ভারতের নাগরিকত্ব আইন বৈষম্যমূলক: জাতিসংঘ

ভারতের নাগরিকত্ব আইন বৈষম্যমূলক: জাতিসংঘ

ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনটি বৈষম্যমূলক বলে মন্তব্য করেছে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা।


শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) এমন তথ্যই জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বিলটিতে ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন সংশোধন করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে যাওয়া হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রিস্টান অবৈধ অভিবাসীদের যাতে ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া যায়, এ হিসেবেই এ সংশোধনী। এতে ২০১৪ সালের আগ পর্যন্ত আসা এসব মানুষদের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু এটি মুসলিমদসহ সংখ্যালঘুদের প্রতি বৈষম্যমূলক।

জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার মতে, নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনটি প্রকৃতিগতভাবেই বৈষম্যমূলক। এ নিয়ে শঙ্কাও প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

মানবাধিকার সংস্থার মুখপাত্র জেরেমি লরেন্স বলেন, এই আইনের প্রভাব মানুষের জাতিগত পরিচয়ের ওপর পড়বে। এছাড়া ভারতে সমতার যে প্রতিশ্রুতি, এই আইনটি সেটির বিরোধী।

মানবাধিকার সংস্থা জানায়, সমতার ভিত্তিতে ভারত নতুন আইন করতে পারে। কিন্তু বৈষম্যমূলকভাবে নয়।

‘আশা করি এই আইনটি ভারতের সুপ্রিম কোর্টে পর্যালোচনা করা হবে। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইনের আলোকেই সেটি করা হবে,’ যোগ করেন লরেন্স।