মরিচের গুঁড়ো ছুড়ে ধর্ষণচেষ্টা থেকে রক্ষা

মরিচের গুঁড়ো ছুড়ে ধর্ষণচেষ্টা থেকে রক্ষা

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ধানশালিক ইউনিয়নে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর এক বন্ধুর বিরুদ্ধে। তবে ওই গৃহবধূ অভিযুক্তকে মরিচের গুঁড়ো ছুড়ে এবং দা দিয়ে কুপিয়ে ধর্ষণচেষ্টা থেকে রক্ষা পান বলে জানা গেছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরের দিকে মানিক (৩৮) নামে ওই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। মানিক ধানশালিক ইউনিয়নের চরগুল্লাখালি গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে। স্থানীয়রা জানান, ওই গৃহবধূর স্বামী গাড়ি চালক হওয়ার সুবাধে চট্টগ্রামে থাকেন। কিন্তু পারিবারিক বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝামেলা ছিল। অভিযুক্ত মানিক যদিও সেই গৃহবধূকে চাচি বলে ডাকতেন। কিন্তু তার স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিল বন্ধুর মতো। বন্ধুর অনুপস্থিতিতেও তাদের বাড়িতে যাতায়াত ছিল মানিকের।

 এরই সূত্র ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে দেবে এমন আশা দিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একটি তাবিজ নিয়ে ওই গৃহবধূর ঘরে যান মানিক। ঘরে বসে কথা বলার একপর্যায়ে মানিক ওই গৃহবধূর মুখে বালিশ চাপা দিয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এসময় তার চোখে মরিচের গুড়া নিক্ষেপ করেন সেই গৃহবধূ। এক পর্যায়ে নিজেকে রক্ষায় ঘরে থাকা দা দিয়ে অভিযুক্তকে কুপিয়েও জখম করেন তিনি। পরে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে মানিক আহতাবস্থায় পালিয়ে গিয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাটের একটি হাসপাতালে ভর্তি হয়। কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মির্জা মোহাম্মদ হাছান বিষয়টি নিশ্চিত করে  বলেন, এ বিষয়ে দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে মানিককে হাসপাতাল থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।