বিশ্বকাপ জিতিয়ে নাইটহুড উপাধি পাচ্ছেন স্টোকস

বিশ্বকাপ জিতিয়ে নাইটহুড উপাধি পাচ্ছেন স্টোকস

জন্ম নিউজিল্যান্ডে। তবে খেলোয়াড়ী জীবনে এসে বনে গেছেন পুরোপুরি ইংলিশ। ইংল্যান্ডের নাগরিকত্বও নিয়েছেন তিনি। নিজ দেশ ছেড়ে অন্য দেশের হয়ে কেবল খেলেনইনি। জিতেছেন বিশ্বকাপ শিরোপাও। আর ওই শিরোপাটাও এসেছে নিজের জন্মস্থান নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে। ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী এই তারকার নাম বেন স্টোকস।

বিশ্বকাপ জয়ে তার ছিলো গুরুত্বপূর্ণ অবদান। যে কারণে ফাইনালে হয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচ। এ জন্য কেবল বিশ্বকাপ ট্রফি কিংবা ম্যাচ সেরার পুরস্কারই নয়, স্টোকসের জন্য অপেক্ষা করছে আরো বড় উপহার।


ইংল্যান্ডকে বিশ্বকাপ জেতাতে দারুণ ভূমিকা রাখায় বৃটিশ রানীর দেয়া সর্বোচ্চ সম্মানজনক উপাধি ‘নাইটহুড’ পেতে যাচ্ছেন অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ যার হাত ধরে এলো তাকে নাইটহুড দেয়াটাই এখন স্বাভাবিক। আর তা হলে, বেন স্টোকস হয়ে যাবেন ‘স্যার স্টোকস’।

এ মাসের শেষদিকেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে পদত্যাগ করবেন। এরপর ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে আছেন বরিস জনসন ও জেরেমি হান্ট। এই দুইজনের যে’ই প্রধানমন্ত্রী হোন না কেন, নাইটহুড উপাধি পেয়ে নামের আগে ‘স্যার’ বসবে স্টোকসের। জনসন ও হান্ট দু’জনেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তারা প্রধানমন্ত্রী হলে নাইটহুড উপাধি পাবেন স্টোকস।

এ ব্যাপারে বরিস জনসনকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘ডাকডুম (রাজ পরিবারের বিশেষ সম্মাননা) বা যাই হোক, আমি তাকে সর্বোচ্চ সম্মানটাই দিতে চাই। যদি নাইটহুডের প্রশ্ন আসে, ‘হ্যাঁ অবশ্যই।’ একই প্রশ্ন ছুঁড়ে দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে থাকা হান্টকেও। তিনি অবশ্য জবাব দিয়েছেন এক কথায়ই। স্টোকসকে নাইটহুড দেওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন ‘হ্যাঁ অবশ্যই।’

এ পর্যন্ত মোট ১১জন ইংলিশ ক্রিকেটারকে দেওয়া হয়েছে নাইটহুড উপাধি। সবশেষ ইংল্যান্ডের সাবেক টেস্ট অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলার পর পান এই সম্মাননা।