ভাড়ার টাকার জন্য যাত্রীকে বাস থেকে ফেলে হত্যা

ভাড়ার টাকার জন্য যাত্রীকে বাস থেকে ফেলে হত্যা

পাবনার পাকশী লালন শাহ সেতুর কাছে সুমন হোসেন(৩৫)  নামের এক বাসযাত্রীকে ভাড়ার টাকা নিয়ে চলন্ত বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়েছে বাসের হেলপার। এ সময় সে চাকার নিচে পিষ্ট হয়ে গুরুতর আহত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। নিহত সুমন ঈশ্বরদী উপজেলার ঝাউতলা গ্রামের মজিবর রহমানের ছেলে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার মৃত্যু হয়।
ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) অরবিন্দ সরকার  জানান, রাত ৯টার দিকে সুমন মেহেরপুর থেকে সনি পরিবহন নামের একটি বাসে করে ঈশ্বরদী বাড়িতে আসছিল। রাস্তায় ভাড়ার টাকা নিয়ে বাসের কন্ডাক্টরের সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। 
বাসের লোকজন তাকে মারপিট করেছে বলে মোবাইলে তার ভাইকে জানিয়েছে। বাসটি পাকশী লালন শাহ সেতুর কাছে আসলে বাসের কন্ডাক্টর তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলে সে বাসের পিছন চাকার নিচে পড়ে পিষ্ট হয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে ভর্তি করে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে সে মারা গেছে। হাইওয়ে পুলিশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে বাসটি শনাক্ত করা হয়েছে। পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।