ভারত মাতানো ফুটবলারদের মাশরাফি-মুশফিকের অভিনন্দন

ভারত মাতানো ফুটবলারদের মাশরাফি-মুশফিকের অভিনন্দন

র‍্যাংকিংয়ে ৮৩ ধাপ এগিয়ে ভারত, খেলাও তাদেরই মাঠে। এর বাইরে আবার রয়েছে ৮০ হাজার স্বাগতিক দর্শকের চাপ, সঙ্গে যোগ হয় ১৬ বছর ধরে ভারতকে হারাতে না পারার ইতিহাস। ম্যাচ শুরুর আগে ভারতের সাবেক ফুটবলারদের কথাবার্তায়ও ছিলো সূক্ষ্ম হুমকির ছাপ।

এতসব কিছু পেরিয়েই মঙ্গলবার কলকাতার সল্ট লেটে যুব ভারতী স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ ফুটবল দল। যেখানে উল্টো ম্যাচের ৮৮ মিনিট পর্যন্ত চালকের আসনটা ছিলো জেমি ডে’র শিষ্যদের দখলেই।

ম্যাচের শুরু থেকেই বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করা বাংলাদেশ, প্রথম গোল পায় ৪১ মিনিটের মাথায়। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার মাপা ফ্রি কিক থেকে মাথা ছুঁইয়ে দলকে আনন্দে ভাসান সাদ উদ্দিন। স্তব্ধ হয়ে যায় পুরো সল্ট লেক। আশি হাজার স্বাগতিক দর্শকের বিপরীতে ২০০ বাংলাদেশির উল্লাসধ্বনি শোনা যাচ্ছিল স্পষ্ট।

এই এক গোলের লিড ধরেই জয়ের পথে এগিয়ে যাচ্ছিল বাংলাদেশ। এরই মাঝে একটি বল গোললাইন থেকে ক্লিয়ার করেন ভারতীয় ডিফেন্ডার। আর একবার বল ফেরত আসে ক্রসবারে লেগে। দুইটি প্রায় নিশ্চিত গোল মিসের হতাশা বেড়ে কয়েকগুণ হয় ৮৮ মিনিটের মাথায়। নিখুঁত এক কর্ণার থেকে সরাসরি হেডে ভারতকে সমতায় ফেরান আদিল খান।

শেষপর্যন্ত ১-১ গোলে ড্র’তেই শেষ হয় ম্যাচটি। মাত্র ২ মিনিটের জন্য অবিস্মরণীয় এক জয় হাতছাড়া হয় বাংলাদেশের। তবে ফুটবলারদের এই পারফরম্যান্স কোটি বাঙালির পাশাপাশি উদ্বেলিত করেছে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদেরও। আলাদা আলাদা বার্তায় ফুটবলারদের অভিনন্দন জানিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, মুশফিকুর রহীমরা।

জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা নিজের ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘দারুণ খেলেছো তোমরা। শেষ মুহূর্তে গোল হজম করলেও তোমাদের নিয়ে আমরা গর্বিত। আশা হারানো চলবে না, মাথা উঁচু রেখে পরের ম্যাচের দিকে নজর দেই আমরা।’


সাবেক অধিনায়ক ও তারকা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমের বার্তা, ‘ছেলেদের জন্য দুর্ভাগ্যই বটে। তবে মাঠের নিবেদন ও পরিশ্রম দেখে আমরা গর্বিত। পরেরবার হবে ইনশাআল্লাহ্‌। সবসময় সমর্থন থাকবে।’

দুই মিনিট বাকি থাকতে গোল হজম করায় স্পিন অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত যেন ফিরে যান ২০১২ সালের এশিয়া কাপে। যেখানে ফাইনাল ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে ২ রানে হারায় হাতছাড়া হয় শিরোপা। সৈকত লিখেন, ‘আমাদের স্বপ্ন গুলো এভাবেই ভেঙে যায়। হয়তো ২ রানে, নয়তো ২ মিনিটে। অভিনন্দন বাংলাদেশ।

জাতীয় দলের তারকা পেসার রুবেল হোসেন সামনে আরও ভালো পারফরম্যান্সের প্রত্যাশা জানিয়ে লিখেন, ‘বাংলাদেশ ফুটবল দল দারুণ খেলেছে। সামনের ম্যাচে এর চেয়েও ভালো পারফরম্যান্সের প্রত্যাশায়।’

জাতীয় ক্রিকেটার এনামুল হক বিজয়ের ফেসবুক পোস্ট, ‘দূর্ভাগ্যবশত ভারতের বিপক্ষে ম্যাচটা ১-১ গোলে ড্র হয়ে গেলো। অভিনন্দন বাংলাদেশ ফুটবল দলকে, ১-১ ড্রয়ের ম্যাচেও দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখিয়েছে তারা।’