বাজেট পাসের আগেই বাড়তি সয়াবিন-চিনির দাম

বাজেট পাসের আগেই বাড়তি সয়াবিন-চিনির দাম

২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সয়াবিন তেল ও চিনির ওপর মূসক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হলেও তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। অথচ এরই মধ্যে রাজধানীর খুচরা ও পাইকারি বাজারে এসব পণ্যের দাম বেড়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজার, খিলগাঁও, শান্তিনগর ও মালিবাগ ঘুরে এ চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে বাজার ঘুরে দেখা যায়, সয়াবিন তেলে প্রতি মণে দাম বেড়েছে ৫০ টাকা। এর আগে প্রতি মণ ২ হাজার ৮শ টাকায় বিক্রি হলেও এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২৮শ ৫০ টাকা। অন্যদিকে পাম (সুপার) তেলে বেড়েছে প্রতি মণে ৬০ টাকা। পামঅয়েল তেল ২১শ ৮০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেলেও এখন তা বিক্রি হচ্ছে ২২শ ২০ টাকায়।

৫০ কেজি চিনি বাজেটের আগে ২৩শ ৫০ টাকায় বিক্রি হলেও এখন বিক্রি হচ্ছে ২৫শ ৫০ টাকায়। বাজেট পাস না হলেও ঘোষণার পরপরই প্রতি ৫০ কেজিতে ২শ টাকা বেশি দামে বিক্রি করছে অসাধু ব্যবসায়ীরা।

তবে আগের দামে বিক্রি হচ্ছে সব ধরনের গুঁড়া দুধ, সরিষার তেল ও মধু। এখন পর্যন্ত এ তিন পণ্যে দাম বাড়ায়নি ব্যবসায়ীরা। তবে তামাকজাত পণ্য কয়েকগুণ বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে।

কারওয়ান বাজারের ব্যবসায়ী আওলাদ মিয়া বলেন, বাজেটের আগে কেনা সয়াবিন তেল, চিনি ও পাম অয়েল সব ব্যবসায়ীরাই বেশি দামে বিক্রি করছে। তেলভেদে ৫০ থেকে ১০০ টাকা ও চিনিতে ২শ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

খিলগাঁও বাজারের ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেন বলেন, পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বেড়েছে।

আব্দুল হক নামে এক ক্রেতা বলেন, বাজেটের আগে প্রতি মণ পাম অয়েল তেল ২১শ ৮০ টাকায় কিনলেও এখন ২২শ ২০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। এভাবে ৫০ কেজি চিনিতে অতিরিক্ত ২০০ থেকে ২৫০ টাকা গুণতে হচ্ছে।