‘বুলবুল’: উড়িষ্যায় উপড়ে পড়েছে গাছ, যোগাযোগ বিঘ্নিত

‘বুলবুল’: উড়িষ্যায় উপড়ে পড়েছে গাছ, যোগাযোগ বিঘ্নিত

ভারতের উড়িষ্যা রাজ্যের উপকূলীয় অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র প্রভাবে ভারী বৃষ্টি ও তীব্র বাতাস বয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন এলাকার আঞ্চলিক সড়কে গাছ উপড়ে পড়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। বৈদ্যুতিক খুঁটি উপড়ে পড়ে বন্ধ রয়েছে অনেক এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ।


শনিবার (০৯ নভেম্বর) উড়িষ্যার জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রপাড়া ও ভদ্রক জেলার স্পেশাল রিলিফ কমিশনার (এসআরসি) পিকে জেনার বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, উড়িষ্যা রাজ্যের উপকূলীয় অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ভারী বৃষ্টি ও তীব্র বাতাস বয়ে যাচ্ছে। সড়কে গাছ ও বৈদ্যুতিক খুঁটি উপড়ে পড়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স (এনডিআরএফ) ও উড়িষ্যা ডিজাস্টার র‌্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স (ওডিআরএএফ) সদস্যরা সড়ক থেকে গাছ সরিয়ে নেওয়ার কাজ শুরু করেছেন। তারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার সড়ক যোগাযোগ চালুর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ভুবনেশ্বর আবহাওয়া কেন্দ্রের পরিচালক এইচআর বিশ্বাস বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। ফলে রাজ্যের কিছু জায়গায় হালকা থেকে মাঝারি এবং কিছু জায়গায় ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। জগৎসিংহপুর, কেন্দ্রপাড়া, বালাসোর এবং ভদ্রকের মতো জেলাগুলোতে ৭০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে বাতাস বইছে।

এসআরসির বরাতে খবরে বলা হয়, কেন্দ্রপাড়ার রাজানগর ব্লকে শুক্রবার ১৮০ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। অপরদিকে ভদ্রকের চাঁদবালি এলাকায় ১৫০ মিলিমিটার এবং জগৎসিংহপুরের ত্রিতলে ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ জানায়, ৩ হাজারের কাছাকাছি মানুষকে ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য আঘাতের স্থান থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।