বৈশাখী পোশাক না পেয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা

বৈশাখী পোশাক না পেয়ে কিশোরীর আত্মহত্যা

সাভারের আশুলিয়ায় বাংলা বর্ষবরণ উৎসব উপলক্ষে বৈশাখী পোশাক কিনে না দেওয়ায় পরিবারের সঙ্গে অভিমান করে আদরী কুমারী (১৪) নামে এক কিশোরী আত্মহত্যা করেছে।


রোববার (১৪ এপ্রিল) রাতে আশুলিয়ার গোরাট এলাকার আনা মিয়া মন্ডলের মালিকানাধীন বাড়ির একটি কক্ষ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ওই কিশোরী লালমনিরহাট সদর উপজেলার কামিনী রায়ের মেয়ে। আশুলিয়া গোরাট এলাকায় পরিবারের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় একটি স্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ছিলো সে।

স্বজনদের বরাত দিয়ে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মশিউর রহমান নয়ন জানান, কয়েক দিন ধরে বৈশাখী পোশাকের জন্য বায়না ধরছিল আদরী। কিন্তু গার্মেন্টকর্মী মা ও মানসিক ভারসাম্যহীন দরিদ্র বাবার পক্ষে তার বায়না পূরণ করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনার পর পহেলা বৈশাখের দিন বিকেলে সবার অগোচরে অভিমান করে নিজ কক্ষের দরজা ভেতর থেকে আটকে দেয় ওই কিশোরী। রাত হয়ে গেলেও সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় আদরীকে দেখতে পায় স্বজন ও প্রতিবেশীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এসআই আরও জানান, এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ না থাকায় আদরীর মরদেহ রাতে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। একইসঙ্গে পরিবারটি অত্যন্ত দরিদ্র হওয়ায় মরদেহের সৎকারের জন্য স্থানীয় প্রভাবশালীদের কাছ থেকে আর্থিক সহযোগিতারও ব্যবস্থা করে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।