বাল্ক মেসেজ পাঠালে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারে হোয়াটস অ্যাপ

বাল্ক মেসেজ পাঠালে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারে হোয়াটস অ্যাপ

একসঙ্গে অনেকজনকে মেসেজ পাঠানোর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে উদ্যোগী হচ্ছে হোয়াটস্যাপ। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়া খবর, প্ররোচনামূলক মেসেজ এবং স্প্যাম আটকাতেই এই পদক্ষেপ।

হোয়াটসঅ্যাপ জানিয়েছে, অ্যাপটি একসঙ্গে অনেকজনকে মেসেজ পাঠানোর উদ্দেশ্যে বানানো হয়নি। এ ছাড়াও ব্যবসায়িক স্বার্থে অটোমেটেড মেসেজ পাঠানোও নিষিদ্ধ। এ বছর ডিসেম্বর ৭ এরপর থেকে অ্যাপ-এর এই শর্তাবলী মানা না হলে ব্যবহারকারীর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।


তাছাড়া ব্যক্তিগত ব্যবহারের মধ্যেই হোয়াটসঅ্যাপকে সীমাবদ্ধ রাখতে চাইছে প্রতিষ্ঠানটি। কোনো প্রতিষ্ঠান যদি তাদের ব্যবসায়িক স্বার্থে হোয়াটসঅ্যাপ এর মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয় মেসেজ পাঠাতে চায় সেক্ষেত্রে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে।

হোয়াটস্যাপ-এর এক মুখপাত্রের বক্তব্য অনুযায়ী, ইতিমধ্যে হোয়াটস্যাপ-এ যারা শর্তাবলী অমান্য করছে তাদের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ব্যবসায়ীদের স্বার্থে হোয়াটসঅ্যাপ বিজনেস অ্যাপ-টিকে আরও উন্নত করার ব্যাপারেও কাজ করছে ফেসবুক।

তবে ঠিক কি আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে সে ব্যাপারে এখনও কিছু বলেনি হোয়াটসঅ্যাপ।

প্রসঙ্গত, এ বছরের শুরুতেই হোয়াটসঅ্যাপ-এ ভুয়া খবর ছড়ানো ঠেকাতে মেসেজ ফরোয়ার্ড-এর সংখ্যা ৫ জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ করা হয়।