অনুপ্রেরণা: মাসাকাদজা

মাশরাফির জীবন সত্যিকারের অনুপ্রেরণা: মাসাকাদজা

.

বাংলাদেশের ক্রিকেটের সঙ্গে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার সম্পর্ক অনেক পুরনো। সেই সূত্র ধরেই মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গেও তার পরিচয়। একসঙ্গে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের হয়ে খেলেছেন। সে সময় খুব কাছ থেকে দেখেছেন বাংলাদেশের বর্তমান ওয়ানডে দলপতি মাশরাফিকে। 


আফগানদের বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের শেষ ম্যাচ দিয়ে ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছেন মাসাকাদজা। বিদায়বেলায় স্মৃতির ঝাঁপি খুলে দিলেন বিদায়ী জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক। সেখানেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় তারকাদের একজন মাশরাফির জীবনকে অনেক বড় অনুরপ্রেরণা বলে মন্তব্য করলেন তিনি।

২০১৬ সালে কলাবাগানের হয়ে খেলার সময় মাশরাফিকে তার জীবন ও ক্রিকেট ক্যারিয়ার নিয়ে বই লেখার অনুরোধ করেছিলেন মাসাকাদজা। শুক্রবার ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে আমার অনেক মধুর স্মৃতি আছে। ঢাকা লিগে খেলা এবং অনেক খেলোয়াড়ের সঙ্গে পরিচিত হওয়া দারুণ স্মৃতি। এর মধ্যে সবচেয়ে স্মরণীয় স্মৃতি হচ্ছে, ক্লাব ক্রিকেটে মাশরাফির সঙ্গে একই দলে খেলা। আমি মনে করি অনেকেই মাশরাফির গল্পটা জানে না এবং অনেকে জানে না তাকে কী ধরনের পরিস্থিতি পার হতে হয়েছে।’

মাশরাফিকে একটি বই লেখার কথাও ওই সময়ই বলেন মাসাকাদজা, “আমার মনে আছে, একবার তার সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে আমি বলেছিলাম, ‘শোনো, তোমার নিজের জীবন আর অভিজ্ঞতা নিয়ে একটি বই লেখা উচিত’। সে সত্যিকারের অনুপ্রেরণা। আমার ধারণা, অনেকে জানে না সে সবমিলিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কতটা দিয়েছে। তার সঙ্গে ঢাকা লিগে খেলা আর সময় কাটানোটা আমার জন্য দারুণ অভিজ্ঞতা ছিল।’

নিজের বিদায়ী ম্যাচে একটা রেকর্ড সঙ্গী করেছেন মাসাকাদজা। আফগানদের ৭ উইকেটে হারিয়ে দেওয়া ম্যাচে ব্যাট হাতে ৪২ বলে ৭১ রান করেছেন তিনি। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ইতিহাসে বিদায়ী ম্যাচে কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ইনিংস এটা। 

বিদায়বেলায় আরও কিছু কীর্তি যুক্ত হয়েছে তার নামের পাশে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকদের তালিকায় ১৫তম স্থানে আছেন তিনি। তার ১ হাজার ৬৬২ রান জিম্বাবুয়ের হয়ে সর্বোচ্চ। ৬৬ ম্যাচের ক্যারিয়ারে তার ব্যাটিং গড় প্রায় ২৬। হাফ-সেঞ্চুরি আছে ১১টি। 

মাসাকাদজার ক্যারিয়ার সেরা টি-টোয়েন্টি ইনিংস ৯৩, যা জিম্বাবুয়ের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। হারারেতে জন্মগ্রহণকারী এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৩৮টি টেস্ট ম্যাচে রান করেছেন ২ হাজার ২২৩। আর ২০৯টি ওয়ানডে খেলে ৫ হাজার ৬৫৮ রান করেছেন।