বিএনপিবিহীন ভোট করতেই আওয়ামী লীগের নির্বাচনকালীন সরকার : ফখরুল

বিএনপিবিহীন ভোট করতেই আওয়ামী লীগের নির্বাচনকালীন সরকার : ফখরুল

বিএনপিকে বাদ দিয়ে একাদশ সংসদ নির্বাচনের পরিকল্পনা থেকেই আওয়ামী লীগ একতরফাভাবে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের কথা বলছে বলে অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অক্টোবরে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের সম্ভাবনার কথা বলার একদিন পর  বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় এ রকম অভিযোগ তুলেন বিএনপি মহাসচিব। বিএনপি সমর্থিত বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে ‘১৬ জুন সংবাদপত্রের কালো দিবস’ উপলক্ষে এই আলোচনা সভা হয়। মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বুধবার বলেছেন-আগামী জাতীয় নির্বাচনের অন্তর্বর্তীকালীন সরকার, টরকার হয়ে যাবে। বিএনপি না আসলে কি নির্বাচন থেমে থাকবে? এটাই তো তারা চায়। বিএনপি না আসুক, অন্যান্য দলগুলো দুই-একটা যেটা আনা হয়েছে, তারা আসুক।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, গণতান্ত্রিক দল হিসেবে অবশ্যই আমরা নির্বাচন চাই। সেই নির্বাচনটা অবশ্যই হতে হবে নির্বাচনের মতো। আপনারা ক্ষমতায় থাকবেন, হেলিকপ্টারে চড়ে ঘুরে ঘুরে বেড়াবেন। বিরোধী দলকে একটা কথাও বলতে দেবেন না, ধরে ধরে জেলে পুরবেন। সেক্ষেত্রে তো নির্বাচন হবে না। নির্বাচনের সমান্তরাল মাঠ তৈরি করতে হবে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতির সংস্কৃতি অনুযায়ী নির্বাচনকালীন সময়ে একটা নিরপেক্ষ সরকার থাকতে হবে- এটার কোনো বিকল্প নাই। সংসদ ভেঙে দিতে হবে। আর সবার আগে গণতন্ত্রের প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে না বলে সভায় অভিযোগ করেন মির্জা ফখরুল। বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গাজীর সভাপতিত্বে এবং ডিইউজের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইরফানুল হক নাহিদের পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন- আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, বিএফইউজের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, বিএফইউজের মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, ডিইউজের সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমেদ প্রমুখ।