বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে উস্কানি দিচ্ছে সরকার : ফখরুল

বিএনপির শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে উস্কানি দিচ্ছে সরকার : ফখরুল

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির চলমান শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি ব্যাহত করতে ক্ষমতাসীনরা উস্কানি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে তাতে পা না দিতে নেতা-কর্মীদের প্রতি আহŸান জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কখনো ধৈর্যহারা হবেন না, কখনো বিশৃঙ্খলা করবেন না। শান্তভাবে, ধৈর্য ধরে সবকিছু মোকাবেলা করতে হবে, কর্মসূচিগুলো শান্তিপূর্ণভাবে পালন করতে হবে।

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে শনিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচির উদ্বোধনী বক্তব্যে এসব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব। খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে গণস্বাক্ষর ফরমে নিজে সই করে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন মির্জা ফখরুল। ঢাকাসহ সারাদেশে একযোগে শুরু হওয়া এই গণস্বাক্ষর কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য, আন্দোলনের অংশ হিসেবে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করা হচ্ছে। যতদিন পর্যন্ত খালেদা জিয়া কারাগার থেকে বেরিয়ে না আসছেন, ততদিন পর্যন্ত এই গণস্বাক্ষর অভিযান চলতে থাকবে। আজ শুধু এটির শুভসূচনা হলো। মির্জা ফখরুল এ সময় নেতা-কর্মীদের হুঁশিয়ার করে বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন তারা চালিয়ে যাচ্ছেন, তা যেন ব্যাহত না হয়। দলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি যেন সরকারের উসকানি ও নীলনকশা ব্যর্থ করে দিয়ে বিজয়ে পরিণত হয়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সবাইকে প্রতিবাদী হওয়ার আহŸান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, জনগণকে বলতে চাই- আর বসে থাকার সময় নেই, সমস্ত চেতনাকে জাগ্রত করুন, সবাই উঠে আসুন, বেরিয়ে আসুন। প্রতিবাদে সোচ্চার হোন এবং রাজপথে প্রতিবাদ করুন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব যখন কার্যালয়ের নিচতলায় নেতা-কর্মীদের সামনে বক্তব্য দিচ্ছিলেন, তখন বাইরে শতাধিক পুলিশ মোতায়েন ছিল।

বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন- দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। গণস্বাক্ষর সংগ্রহ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ফজলুল হক মিলন, আকম মোজাম্মেল হক, শেখ মো. শামীম, য্বুদলের সাবেক নেতা রিয়াজউদ্দিন নসু, বগুড়া জেলা বিএনপির শিশুবিষয়ক সম্পাদক মোশাররফ হোসেন চৌধুরী, জেলা বিএনপির সদস্য মোশারফ হোসেন, ইউনেসার সভাপতি এসএম মিজানুর রহমান, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি তারেক-উজ্জামান তারেক, জহিরুল ইসলাম বিপ্লব প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

গণস্বাক্ষর অনলাইনেও
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে অনলাইনেও গণস্বাক্ষর করার সুযোগ রেখেছে বিএনপি। http://www.bnpbangladesh.com/free-khaleda-zia/-এই লিংকে গিয়ে স্বাক্ষর করা যাবে। বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান এই তথ্য জানিয়েছেন।
জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান আজ : খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে তিনদিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে জেলা ও মহানগর বিএনপির উদ্যোগে আজ রোববার ঢাকাসহ সব জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হবে। বিকেলে নয়াপল্টনস্থ দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রোববার দুপুর ১২টায় ঢাকা জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হবে। এছাড়া সারাদেশে অফিস চলাকালীন সময়ে জেলা প্রশাসকদের নিকট স্মারকলিপি দেয়া হবে। সারাদেশে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, গত ৩০ জানুয়ারি থেকে এই পর্যন্ত ৪ হাজার ৭শ’ ২৫জনের অধিক নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতা ডা. জাহিদ হোসেন, ডা. ফরহাদ হালিম ডোনার, আতাউর রহমান ঢালী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।