মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

রায়হান আহমেদ তপাদার: যত দিন যাচ্ছে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে? শুক্রবার ফ্রান্স তিনজনকে শনাক্ত করেছে যাদের শরীরে ভাইরাসটি সংক্রমিত হয়েছে? এরমধ্যে দুইজন সম্প্রতি চীন ভ্রমণ করেছেন বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনিয়েস বুজাঁ? তাদেরকে আলাদা করে রাখা হয়েছে? আক্রান্ত তৃতীয় ব্যক্তি তাদের একজনের আত্মীয়? বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস? ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে প্রথমবারের মতো এই ভাইরাস আক্রান্ত তিনজনকে শনাক্ত করেছে ফ্রান্স। রোগির সন্ধান মিলেছে অস্ট্রেলিয়া, মালয়েশিয়া ও নেপালে? ভাইরাস সংক্রমিত হওয়া আরো রোগির সন্ধান মিলতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছেন বুজাঁ? যেহেতু রোগিরা ফ্রান্সে আসার পর অনেকের সংস্পর্শে এসেছেন, আমরা তাদেরও খোঁজ নিচ্ছি, জানিয়েছেন তিনি সম্প্রতি চীনের উহান প্রদেশে প্রথম রহস্যময় এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সন্ধান মিলে? সেখানকার বন্যপ্রাণী কেনাবেচার একটি বাজার থেকে রোগটি ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে? এর জীবাণু মানুষের একজনের শরীর থেকে আরেকজনের শরীরে সংক্রমিত হতে পারে? এ পর্যন্ত এক ডজনের বেশি দেশ তাদের নাগরিকদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণ হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে? দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে নেপালে প্রথম একজন রোগির সন্ধান মিলেছে? চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া ভয়ঙ্কর করোনাভাইরাস ইতোমধ্যে আরও ১৩টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। টিআরটি ওয়ার্ল্ড ও সিএনএন’র প্রতিবেদনে এ খবর পাওয়া গেছ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছে গেছে ৮০ হাজারের কাছাকাছি। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪৬১ জনে, যাদের মধ্যে ১৯ জন ছাড়া বাকি সবার মৃত্যু ঘটেছে চীনে।
চীনের বাইরে সর্বোচ্চ আক্রান্ত দেশ দক্ষিণ কোরিয়া। এছাড়া, চীন সরকার উহানসহ ১২টির বেশি শহরে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। যেসব দেশে ছড়িয়ে পড়েছে ভয়ঙ্কর করোনাভাইরাস কানাডার রাজধানী টরেন্টোর এক হাসপাতাল থেকে দেশটিতে করোনাভাইরাসে একজন আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করা হয়। প্রথম ইউরোপীয় দেশ হিসেবে ফ্রান্সে তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। নতুন করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত জাপানে তিনজন আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে তিনজনই সম্প্রতি উহান ভ্রমণ করেছেন। অস্ট্রেলিয়ায় প্রথমবারের মতো একজন ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। মালয়েশিয়ায় তিনজন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। নেপালে ৩২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সিঙ্গাপুরে অন্তত তিনজন নতুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। দক্ষিণ কোরিয়ায় দুজন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাইওয়ানে এ পর্যন্ত তিনজন নতুন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনার পর উহান ভ্রমণে বিধিনিষেধ আরোপ করে দেশটি। থাইল্যান্ডে পাঁচজন এ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত দুজন আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। চিকিৎসা দেওয়ার পর তাদের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। ভিয়েতনামে এক ব্যক্তি ও তার ছেলে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ম্যাকাওয়ে মরণঘাতি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে অন্তত দুজন। আরও আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
ইউরোপের মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে শোচনীয় অবস্থা ইতালির। পাদুয়া শহর ও লোমবার্ডিতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। ইটালিতে এ পর্যন্ত একশ’ জনেরও বেশি লোক করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হবার খবর নিশ্চিত করা হয়েছে এবং দুজন মারা গেছেন। মিলান এবং ভেনিস শহরের কাছে দুটি উত্তরাঞ্চলীয় এলাকাকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হটস্পট বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন কমপক্ষে ৭৭ জন। ভেনেতুতে ১২ জন এবং লোমবার্ডিতে ৩৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ভেনেতো এবং লোম্বার্ডি অঞ্চলের একাধিক শহরে নির্দেশ দেয়া হয়েছে, আগামী দু’সপ্তাহ কর্তৃপক্ষের বিশেষ অনুমতি ছাড়া কেউ সেখানে ঢুকতে বা বেরুতে পারবে না। এর আওতায় পড়বে অন্তত ৫০ হাজার লোক। এছাড়া, নতুন করে আরও অনেক দেশে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। টোকিওর হ্যানেডা বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের পাঠানো বিমান ছেড়ে যায় বলে জানাচ্ছে কিওডো নিউজ এজেন্সি।চীনে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হবার কারণে জাপানের ইয়োকোহামা বন্দরে গত ৩রা ফেব্রুয়ারি থেকে আটকে আছে ডায়মন্ড প্রিন্সেস। জাহাজটিতে ৩৫৫ জনেরও বেশি লোকের করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিশ্চিত করা হয়েছে। চীনের বাইরে একক কোন জায়গায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে এই জাহাজেই।ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজে প্রায় ৪০০ মার্কিন যাত্রী ছিলেন, এদের মধ্যে অন্তত ৪০জনের করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঘটেছে। তাদের চিকিৎসা জাপানেই হবে।
ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজটিকে প্রায় ৩,৭০০ যাত্রী নিয়ে ইয়োকোহামা বন্দরে কোয়ারেন্টিন করা হয়। জাহাজের একজন যাত্রী হংকং-এ নেমে যাবার পর তার করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাহাজটিকে আটক করা হয়। এরপর থেকে জাহাজের যাত্রীদের মধ্যে প্রবল ভীতি ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দৈনন্দিন জীবনযাপনে সতর্কতা অবলম্বন করা শুরু হয়। যাত্রীদের নিজ নিজ কেবিনে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়। খাবার ঘরে পৌঁছে দেয়া হতে থাকে। যারা ঘরে খাবার নিয়ে যাবে তারা মুখোশ, গ্লাভস, প্লাস্টিকের এ্যাপ্রন ইত্যাদি পরে এ কাজ করেছেন। জাহাজে ক্রু আছেন ১ হাজার ৪৫ জন। এছাড়া জাহাজের বাইরে ৫০টি অ্যামবুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয় জরুরি ভিত্তিতে রোগি হাসপাতালে পৌঁছানোর জন্য। জাপানের ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজের পরিচালক ডা. অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, করোনাভাইরাস সংক্রমিত হওয়া মার্কিন নাগরিকদের জাপানে চিকিৎসা করা হবে।
প্রায় এক মাস আগে চীনে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর এখন তা ছড়িয়ে পড়েছে ২০টির বেশি দেশে। এই ভাইরাসের সংক্রমণ আরও কতটা ব্যাপকভাবে ছড়াতে পারে এবং কত মানুষ এতে আক্রান্ত হতে পারে তা নিয়ে চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা। এখনো এটিকে বিশ্ব মহামারী বলে ঘোষণা করা হয়নি। কিন্তু বিশ্বকে এই করোনাভাইরাসের এক মহামারীর মুখোমুখি হতে হবে-এমন আশংকায় কর্মকর্তারা এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। একই সময়ে যখন বিশ্বজুড়ে বহু দেশের মানুষ কোন সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হন, তখন একে বিশ্ব মহামারী বলে বর্ণনা করা হয়। এর সাম্প্রতিক একটি উদাহরণ হচ্ছে ২০০৯ সালের সোয়াইন ফ্লু।
বিশেষজ্ঞদের ধারণা ঐ বিশ্ব মহামারীতে শত শত মানুষ মারা গেছে। নতুন কোন ভাইরাস, মানুষ সহজেই যেটির সংক্রমণের শিকার হয় এবং যা মানুষ থেকে মানুষে ছড়ায়, সেটি বিশ্ব মহামারীতে রূপ নেয়ার আশংকা বেশি। করোনা ভাইরাসের বেলায় এই সবগুলো বৈশিষ্ট্যই দেখা যাচ্ছে। করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা পেতে বাংলাদেশে স্কুলছাত্রীরা মাস্ক ব্যবহার করছে। যেহেতু এখনো পর্যন্ত এর কোন প্রতিষেধক টিকা বা চিকিৎসা আবিষ্কৃত হয়নি, এটির বিস্তার বন্ধ করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কোন সংক্রমণকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা ডাব্লিউএইচও কখন বিশ্ব মহামারী ঘোষণা করবে, তার আগে কিছু ধাপ আছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ যেভাবে ছড়িয়েছে, তাতে এটি এখন বিশ্ব মহামারী ঘোষণার মাত্র এক ধাপ নিচে আছে। করোনাভাইরাস মানুষ থেকে মানুষে ছড়াচ্ছে এবং চীনের আশে-পাশের দেশ তো বটেই, বহু দূরের দেশেও ছড়িয়েছে। যদি বিশ্বের নানা অঞ্চলে বহু মানুষের মধ্যে এটির বিস্তার অব্যাহত থাকে, তাহলে এটিকে তখন বিশ্ব মহামারী ঘোষণা করতে হবে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কতটা মারাত্মক এবং এটি কত দূর পর্যন্ত ছড়াতে পারে, তা এখনো পরিষ্কার নয়।
এদিকে যুক্তরাজ্যের এমআরসি সেন্টার ফর গ্লোবাল ইনফেকশাস ডিজিস অ্যানালাইসিসের বিজ্ঞানীরা বলছেন ভাইরাসটি মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ার মাধ্যমে নিজেকে রক্ষা করতে পারে, যেটি এই ভাইরাসের এত বড় পরিসরে ছড়িয়ে পড়তে পারার ‘একমাত্র যৌক্তিক ব্যাখ্যা।’বিজ্ঞানীদের অনুমান, একজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি গড়ে আড়াইজন মানুষের মধ্যে এই ভাইরাসটি ছড়াচ্ছে। ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে ছড়িয়ে পড়ার হার ৬০% কমাতে হবে। তবে বিজ্ঞানীদের মতে এই পদক্ষেপ নিশ্চিত করা সহজ নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চীনে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেও বৈশ্বিক পরিস্থিতি এখনও মহামারির আকার ধারণ করেনি বলে জানিয়েছে? করোনাভাইরাসের তথ্য প্রদানে স্বচ্ছতা অবলম্বন করায় দেশটিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন সংস্থাটির মহাপরিচালক টেডরস আঢানম? এই বিষয়ে চীনের নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প? সার্চ ভাইরাসের সময়কার তুলনায় চীন করোনার ক্ষেত্রে অনেক বেশি স্বচ্ছতা দেখাচ্ছে বলে উল্লেখ করেছেন জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েনস স্পানও? বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাসে আক্রান্তরা প্রাথমিকভাবে হাঁপানি, সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগতে পারেন? গুরুতর পরিস্থিতিতে নিউমোনিয়া, ভয়াবহ শ্বাসজনিত সমস্যা, কিডনি অকার্যকর এমনকি মৃত্যুও ঘটতে পারে? সুতরাং এই মহামারী ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার একমাত্র উপায় সবার সচেতনতা।
লেখক : প্রাবন্ধিক
[email protected]